• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

সংসদে ক্ষমা চাইলেন আজম খান, এখনও সন্তুষ্ট নন রমা দেবী

Azam Khan and Rama Devi
লোকসভার অধিবেশনে আজম খান ও রমা দেবী। সোমবার পিটিআইয়ের তোলা ছবি।

Advertisement

সংসদে আপত্তিকর মন্তব্যের জন্য অবশেষে রমা দেবীর কাছে ক্ষমা চাইলেন আজম খান। তবে যাঁর উদ্দেশে ওই আপত্তিকর মন্তব্য সেই রমা দেবী এখনও তা মানতে নারাজ। তাঁর মতে, আজম খান ‘স্বভাবগত অপরাধী’। এবং আজম খানের এ ধরনের কথা শুনতে তিনি সংসদে আসেননি।

সোমবার সকালে লোকসভার অধিবেশন শুরুর কিছু ক্ষণের মধ্যেই আজম খানকে নিজের বক্তব্য পেশ করার সুযোগ দেন স্পিকার ওম বিড়লা। রমা দেবীর কাছে ক্ষমা চেয়ে আজম খান বলেন, ‘‘আমার কথায় যদি কেউ আঘাত পেয়ে থাকেন, তবে আমি ক্ষমা চাইছি।’’ তবে সেই সঙ্গে তিনি এ-ও জানান যে তাঁর বক্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা করা হয়েছে। তাঁর কথায়, ‘‘আমি ন’বারের বিধায়ক, মন্ত্রীও থেকেছি বহু বার। রাজ্যসভার সদস্যও হয়েছি, সংসদীয় বিষয়ক মন্ত্রীও ছিলাম। সংসদের কাজকর্ম সম্পর্কে অবগত। তা সত্ত্বেও আমার মন্তব্য কাউকে আহত করলে ক্ষমা চাইছি।’’

গত বৃহস্পতিবার তিন তালাক বিতর্ক চলাকালীন রমা দেবীর উদ্দেশে লিঙ্গবৈষম্যমূলক মন্তব্য করে সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন সমাজবাদী পার্টির নেতা আজম খান। সে সময় স্পিকার ওম বিড়লার অমুপস্থিতিতে সভার কাজ পরিচালনা করছিলেন ডেপুটি স্পিকার তথা বিজেপি সাংসদ রমা দেবী। স্পিকারের আসনে বসা রমা দেবীকে আজম খান বলেছিলেন, “আপনাকে আমার এত ভাল লাগে যে মনে হয়, আপনার চোখে চোখ রেখেই বসে থাকি।”

আরও পড়ুন: কেরলে ধর্নায় দলিত বিধায়ক, গোবরজলে ‘শুদ্ধকরণ’-এর অভিযোগ কংগ্রেসের বিরুদ্ধে

আরও পড়ুন: মোদীর চমক, স্বচ্ছ ভারত আর আয়ুষ্মান ভারতের পরে এ বার ‘বুদ্ধিমান ভারত’

আজম খানের ওই মন্তব্যের পরই বিভিন্ন রাজনৈতিক শিবিরে তা নিয়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া হয়। নিঃশর্ত ক্ষমা না চাইলে তাঁকে সংসদ থেকে বহিষ্কারেরও দাবি ওঠে। রমা দেবী বলেছিলেন, “আজম খানের মন্তব্যে শুধুমাত্র নারীরই নয়, পুরুষের সম্মানেও আঘাত হেনেছে।” ক্ষমা চাইলেও আজমকে কখনই মাফ করবেন না বলেও জানিয়ে দেন রমা দেবী। এ দিন তিনি বলেন, ‘‘তিনি (আজম খান) কখনই বুঝতে পারবেন না। খুবই বদভ্যাস হয়ে গিয়েছে তাঁর। তাঁর এ ধরনের মন্তব্য শুনতে আমি এখানে নির্বাচিত হয়ে আসিনি।’’

আরও পড়ুন: কর্নাটকে বিজেপির ‘ওয়াপসি’, আস্থাভোটে জয়ী ইয়েদুরাপ্পা, ইস্তফা স্পিকারের

আরও পড়ুন: গরু এ বার আইআইটির ক্লাসরুমে!

তাঁর মন্তব্যের অপব্যাখ্যা করা হয়েছে দাবি করে এর পর রমা দেবীর উদ্দেশে আজম খান বলেন, ‘‘বোন, আমার দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবন। আমার পক্ষে এ ধরনের কুকথা বলা সম্ভব নয়। যদি আমার মন্তব্যে একটাও অসংসদীয় বাক্য থাকে, তবে সংসদ থেকে ইস্তফার কথা ঘোষণা করব।’’

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও।সাবস্ক্রাইব করুনআমাদেরYouTube Channel - এ।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন
বাছাই খবর

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন