গুজরাতের সুরতে একটি বহুতলে আগুন লেগে মৃত্যু হয়েছে কমপক্ষে ১৯ জনের। যার মধ্যে অধিকাংশই ছাত্রছাত্রী।

হিরে নগরী সুরতের সারতানা এলাকায় তক্ষশীলা কমপ্লেক্স। সেই কমপ্লেক্সের তিনতলায় রয়েছে একটি কোচিং সেন্টার। শুক্রবার ওই কমপ্লেক্সেরই তিন ও চারতলায় লাগে আগুন।কিছুক্ষণের মধ্যেই সেই আগুন ছড়িয়ে পড়ে। গলগল করে বেরোতে থাকে ধোঁয়া। আতঙ্কে ওই বহুতলের উপর থেকে ঝাঁপ দেয় কোচিং সেন্টারের ছাত্রছাত্রীরা।

জানা গিয়েছে, ওই বিল্ডিংয়ের উপরের দোতলায় রয়েছে জিম, মেয়েদের নাচ শেখানোর ক্লাস ও কোচিং সেন্টার। সেই সেন্টারে মূলত অঙ্ক, ইংরেজি ও রাইটিং শেখানো হয়ে থাকে। সেই কোচিং ক্লাসের অধিকাংশ পড়ুয়াদের বয়স ৮ থেকে ১৫ বছরের মধ্যে।

ঘটনার পরই বিষয়টি নিয়ে তৎপর হন গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপাণী। তিনি গোটা বিষয়টি তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন। মৃত পড়ুয়াদের পরিবারকে চার লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথাও ঘোষণা করেছেন তিনি। সেই সঙ্গে আহতদের চিকিৎসারও নির্দেশ দিয়েছেন।

ঘটনার পরই গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রীকে ফোন করেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী জেপি নাড্ডা। তিনি দিল্লির এইমসের ট্রমা সেন্টারের ডিরেক্টরকে এই বিষয়ে সব রকম সাহায্য করার নির্দেশ দিয়েছেন। আগুন লাগার ঘটনায় টুইট করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ক্ষতিগ্রস্তদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন। মোদী ছাড়াও আগুনে মৃত ছাত্রদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছে কংগ্রেস ও আম আদমি পার্টি। এছাড়াও ওমর আবদুল্লা, অমিত শাহের মতো প্রথম সারির রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরাও সমবেদনা জানিয়েছেন।

কী ভাবে ওই বিল্ডিংয়ে আগুন লাগল তা এখনও জানা যায়নি।