ক্রিকেট ব্যাট দিয়ে পুর আধিকারিককে পিটিয়ে জেলে গিয়েছিলেন। বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়র ছেলে সেই আকাশ বিজয়বর্গীয় জামিন পেতেই ইনদওরে কার্যত উৎসবে মাতলেন তাঁর সমর্থক অনুগামীরা। জেলের সামনেই তাঁকে মালা পরিয়ে কার্যত বীরের মর্যাদা দিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। আনন্দের আতিশয্যে বিজেপি অফিসের সামনে শূন্যে গুলি ছুড়ে দলীয় বিধায়কের মুক্তি উদযাপন করা হয়। আর ইনদওরের বিজেপি বিধায়কের মন্তব্য, ‘জেলে খুব ভাল সময় কাটিয়েছি’। সরকারি আধিকারিককে পিটিয়ে জেল খাটার পরও এ ভাবে উৎসবের মেজাজে বরণ করা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে মধ্যপ্রদেশ কংগ্রেস।

গত ২৬ জুন পুর আধিকারিককে পেটানোর ঘটনায় ওই দিনই গ্রেফতার হন ইনদওর-৩ কেন্দ্রের বিজেপি বিধায়ক আকাশ বিজয়বর্গীয়। তিন দিন হাজতবাসের পর গতকাল, শনিবারই তাঁর জামিন মঞ্জুর করে ইনদওরের বিশেষ আদালত। রবিবার জেল থেকে ছাড়া পান আকাশ। জেল থেকে বেরিয়ে তিনি বলেন, “জেলে খুব ভাল সময় কেটেছে। এলাকার মানুষের ভালর জন্য কাজ করেই যাব।’’

আকাশ গ্রেফতার হওয়ার পর তাঁর অনুগামী-সমর্থকরা থানার সামনে জমায়েত করেছিলেন। প্রতিবাদ, বিক্ষোভও দেখিয়েছিলেন। শনিবার জামিনের খবর পেয়ে তাঁরাই জেলের সামনে হাজির হন। আকাশ জেলের বাইরে বেরোতেই তাঁরা ফুলের মালা পরিয়ে তাঁকে বরণ করে নেন। স্লোগান-মিছিলে ইনদওর বিজেপি পার্টি অফিসে পৌঁছন আকাশ। সেখানে ছিল কার্যত উৎসবের মেজাজ। তাসা-ব্যান্ডপার্টির তালে নাচে মেতে ওঠেন সমর্থকরা। তার মধ্যেই এক জনকে শূন্যে পরপর পাঁচ-ছ’টি গুলি ছুড়তে দেখা যায়। 

আরও পুড়ন: ‘সংসদ চলছে বলে নখ-দাঁতগুলো দেখতে পাচ্ছেন না’, মমতাকে হুঁশিয়ারি মুকুলের

আরও পডু়ন: এ বার ‘এক দেশ, এক রেশন কার্ড’-এর লক্ষ্যে মোদী সরকার

পুর আধিকারিককে ব্যাট দিয়ে পেটানোর ঘটনার পরই কড়া নিন্দা করেছিল মধ্যপ্রদেশের শাসক দল কংগ্রেস। এ দিন মুক্তির পর তাঁকে নিয়ে উদ্দীপনা দেখে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। কমল নাথের খোঁচা, “ক্রিকেট ব্যাট দেশের জয়ের প্রতীক হওয়া উচিত, গণতন্ত্রের পরাজয়ের নয়।”

গত ২৬ জুন বুধবার জবরদখল উচ্ছেদ নিয়ে বিবাদের সূত্রপাত। ওই দিন দখলকারীদের তুলতে গেলে পুর আধিকারিকদের প্রথমে হুমকি দেন প্রথমবারের বিধায়ক আকাশ। পাঁচ মিনিটের মধ্যে এলাকা ছাড়ার কথা বলেন, না হলে পরিণাম ভাল হবে না বলে হুমকিও দেন। কিন্তু আধিকারিকরা কর্তব্যে অবিচল থাকায় কিছুক্ষণ পরই ক্রিকেট ব্যাট দিয়ে এক পুর আধিকারিককে বেধড়ক পেটান আকাশ। সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ভিডিয়ো ছড়িয়ে পড়ে। তার পরই তাঁকে গ্রেফতার করে ইনদওর পুলিশ।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ।