হিন্দু সংস্কৃতির সৌজন্যে ভারতীয় মুসলিমরা বিশ্বের অন্যান্য জায়গার তুলনায় ভাল আছেন। শনিবার ওড়িশার এক সভা থেকে এমন দাবিই করলেন রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের (আরএসএস) প্রধান মোহন ভাগবত।

বিভিন্ন রাজ্যে ঘুরে মোহন ভাগবত বিশিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে বৈঠক করছেন। শনিবার ওড়িশায় আয়োজিত এমনই একটি সভায় তাঁর বক্তব্য, ‘হিন্দু’ কোন ধর্ম বা ভাষা নয়। রাষ্ট্রের নামের সঙ্গেও এর কোনও সম্পর্ক নেই। হিন্দু হল একটি সংস্কৃতি। গোটা দেশের সমস্ত বাসিন্দাই এই সংস্কৃতির অংশ।

কোন যুক্তিতে ভারতীয় মুসলিমদের ‘সুখী’ বলছেন সঙ্ঘপ্রধান? তাঁর কথায়, ‘‘অতীতে ভবঘুরে ইহুদিদের জায়গা দিয়েছে ভারত। ঠাঁই হয়েছে পার্সিদের। এর কারণ ওই হিন্দু সংস্কৃতি। ঠিক একই ভাবে হিন্দু ভাবাদর্শের সৌজন্যেই ভারতে অন্যান্য জায়গার তুলনায় ভাল রয়েছেন মুসলমানরা।’’

আরও পড়ুন: শুধু সাইকোপ্যাথই নন, সম্পত্তি দখলের লক্ষ্যেই ছ’টি খুন করেছিল জলি, তদন্তে নেমে বলছে পুলিশ
আরও পড়ুন:চারদিনেই শেষ পুণে টেস্ট, ইনিংস ও ১৩৭ রানে জিতল ভারত, পকেটে সিরিজও

বিজয়া দশমী উপলক্ষে আয়োজিত আরএসএস-এর এক সভায় মঙ্গলবার নাগপুরে মোহন ভাগবত মন্তব্য করেছিলেন, ‘ভারতবর্ষ হিন্দুরাষ্ট্র’।  দেশ জুড়ে চলতে থাকা গণপিটুনির বিষয়টিকে পাশ্চাত্যের ধারণা বলেও ব্যখ্যা করেন তিনি। তার কথায়, ভারতের ঘটনাপ্রবাহকে ‘লিঞ্চিং’ বলে উল্লেখ করলে দেশের এবং হিন্দু সমাজের ‘অবমাননা’ করা হয়! তাই নিয়ে জলঘোলা চলছিলই। এই আবহেই শনিবার সঙ্ঘপ্রধানের দাবি, ভারতীয় মুসলমানরা সবচেয়ে সুখী। তিনি এদিন বলেন, ‘‘কারও প্রতি সঙ্ঘের কোনও বিদ্বেষ নেই। একটি সুস্থ সমাজ গড়ে তোলার জন্যে আমাদের এগিয়ে আসতে হবে’’