• সংবাদ সংস্থা 
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

‘প্রেম-বিবাহ করব না’, জোর করে শপথ নেওয়ানো হল কলেজ ছাত্রীদের

love marriage
প্রেম বিবাহ না করার শপথ। ছবি ভিডিয়ো থেকে নেওয়া।

Advertisement

“যে কোনও রকমের প্রেমের সম্পর্ক থেকে দূরে থাকব। লাভ ম্যারেজ বা প্রেম-বিবাহ করব না।’’ প্রেম দিবসে এ রকমই অদ্ভুত অঙ্গীকার করানো হল মহারাষ্ট্রের এক মহিলা কলেজের ছাত্রীদের দিয়ে। সেই ঘটনার ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ উগরে দিচ্ছেন নেটাগরিকদের একাংশ। 

মহারাষ্ট্রের চান্দুর রেলস্টেশনের কাছে রয়েছে মহিলা আর্টস অ্যান্ড কমার্স কলেজ। সেখানকার ছাত্রীদেরই শুক্রবার জোর করে প্রেম না করার জন্য শপথ নেওয়ানো হয়েছে। জানা গিয়েছে, ন্যাশনাল সার্ভিস স্কিম (এনএসএস)-এর কর্মসূচীর অংশ হিসাবে এই অঙ্গীকার করানো হয়েছে।  

অঙ্গীকারের সেই ভিডিয়োতে ছাত্রীদের বলানো হচ্ছে, ‘‘আমি অঙ্গীকার করছি, বাবা-মায়ের উপর আমার সম্পূর্ণ বিশ্বাস রয়েছে। তাই আমার সামনে ঘটা বিভিন্ন ঘটনা দেখে আমি বলছি, আমি কোনওদিন প্রেম বা প্রেম-বিবাহ করব না। আমি এ রকম কারোকে বিয়ে করব না যে পণ নিতে চায়। আমার যেখানেই বিয়ে হোক, ভবিষ্যতে আমিও কোনওদিন পণ নেব না বা দেব না। এটা আমার সামাজিক কর্তব্য।’’  দেখুন সেই ভিডিয়ো—

কলেজ কর্তৃপক্ষের তরফে জানানো হয়েছে, জোর করেই ছাত্রীদের দিয়ে এই শপথ নেওয়ানো হয়েছে। যদিও ছাত্রীদের একাংশ আবার এই প্রেম-বিবাহ না করার পক্ষেই সহমত পোষণ করেছেন। ঋতিকা রঙ্গারি নামের ওই কলেজের এক ছাত্রী বলেছেন, ‘‘ভালবাসার পাত্রকে ভাল ও  স্বনির্ভর হতে হবে। তাই আমি মনে করি, প্রেমের ব্যাপারে সব সময় পরিবারের পরামর্শ নেওয়া উচিত।’’ অন্য এক ছাত্রী বলেছেন, ‘‘আমি এই শপথ নিয়েছি। আমার বাবা-মায়ের উপর পূর্ণ আস্থা রয়েছে। আমি কোনওদিন প্রেম বা প্রেম-বিবাহ করব না।’’  

আরও পড়ুন: গুজরাতের কলেজে অন্তর্বাস খুলিয়ে হেনস্থা ছাত্রীদের

মহারাষ্ট্রের মহিলা ও শিশু উন্নয়ন মন্ত্রী যশোমতী ঠাকুর বলেছেন, ‘‘প্রত্যেক ছাত্রীর এই শপথ নেওয়া উচিত। ওয়ার্ধার মতো ঘটনা থেকে সতর্ক হতে কলেজগুলির উচিত এই প্রত্যেককে এই শপথ গ্রহণ করানো।’’ গত ৩ ফেব্রুয়ারি ওয়ার্ধার হিঙ্গনঘাটে ২৪ বছরের এক কলেজ শিক্ষিকার গায়ে আগুন ধরিয়ে দিয়েছিল ব্যর্থ প্রেমিক। পরে নাগপুরের হাসপাতালে মৃত্যু হয় ওই যুবতীর।  

আরও পড়ুন: রণথম্বোর পার্কে দুই বাঘের মিলনের দৃশ্য ধরা পড়ল ক্যামেরায়

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন