• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

কম খরচে ভ্যাকসিন তৈরিতে নয়া চুক্তি

COVID-19 Vaccine
প্রতীকী ছবি।

ইঞ্জেকশন নয়, বরং নাক দিয়ে নেওয়া যায় এমন একটি সম্ভাব্য করোনা ভ্যাকসিন তৈরি করেছে মিসৌরির ওয়াশিংটন ইউনিভার্সিটি স্কুল অব মেডিসিন। আমেরিকায় ভ্যাকসিনটির প্রথম ধাপের ট্রায়াল শুরুও হয়ে গিয়েছে।

এই ভ্যাকসিন ছাড়পত্র পেলে সেটির ১০০ কোটি ডোজ় তৈরি করে ভারত-সহ বিভিন্ন দেশে জোগান দিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে ভারতীয় ওষুধ প্রস্তুতকারী সংস্থা ভারত বায়োটেক। বুধবার তারা জানিয়েছে, চুক্তি অনুযায়ী আমেরিকা, জাপান ও ইউরোপ ছাড়া পৃথিবীর অন্যান্য দেশে ভ্যাকসিন সরবরাহ করতে পারবে তারা। প্রথম ধাপের পরীক্ষার ফল সন্তুষ্টিজনক হলে, দ্বিতীয় ও তৃতীয় ধাপে তারা ট্রায়াল চালাবে ভারতেও। 

ইতিমধ্যেই দেশে একাধিক প্রতিষেধকের দ্বিতীয় ও তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল শুরু হয়ে গিয়েছে। তালিকায় প্রথমেই রয়েছে রাশিয়ার ‘স্পুটনিক ভি’। অক্সফোর্ডের ‘কোভিশিল্ড’ টিকার দ্বিতীয় ও তৃতীয় পর্যায়ের পরীক্ষাও চলছে ভারতে। কেন্দ্র মনে করছে, এ বছরের শেষে বা আগামী বছরের শুরুতেই সুখবর দেওয়া সম্ভব হবে। তবে টিকার দাম বা এর সুষম বণ্টন নিয়েও চিন্তা রয়েছে।

(গ্রাফের উপর হোভার বা টাচ করলে প্রত্যেক দিনের পরিসংখ্যান দেখতে পাবেন। )

আরও পড়ুন: ‘টাইম’-এর প্রভাবশালীর তালিকায় শাহিনবাগের দাদি, মোদীও

এই পরিস্থিতিতে ভারত বায়োটেক-এর চেয়ারম্যান কৃষ্ণ এলা জানিয়েছেন, নাকের মাধ্যমে ভ্যাকসিনটি শরীরে প্রবেশ করানো হবে। ফলে সিরিঞ্জ-সহ বেশ কিছু খরচ কমে যাবে প্রথমেই। প্রতিষেধক প্রয়োগের কাজটি আরও সহজ হবে। ওয়াশিংটন ইউনিভার্সিটি স্কুল অব মেডিসিন-এর প্রফেসর  ডেভিড কুরিয়েল জানান, প্রতিষেধকটি শুধুমাত্র করোনা সংক্রমণ ঠেকাবে না, তা নতুন করে ছড়িয়ে পড়াও রুখে দেবে। নাক দিয়ে নেওয়া হবে বলেই এই বাড়তি সুবিধা পাওয়া যাবে।

(গ্রাফের উপর হোভার বা টাচ করলে প্রত্যেক দিনের পরিসংখ্যান দেখতে পাবেন। )

বুধবার থেকে মুম্বইয়ের কিং এডওয়ার্ড মেমোরিয়াল হাসপাতালে অক্সফোর্ডের ‘কোভিশিল্ড’-এর দ্বিতীয় ও তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল শুরু হয়ে গিয়েছে। তার জন্য ১০০ জন স্বেচ্ছাসেবক বাছাইয়ের কাজও শুরু করেছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। বি এল নায়ার নামে আর একটি হাসপাতালেও ওই পরীক্ষার ছাড়পত্র মিলেছে। 

(গ্রাফের উপর হোভার বা টাচ করলে প্রত্যেক দিনের পরিসংখ্যান দেখতে পাবেন।)

অন্য দিকে খারাপ গুণমানের জন্য একটি ব্যাচ-এর রেমডেসিভিয়ার (করোনা চিকিৎসায় ব্যবহৃত ওষুধ) বাতিল করা হয়েছে বলে আজ জানিয়েছেন মহারাষ্ট্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রী রাজেশ টোপে।

(গ্রাফের উপর হোভার বা টাচ করলে প্রত্যেক দিনের পরিসংখ্যান দেখতে পাবেন।)

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন