প্রশিক্ষণ শেষে ডিনারে গিয়েছিলেন দু’জন। সেই রেস্তোরাঁতেই এক সিনিয়র ক্যাপ্টেনের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ আনলেন এয়ার ইন্ডিয়ার অধস্তন মহিলা পাইলট। তাঁর অভিযোগ, ওই ক্যাপ্টেন তাঁর সঙ্গে অশালীন ও আপত্তিকর কথাবার্তা বলার চেষ্টা করেন। বাধ্য হয়ে তিনি ডিনার টেবিল ছেড়ে ক্যাব ভাড়া করে ফিরে আসেন। গত ৫ মে হায়দরাবাদের এই ঘটনার অভিযোগ পেয়েই তদন্ত শুরু করেছেন এয়ার ইন্ডিয়া কর্তৃপক্ষ।

এয়ার ইন্ডিয়ায় দীর্ঘদিন ধরেই পাইলট পদে কর্মরত অভিযোগকারিণী মহিলা। সম্প্রতি হায়দরাবাদে একটি প্রশিক্ষণ হয় তাঁর। একইসঙ্গে প্রশিক্ষণ হয় অভিযুক্ত ক্যাপ্টেনেরও। প্রশিক্ষণ শেষে ইনস্ট্রাক্টর তাঁদের দু’জনকে একসঙ্গে ডিনারে যেতে বলেন। সেই মতো তাঁরা হায়দরাবাদের একটি রেস্তোরাঁয় যান। সেখানেই নানা ভাবে ওই মহিলা পাইলটের সঙ্গে আপত্তিকর কথাবার্তা বলা শুরু করেন বলে অভিযোগ।

মহিলা পাইলট অভিযোগপত্রে জানিয়েছেন, ‘‘আমি ডিনারে যেতে রাজি হই, কারণ ওই ক্যাপ্টেনের সঙ্গে অনেক বার একই সঙ্গে বিমান চালিয়েছি। তাঁকে ভদ্র বলেই মনে হয়েছে। আমরা রাত ৮টা নাগাদ একটি রেস্তরাঁয় যাই এবং সেখানেই শুরু হয় আমার অগ্নিপরীক্ষা।’’

অভিযোগকারিণীর বয়ান অনুযায়ী, ওই রেস্তোরায় যাওয়ার পরই ‘‘উনি বলতে শুরু করেন, বিবাহিত জীবনে আমি কতটা হতাশাগ্রস্ত। উনি আমাকে জিজ্ঞেস করেন, স্বামীকে ছেড়ে এত দূরে কী ভাবে আমি একা থাকি, আমি হস্তমৈথুন করি কি না, প্রতিদিন যৌনমিলনের প্রয়োজন হয় কি না— এই সব প্রশ্ন। একটা সময় আমি বলতে বাধ্য হই, আপনার সঙ্গে আমি এই ধরনের আলোচনা করতে চাই না এবং ক্যাব ডেকে নিই।’’

আরও পডু়ন: বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙেছে তৃণমূলই, দায় চাপানো হচ্ছে বিজেপির উপর: অমিত

আরও পডু়ন: আগাম রিপোর্ট পেয়েও কেন বিশৃঙ্খলা এড়াতে পারল না কলকাতা পুলিশ? উঠছে প্রশ্ন

মহিলা পাইলটের আরও দাবি, ‘‘ক্যাবের জন্য আমাকে আধঘণ্টা অপেক্ষা করতে হয়। এই ব্যবহারে আমি মর্মাহত হয়ে পড়ি। অস্বস্তি, ভয় এবং অপমানিত বোধ করে ফিরে আসি।’’

ফিরে এসে পরে এয়ার ইন্ডিয়া কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন মহিলা পাইলট। মহিলার বক্তব্য, ‘‘ভবিষ্যতে যাতে আর কাউকে এই পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে না হয়, তার জন্যই লিখিত অভিযোগ করেছি। তদন্ত শুরু হলেও তার অগ্রগতি কতটা, সে সম্পর্কে বিস্তারিত কিছু জানাননি এয়ার ইন্ডিয়া কর্তৃপক্ষ।