• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

‘গুজরাতিরা অনুপ্রবেশকারী হলে ইতালীয়রা কী?’ অধীরের পাল্টা বিজেপির

Congress and BJP
‘অনুপ্রবেশকারী’ মন্তব্য বিতর্কে কংগ্রেসকে পাল্টা আক্রমণ বিজেপির।

অধীরের ‘অনুপ্রবেশকারী’ মন্তব্যের জেরে সরগরম দিল্লি। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহকে ‘অনুপ্রবেশকারী’ বলে আক্রমণের জবাবে এ বার সনিয়া গাঁধীকে নিশানা করল বিজেপি। দলের মুখপাত্র সম্বিত পাত্রের পাল্টা কটাক্ষ,  ‘গুজরাতিরা অনুপ্রবেশকারী? আর ইতালীয়রা?’ সংসদেও এ নিয়ে সরব হন বিজেপি সাংসদরা।

রবিবার, সরাসরি নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহকে কটাক্ষ করেছিলেন অধীররঞ্জন চৌধুরী। কংগ্রেসের লোকসভার দলনেতা অধীরের এই মন্তব্য ঘিরে কার্যত তখন থেকেই দুই শিবিরের মধ্যে ঠোকাঠুকি শুরু হয়ে গিয়েছিল। সোমবার সেই আক্রমণের মাত্রা আরও এক ধাপ চড়াল গেরুয়া শিবির। এনআরসি ইস্যুতে অধীর নিশানা করেছিলেন মোদী এবং শাহ জুটিকে। এ দিন টুইটারে বিজেপি নেতা টার্গেট করলেন সনিয়া গাঁধীকে। অবশ্য কোথাও সনিয়ার নাম করেননি সম্বিত। তবে, দু’টি বাক্যেই বুঝিয়ে দিয়েছেন ঠিক কোন জায়গায় আঘাত হানতে চেয়েছেন তিনি। রাজীব গাঁধীর মৃত্যুর পর থেকেই বার বার সনিয়ার বিরুদ্ধে ‘বিদেশিনী’ তত্ত্ব খাড়া করেছে গেরুয়া শিবির। এ দিন সেই তিরই ফের এক বার প্রয়োগ করলেন বিজেপি মুখপাত্র সম্বিত পাত্র। টুইটে তিনি লেখেন, ‘গুজরাতিরা অনুপ্রবেশকারী? তা হলে ইতালীয়রা?’

অধীরের মন্তব্য নিয়ে সংসদের ভিতরেও তোলপাড় শুরু হয়ে যায় এ দিন। কংগ্রেসকে সংসদের বাইরে আক্রমণের ব্যাটনটা হাতে তুলে নিয়েছিলেন সম্বিত। আর সংসদের ভিতরে সেই কাজটা সারতে এগিয়ে আসে শাসক দলের একাধিক মুখ। চলে বিক্ষোভও। সম্বিতের সুরে সুর মিলিয়েই সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী প্রহ্লাদ জোশী বলেন, কংগ্রেস নেত্রীই এক জন ‘অনুপ্রবেশকারী’। তাঁর মন্তব্য, ‘‘যাঁরা মোদীজিকে নির্বাচিত করেছেন এটা তাঁদের সরাসরি অপমান করা। তিনি বিপুল জনাদেশ পেয়েছেন। বিদেশেও মানুষ তাঁকে পছন্দ করেন।’’ বিষয়টি তোলা হয় সংসদের জিরো আওয়ারেও। অধীরকে নিঃশর্তে ক্ষমা চাইতে হবে বলেও দাবি তুলেছে বিজেপি।

আরও পড়ুন: ১০০ টাকা ঘুষের তদন্তে সিবিআই! উত্তরপ্রদেশে দুই ডাক আধিকারিকের বিরুদ্ধে এফআইআর​

আরও পড়ুন: গার্ডেনরিচে গুলিবিদ্ধ আরএসএস কর্মী, ঘটনার পিছনে প্রোমোটার যোগ দেখছে পুলিশ

রবিবার নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহকে কটাক্ষ করে অধীর বলেন, ‘‘অমিত শাহজি, নরেন্দ্র মোদীজিদেরই তো অনুপ্রবেশকারী বলা যেতে পারে। গুজরাত থেকে দিল্লি এসেছেন। সে ক্ষেত্রে আপনারা নিজেরাই তো অনুপ্রবেশকারী। আইনি না বেআইনি সে বিচার পরে হবে।’’ সেই মন্তব্য ঘিরে বিতর্ক জিইয়ে থাকল এ দিনও।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন