• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

অমিতের মুখে ফের এনআরসি

Amit Shah
অমিত শাহ।—ছবি পিটিআই।

Advertisement

রাত পোহালে ‘প্রেমের দিন’। প্রধানমন্ত্রীকে ফের আমন্ত্রণ জানাল শাহিন বাগ। বৃহস্পতিবার দক্ষিণ-পূর্ব দিল্লির এই প্রতিবাদ স্থলে ছিল একাধিক পোস্টার। কোনওটায় লেখা— ‘মোদী, কবে আসবেন?’ কোনওটায় ‘‘আমাদের সঙ্গে ভ্যালেন্টাইন্স ডে পালন করুন।’ বিক্ষোভকারীরা জানিয়েছেন, মোদীর জন্য বিশেষ উপহারও তৈরি রেখেছেন তাঁরা। প্রধানমন্ত্রী শুধু এক বার এসে তাঁদের সঙ্গে কথা বলুন।

দু’মাস ধরে শাহিন বাগ অপেক্ষায় আছে, কখন সরকার কথা বলতে আসবে! ভোটে শাহিন বাগে ‘কারেন্ট’ লাগাতে চেয়েছিলেন অমিত শাহ। আজ বললেন, শাহিন বাগ নিয়ে অবস্থান বদলায়নি। তবে প্রতিবাদীদের সঙ্গে কথা বলতে রাজি। যদিও শর্ত আছে। আর সেই শর্ত জানাতে গিয়ে ফের বললেন এনআরসি-র কথাও।

অমিতের দাবি, এনআরসি সংক্রান্ত অবস্থান থেকে আদৌ পিছু হঠছে না সরকার। তাঁর কথায়, ‘‘যখন হবে, লুকনো থাকবে না।’’ টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর মুখ থেকে বেরোনো এই কথা বিজেপি টুইটও করে দিয়েছিল। বিতর্ক শুরু হতে আবার তড়িঘড়ি মুছে ফেলে। 

তা হলে শাহিন বাগের সঙ্গে দেখা করার শর্ত কী? অমিতের কথায়, তাঁর দফতরে আবেদন জানাতে হবে। তিন দিনের মধ্যে দেখা করবেন। প্রতিবাদীদের এক জন ইউনূস খান শুনে বলেন, ‘‘অণ্ণা হজারের আন্দোলনের সময় তো এত শর্তের কথা ওঠেনি! সরকার তো গিয়ে কথা বলেছিল! কেউ কি শাহিন বাগে আসতে পারেন না?’’ একই সঙ্গে অমিতেওর প্রশ্ন, ‘‘আলোচনা কি কেউ করতে চান? চাইলে স্বাগত, যুক্তির ভিত্তিতে কথা হবে। নাগরিকত্ব আইন কারও নাগরিকত্ব কেড়ে নিচ্ছে না।’’ 

অথচ এই অমিতই এর আগে সংসদের ভিতরে ও বাইরে বারবার বলেছিলেন, সিএএ-র পর এনআরসি আসবে। সব অনুপ্রবেশকারীদের বের করা হবে। আধার, প্যান কার্ড, ড্রাইভিং লাইসেন্স কোনও কিছুর গুরুত্ব নেই। সে সব গিলে অমিত আজ বোঝানোর চেষ্টা করেন, ‘‘এ সব আমাদের দলের ইস্তাহারে আছে। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, সম্প্রতি সংসদে বলেছি, এনআরসি নিয়ে সিদ্ধান্ত হয়নি।’’ তা হলে কি পিছিয়ে এলেন? অমিতের উত্তর, ‘‘কোথায় পিছু হঠছি? ভবিষ্যতে কী হবে কে জানে? যখন হবে, লুকনো থাকবে না। সকলে জানতে পারবেন।’’ তবে পাছে এই নিয়ে আবার হইচই শুরু হয়, তাই অমিতের এই কথা টুইট করেও মুছে ফেলে বিজেপি।

পি চিদম্বরম আজ জেএনইউয়ে গিয়ে বলেছেন, ‘‘নাগরিকত্বের ভিত্তি এই সরকার ধর্ম করে দিচ্ছে।’’ জবাবে অমিত বলেন, ‘‘প্রণব মুখোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন কমিটিতেও প্রত্যেক নাগরিকের পঞ্জিকরণের কথা বলে পরিচয়পত্র জারির কথা রয়েছে। এই আইন পাশের পর কংগ্রেসশাসিত রাজস্থান পাকিস্তান থেকে আসা ৭৪ জনকে নাগরিকত্ব দিয়েছে। পাকিস্তান, আফগানিস্তান, বাংলাদেশে এনআরসি আছে। চিদম্বরমের আপত্তি নেই। কংগ্রেস করলে ধর্মনিরপেক্ষ, বিজেপি করলে সাম্প্রদায়িক?’’ ‘কাগজ দেখাব না’ স্লোগানের প্রসঙ্গে অমিত বলেন, ‘‘আমিও বলছি, কাগজ দেখাবেন না। এনপিআর-এ কাগজ দেখাতে হবেও না। মুখে বললেই হবে।’’ 

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন