বাবা চেয়েছিলেন, দশম শ্রেণির ফাইনাল পরীক্ষায় সবক’টি বিষয়েই ‘এ প্লাস’ গ্রেড নিয়ে আসুক ছেলে। তবে সে চাহিদা মেটাতে পারেনি কিশোর। তাতেই ক্ষেপে ওঠেন বাবা। হাতের সামনে কোদাল পেয়ে তা দিয়েই পেটাতে থাকেন ছেলেকে। গুরুতর আহত ছেলে বাবার বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ জানায়। ছেলের সঙ্গে ছিলেন তাঁর মা-ও। কেরলের ওই ছাত্রের অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে মঙ্গলবার গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, ধৃত ব্যক্তির নাম সাবু। তিরুঅনন্তপুরমের কাছে কিলিমানুর শহরের বাসিন্দা সাবু পেশায় ঠিকা মজুর। অভিযোগ, ছেলের পরীক্ষার রেজাল্টে একেবারেই সন্তুষ্ট ছিলেন না তিনি। সে কারণেই ছেলেকে বেধড়ক মারেন।

সোমবার কেরলের মাধ্যমিক সমতুল পরীক্ষা সেকেন্ডারি স্কুল লিভিং সার্টিফিকেট (এসএসএলসি)-এর রেজাল্ট প্রকাশিত হয়। ৪৩ বছরের সাবু চেয়েছিলেন, তাঁর ছেলে এসএসএলসি-র দশটির মধ্যে দশটি বিষয়েই ‘এ প্লাস’ গ্রেড নিয়ে আসুক। তবে বাস্তবে তা হয়নি। দশটির বদলে ছ’টিতে ‘এ প্লাস’ গ্রেড পেয়েছিল কিশোর। পুলিশের কাছে ওই কিশোরের অভিযোগ, কাজকর্ম সেরে সে দিন সন্ধ্যাবেলায় বাড়ি ফিরে তার পরীক্ষার রেজাল্ট দেখেই তেলেবেগুনে জ্বলে ওঠেন সাবু। এর পর কোদাল দিয়ে পেটাতে থাকেন তাকে। ওই ঘটনার পর সটান থানায় চলে যায় সে। সঙ্গে ছিলেন তার মা। মঙ্গলবার সাবুকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, ছেলেকে মারধরের অভিযোগে আদালতে তোলা হলে সাবুর ১৪ দিনের জেল হেফাজত হয়েছে।

আরও পডুন: মোদীর খেল্ খতম, বলে দিলেন রাহুল

আরও পডুন: নজর ঘোরাতেই কি রাজীবকে ধরে টান দিচ্ছেন মোদী!
 

(দেশজোড়া ঘটনার বাছাই করা সেরাবাংলা খবরপেতে পড়ুন আমাদেরদেশবিভাগ।)