• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের নোট ‘ফাঁস’, রাফাল নিয়ে ফের সরব রাহুল, পাল্টা তোপ সীতারামনের

rahul gandhi
প্রতিরক্ষামন্ত্রকের ‘ফাঁস’ হওয়া সেই নোট নিয়ে সাংবাদিক সম্মেলনে রাহুল গাঁধী। গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

রাফাল চুক্তি নিয়ে নরেন্দ্র মোদীকে ফের ‘চোর’ বলে আক্রমণ করলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গাঁধী। তাঁর অভিযোগ, বায়ুসেনার ৩০ হাজার কোটি টাকা চুরি করেছেন মোদী এবং সেই টাকা তিনি অনিল অম্বানিকে দিয়েছেন। শুক্রবার সাংবাদিক সম্মেলন করে এ ভাবেই মোদীর বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন রাহুল। কংগ্রেসকে পাল্টা জবাব দিয়েছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারামনও। 

নির্মলা বলেন, “সংবাদপত্রে প্রাক্তন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পর্রীকরের প্রতিক্রিয়া ছাপানো হয়নি। প্রতিরক্ষামন্ত্রকের সেই নোটের জবাব দিয়েছিলেন পর্রীকর। তিনি বলেছিলেন, দুশ্চিন্তার কোনও কারণ নেই।” প্রাক্তন প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সেই প্রতিক্রিয়া ছাপানো উচিত ছিল বলে লোকসভায় পাল্টা আক্রমণ করেন নির্মলা। তাঁর আরও মন্তব্য, “গোপন স্বার্থেই এই ইস্যুকে বাঁচিয়ে রাখছে বিরোধীরা। তারা চায় না বায়ুসেনা শক্তিশালী হোক।”

রাফাল চুক্তি নিয়ে তৎকালীন প্রতিরক্ষা সচিব জি মোহন একটি নোট প্রকাশ্য আসে। এ দিন সেটাকেই হাতিয়ার করে সাংবাদিক সম্মেলন করে মোদী আক্রমণ করেন রাহুল। ২০১৫ সালের ২৪ নভেম্বরের ওই বিশেষ নোটে জি মোহন কুমার তত্কালীন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী মনোহর পর্রীকরকে জানান, ‘‘পিএমও এ ব্যাপারে আলাদা ভাবে ফরাসি সরকারের সঙ্গে আলোচনা চালানোয়, দর কষাকষিতে অসুবিধা হচ্ছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রক ও ভারতের মধ্যস্থতাকারী দলের।’’  ‘দ্য হিন্দু’তে প্রকাশিত সেই নোট হাতে নিয়ে রাহুল বলেন, “অনিল অম্বানির কথা ভেবেই রাফাল নিয়ে আলাদা ভাবে তদন্ত চালিয়েছিলেন মোদী।” তাঁর অভিযোগ, যে ৩০ হাজার কোটি টাকা হ্যাল-এর প্রাপ্য মোদী সেটা দিয়েছেন তাঁর বন্ধু অনিল অম্বানিকে।

প্রতিরক্ষা সচিবের ওই রিপোর্ট উল্লেখ করে রাহুলের মন্তব্য,  “তিনি এক বছর ধরে বার বার বলে এসেছেন রাফালে অভিযুক্ত মোদী, এই নোট প্রকাশ্যে আসার পর তা জলের মতো স্পষ্ট হল।”  পাশাপাশি তাঁর অভিযোগ, মোদী রাফাল নিয়ে আদালতেও মিথ্যা কথা বলেছেন। এর পরেই রাহুল মোদীকে কটাক্ষ করে বলেন, “এর থেকেই প্রমাণ হল উনি একসঙ্গে চোর ও চৌকিদার।” রাহুলের প্রশ্ন, “ রাফাল নিয়ে কার জন্য এমন সমান্তরাল আলোচনা চালিয়েছিলেন মোদী? আমার, আপনার জন্য নয়। তিনি অনিল অম্বানির জন্যই এ কাজ করছিলেন।”

আরও পড়ুন: আইপিএস নিয়ে সংঘাত আরও বাড়ল, পদকেও কি কোপ?

সংবাদমধ্যমে প্রতাশিত রাফালের রিপোর্ট নিয়ে কংগ্রেস হইচই করলেও তত্কালীন প্রতিরক্ষা সচিব জি মোহন কিন্তু এ দিন অন্য কথা বলেন।  সংবাদ সংস্থা এনএনআই-এর কাছে তাঁর দাবি, সংবাদমাধ্যমের রিপোর্টের সঙ্গে রাফাল দামের কোনও সম্পর্ক নেই। অন্য দিকে, রাহুলের এই অভিযোগকে সম্পূর্ণ খারিজ করে দিয়েছে কেন্দ্র এবং অনিল অম্বানি। বিজেপির পাল্টা অভিযোগ, কংগ্রেস এ ধরনের মিথ্যা প্রচার চালিয়ে দেশবাসীর মধ্যে একটা ভ্রম তৈরি করছে। এ দিন লোকসভায় রাফাল প্রসঙ্গ উঠতেই তুমুল হইচই শুরু করে দেয় বিরোধীরা। দুপুর ১২টা পর্যন্ত মুলতুবি হয়ে যায় সংসদ। 

আরও পড়ুন: ‘জাতীয়’ নেত্রীর সুরে বিশ্ব বঙ্গ শিল্প সম্মেলনের মঞ্চেও কেন্দ্রে বদলের বার্তা মমতার

বৃহস্পতিবারই রাফাল নিয়ে কংগ্রেসকে পাল্টা আক্রমণ করেছিলেন মোদী। তিনি বলেন, “অবাক হচ্ছি, এত আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে কী ভাবে ওরা মিথ্যা কথা বলছে। তার পরে বুঝলাম, তারা যত দিন ক্ষমতায় ছিল সেই জমানায় সত্ ভাবে একটাও প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত চুক্তি হয়নি। বিভিন্ন সময়ে ‘মামা’, ‘কাকা’রা প্রভাব বিস্তার করেছে চারপাশ থেকে।”

 

(কাশ্মীর থেকে কন্যাকুমারী, গুজরাত থেকে মণিপুর - দেশের সব রাজ্যের গুরুত্বপূর্ণ খবর জানতে আমাদেরদেশবিভাগে ক্লিক করুন।)

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন