সাইকেল চালিয়ে স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথেই তাকে ঘিরে ধরেছিল একদল দুষ্কৃতী। তার পর তাঁকে লক্ষ্য করে কটূক্তি ও অশালীন মন্তব্য। সেই টিটকিরি, বিদ্রুপের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছিল একাদশ শ্রেণির ছাত্রীটি। প্রথমে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে গেলেও পরে ফিরে আসে দুষ্কৃতীরা। ওই ছাত্রীর মাথার উপর দিয়ে চালিয়ে দেয় বাইক। হাসপাতালে কয়েকদিনের লড়াইয়ের পর মৃত্যু হল সেই প্রতিবাদীর। অভিযোগ, এই নৃশংস ঘটনার নিষ্ক্রিয় দর্শক হয়ে রইল পুলিশ।

উত্তরপ্রদেশের সুলতানপুরের ঘটনা। ৮ অগস্ট স্কুল থেকে ফেরার পথে ওই ছাত্রীকে নানা ভাবে উত্ত্যক্ত করতে থাকে তিনজন দুষ্কৃতী। মেয়েটি প্রতিবাদ করে এই ঘটনার। এলাকাবাসীরাও দুষ্কৃতীদের বাধা দেন। সেই মুহূর্তে ওই এলাকা ছেড়ে দিলেও কিছুক্ষণেই ফের ফিরে আসে বাইকবাজরা। মেয়েটিকে মাটিতে ফেলে মাথার ওপর দিয়ে মোটর সাইকেল চালিয়ে দেয় তাঁরা। স্থানীয় মানুষ মেয়েটিকে উদ্ধার করলেও ওই বাইকবাজদের ধরতে পারেনি।
এলাকাবাসীর অভিযোগ, এই ঘটনার অভিযোগ জানাতে লাম্ভুয়া থানায় গেলে থানা তাদের ফিরিয়ে দেয়।


আরও পড়ুন: স্তব্ধ উপত্যকার খবর আনছে চিঠি
আরও পড়ুন: রাজনাথের পরমাণু মন্তব্যে জলঘোলা



নির্যাতিতার দাদু সংবাদমাধ্যমকে জানান, পুলিশ এই বিষয়েকোনও অভিযোগ না নেওয়ায় লখনউ কেজিএমইউ হাসপাতালও ফিরিয়ে দেয় তাদের। বাধ্য হয়ে তাকে বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। মাথার খুলি এবং শরীরের অসংখ্য হাড় ভেঙে গিয়েছিল ওই কিশোরীর। চারদিন লড়াইয়ের পরে ওই বেসরকারি হাসপাতালেই মেয়েটি মারা যায়।অভিযুক্তরা এখনও অধরাই।