ঝাড়খণ্ডের বিধানসভা নির্বাচনে পর্যবেক্ষক হিসেবে পশ্চিমবঙ্গ থেকে নিজেদের পছন্দমতো অফিসারদের বেছে নিয়ে সরাসরি নিয়োগপত্র দিল নির্বাচন কমিশন। আগে রাজ্য সরকারকে জানানোর প্রয়োজন অনুভব করল না। রাজ্যকে জানানো হল নিয়োগপত্র দেওয়ার পরে।

প্রশাসনিক শিবিরের পর্যবেক্ষণ, কমিশনের এই পদক্ষেপ ‘নজিরবিহীন’ এবং এর ফলে ফের কমিশনের সঙ্গে রাজ্যের সংঘাতের ক্ষেত্র তৈরি হল।

প্রথমে পর্যবেক্ষক হিসেবে ৩৪ জনের নাম প্রস্তাব করে রাজ্যের কাছে তালিকা পাঠিয়েছিল কমিশন। তা থেকে ১০ জনের নাম অনুমোদন করে রাজ্য। সেই ১০ জনের মধ্যে মাত্র দু’জনকে পর্যবেক্ষক করেছে কমিশন। সেই সঙ্গে আরও সাত জনের নামে নিয়োগপত্র দিয়েছে তারা। ওই সাতটি নাম রাজ্যের অনুমোদিত তালিকায় ছিল না বলেই আধিকারিক শিবিরের খবর। ‘‘এমন ঘটনা অতীতে ঘটেনি। সাধারণত রাজ্য যাঁদের নাম অনুমোদন করে, তাঁদেরই নিয়োগপত্র দেয় কমিশন। এই প্রথম তারা পছন্দমতো অফিসারদের সরাসরি নিয়োগপত্র দিল,’’ বলেন প্রশাসনের এক কর্তা।

আরও পড়ুন: গুজরাতে মহা, বঙ্গেও হুঙ্কার ঘূর্ণিঝড়ের

রাজ্য যদি এটা মানতে না-চায়?

এক প্রশাসনিক কর্তা জানাচ্ছেন, সাধারণ ভাবে নিয়োগপত্র পাওয়া অফিসারদের ‘রিলিজ’ দেয় রাজ্য। এ বার সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে নিয়োগপত্র পাওয়ায় ওই অফিসারেরা পর্যবেক্ষক হিসেবে কাজে যোগ দিতে একপ্রকার বাধ্য। যদি রিলিজ দেওয়া না-হয়, তা হলে সংশ্লিষ্ট অফিসারদের বিরুদ্ধে কমিশন পদক্ষেপ করবে কি না, তা নিশ্চিত ভাবে বলা যাচ্ছে না। কারণ, এমন কোনও উদাহরণ এ-পর্যন্ত নেই। ঘটনাটি যে-হেতু ‘অভিনব’, তাই এমন ক্ষেত্রে কী করা হতে পারে, সেই বিষয়ে কমিশনের কর্তারাও নিশ্চিত করে কিছু বলতে পারছেন না।