রাজীবের অপমানে রক্ত দিয়ে কমিশনকে চিঠি দিলেন অমেঠির যুবক
গাঁধী পরিবারের সঙ্গে অমেঠির সম্পর্ক বহু পুরনো। তাই মৃত্যুর প্রায় তিন দশক পর রাজীব গাঁধীকে নিয়ে এই টানাটানিতে মানসিক ভাবে কতটা আঘাত পেয়েছেন , তা বোঝাতেই সম্প্রতি নিজের রক্ত  দিয়ে  নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দেন অমেঠির শাহগড়ের বাসিন্দা  মনোজ কাশ্যপ।
rajiv gandhi

রাজীব গাঁধীকে নিয়ে মোদীর মন্তব্যে বিতর্ক। —ফাইল চিত্র।

প্রয়াত রাজীব গাঁধী সম্পর্কে আপত্তিকর মন্তব্য করেছেন নরেন্দ্র মোদী, এই অভিযোগে নিজের রক্ত দিয়ে নির্বাচন কমিশনকে চিঠি লিখলেন এক ব্যক্তি। নির্বাচন কমিশনের কাছে তাঁর আর্জি, ‘‘রাজীব গাঁধীকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করে সাধারণ মানুষের আবেগে আঘাত করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।  তাঁকে সংযত হতে নির্দেশ দেওয়া হোক।’’

নির্বাচনী প্রচারে বেরিয়ে দেশের প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী রাজীব গাঁধীকে ‘ভ্রষ্টাচারী নম্বর ওয়ান’ বলে কটাক্ষ করেন নরেন্দ্র মোদী। তা নিয়ে বিরোধীরা সমালোচনায় সরব হলে রাজীব গাঁধীর মান-সম্মানকে কেন্দ্র করে কংগ্রেসকে নির্বাচন লড়ার চ্যালেঞ্জও ছুড়ে দেন তিনি।

গাঁধী পরিবারের সঙ্গে অমেঠির সম্পর্ক বহু পুরনো। তাই মৃত্যুর প্রায় তিন দশক পর রাজীব গাঁধীকে নিয়ে এই টানাটানিতে মানসিক ভাবে কতটা আঘাত পেয়েছেন , তা বোঝাতেই সম্প্রতি নিজের রক্ত  দিয়ে  নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দেন অমেঠির শাহগড়ের বাসিন্দা  মনোজ কাশ্যপ। তাতে তিনি বলেন, ‘‘১৮ বছর বয়সে ভোটদানের অধিকার স্থির করে দিয়েছিলেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী  রাজীব গাঁধী-ই।  পঞ্চায়েত শাসন ব্যবস্থাও  তাঁরই প্রচলিত। দেশে কম্পিউটার বিপ্লবও তিনি-ই ঘটিয়েছিলেন।’’

এই চিঠি-ই ছড়িয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

আরও পড়ুন: ‘চৌকিদার’ মামলায় সুপ্রিম কোর্টের কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইলেন রাহুল গাঁধী​

১৯৯১ সালে জঙ্গি হামলায় রাজীব গাঁধীর মৃত্যুর পর এক সময় তাঁকে নিয়ে মুখ খুলেছিলেন অটলবিহারী বাজপেয়ীও। ১৯৮৫ সালে কিডনির সমস্যায় ভুগলে আমেরিকায় বাজপেয়ীর চিকিত্সার ব্যবস্থা করে দেন রাজীব গাঁধী। সেইসময় বাজপেয়ী বলেন, ‘‘রাজীব গাঁধীর জন্যই বেঁচে আছি আমি।’’

কমিশনকে লেখা চিঠিতে বাজপেয়ীর সেই মন্তব্যও  উল্লেখ করেন মনোজ কাশ্যপ। সেই সঙ্গে জানান, ‘‘রাজীব গাঁধীর খুনিদের  অমেঠির মানুষ যে চোখে দেখেন, তাঁকে যাঁরা অপমান করেন, তাঁদের সম্পর্কেও একই মনোভাব পোষণ করি আমরা। শুধু অমেঠি নয়, দেশবাসীর অন্তরে রয়েছেন রাজীব গাঁধী। ভবিষ্যতে তাঁকে নিয়ে কেউ যাতে এই ধরনের টিপ্পনি না করেন, সেই মতো নির্দেশ দিতে হবে কমিশনকে।’’

আরও পড়ুন: ‘গণতন্ত্রের থাপ্পড়’ মন্তব্যের নিন্দায় সুষমা, সব সীমা লঙ্ঘন করেছেন মমতা, হুঁশিয়ারি বিদেশমন্ত্রীর​

রাজীব গাঁধীর অপমানে আবেগতাড়িত  হয়েই চিঠিটি লিখেছেন তিনি। তার কোনও  রাজনৈতিক মর্মার্থ যাতে বের না করা হয়, তাও চিঠিতে সাফ জানিয়ে দেন মনোজ কাশ্যপ। সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর সেই চিঠি অনেকেই শেয়ার করেছেন। তবে এ নিয়ে বিজেপির তরফে এখনও পর্যন্ত কোনও মন্তব্য করা হয়নি। রাজীব গাঁধীকে নিয়ে মন্তব্য করায় মোদীর বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে নালিশ জানিয়েছিল কংগ্রেস। কিন্তু মোদীকে ক্লিনচিট দিয়েছে কমিশন।

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত