দেশে যুদ্ধ লাগিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বিদেশে শান্তি পুরস্কার নিচ্ছেন বলে সোমবার মন্তব্য করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দিন তিনেক আগে দক্ষিণ কোরিয়ার সোলে শান্তি পুরস্কার নিতে গিয়েছিলেন মোদী। সেই ঘটনার কথা উল্লেখ করে নজরুল মঞ্চে দলীয় বৈঠকে মোদীকে কটাক্ষ করে তৃণমূল নেত্রী মমতা বলেন, ‘‘দেশে ছায়া-যুদ্ধ চালাচ্ছেন। দেশে যুদ্ধ লাগিয়ে উনি শান্তি পুরস্কার নিচ্ছেন! ভাবখানা এমন যেন শান্তির সুদর্শন চক্র ঘোরাচ্ছেন! এই সব পুরস্কার ব্যবস্থা করে পাওয়া যায়।’’

পুলওয়ামা-কাণ্ডের আগাম খবর কেন্দ্রের কাছে থাকা সত্ত্বেও যে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি, সেই অভিযোগ ফের তুলে মোদীকে আক্রমণ করেছেন মমতা। একই সঙ্গে ভোটের মুখে ‘রক্ত নিয়ে রাজনীতি’ করতেই প্রধানমন্ত্রী বিপজ্জনক ভাবে জওয়ানদের মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিয়েছিলেন বলে তিনি অভিযোগ করলেন তিনি। মমতার অভিযোগ, ‘‘বায়ুপথে না নিয়ে, রাস্তায় নিরাপত্তা নিশ্ছিদ্র না করে কেন জওয়ানদের ওই দিন মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিয়েছিলেন? ভোটের রাজনীতি করবেন বলে?’’ কেন্দ্র সব জেনেও জওয়ানদের নিরাপত্তায় যে কোনও ব্যবস্থা নেয়নি, তার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ফের দোষারোপ করে মমতার সাফ বক্তব্য, ‘‘সবাইকে বোকা বানিয়ে রাখবেন ভেবেছেন? সার্জিকাল স্ট্রাইক, যুদ্ধ যুদ্ধ খেলা খেলছেন?’’

নিহত ৪০ জন জওয়ানদের রক্ত নিয়ে রাজনীতি দেশ বরদাস্ত করবে না বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন মমতা। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের পাল্টা অভিযোগ, ‘‘ভারতে এর আগে বহুবার গোয়েন্দা-রিপোর্ট থাকা সত্ত্বেও জঙ্গি-আক্রমণ হয়েছে। ঘটনাটা দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্যি। তদন্ত হচ্ছে। তবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই ঘটনা নিয়ে রাজনীতি করছেন।’’

আরও পড়ুন: ‘দেশে যুদ্ধ লাগিয়ে উনি শান্তি পুরস্কার নিচ্ছেন!’ মোদীকে কটাক্ষ মমতার

 জওয়ানদের উপর হামলার সময়ে প্রধানমন্ত্রী শ্যুটিং করছিলেন বলে কংগ্রেস কয়েক দিন আগেই ছবি প্রকাশ্যে এনেছে। সেই একই ইঙ্গিত দিয়ে মমতাও এ দিন প্রশ্ন করেছেন, ‘‘আপনিও তো আগেই জানতেন এই ঘটনা ঘটবে। তা হলে কেন ঘটল ওই ঘটনা? ঘটনার সময়ে কোথায় ছিলেন?’’