• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

দিল্লির মিউজিয়ামে কোটিপতি চোর! ধরিয়ে দিল সিসিটিভি

Uday Ratra
চুরির অভিযোগে পুলিশের জালে ধনকুবের উদয় রাত্রা। ছবি: টুইটারের সৌজন্যে।

সপ্তাহ তিনেক আগে মিউজিয়াম থেকে গায়েব হয়ে গিয়েছিল অত্যন্ত দামি পাথরের একটি রেপ্লিকা।তন্ন তন্ন করে খুঁজেও তার হদিশ মেলেনি। শেষমেশ পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছিলেন মিউজিয়াম কর্তৃপক্ষ। পুলিশ এসে চোর খুঁজতে গিয়ে সিসিটিভি ফুটেজ দেখে তো অবাক! কোনও ছিঁচকে চোর নয়। এমন কীর্তি করেছেন গুরুগ্রামের এক ধনকুবের। শুক্রবার গুরুগ্রামের বাড়ি থেকে তাঁকে গ্রেফতার করেছে দিল্লি পুলিশ।

নয়াদিল্লি ন্যাশনাল মিউজিয়ামে ১৫ লক্ষ বছরের পুরনো ‘ওল্ডুভাই হ্যান্ডঅ্যাক্স’ নামের দামি পাথরের ওই প্রতিরূপটি রাখা ছিল। গত ২৪ জুন থেকেই তার খোঁজ মিলছিল না। প্রথম দিকে মিউজিয়ামেরকর্মীরাই খোঁজ শুরু করে। কিন্তু, তাদের সব চেষ্টাই বিফলে যায়। অবশেষে গত কাল পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন মিউজিয়ামের শীর্ষকর্তারা।

নয়াদিল্লির ডিসিপি মধুর বর্মা জানিয়েছেন, তদন্ত নেমে মিউজিয়ামের ভিতরের সবক’টি সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ দেখতে শুরু করেন তাঁরা। যেখানে ওই পাথরটি রাখা ছিল সেখানকার সিসিটিভি-তেই ধরা পড়ে ‘চোরে’র কীর্তি। এর পর সেই ‘চোরে’র খোঁজে নেমে পড়ে পুলিশ। কয়েক ঘণ্টার মধ্যে তাঁর নামধামও বার করে ফেলে পুলিশ। মধুর বলেন, “ওই চোর আসলে আর কেউ নন, গুরুগ্রামের ধনকুবের ৫৩ বছরের উদয় রাত্রা।”

আরও পড়ুন
এ বার বিধান দেবেন রূপান্তরকামী বিধান

যে সিসিটিভি ফুটেজ দেখে উদয়ের কীর্তি ফাঁস হয়ে গিয়েছে, তা টুইট করেছেন মধুর। তাতে দেখা যাচ্ছে, পাথরটি নিয়ে খুব খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে দেখছেন উদয়। তার পর এদিক ওদিক দেখে তা নিজের পকেটস্থ করে খুব ধীরেসুস্থে হেঁটে চলে যাচ্ছেন।

পুলিশ জানিয়েছে,উদয় রাত্রার পরিচয় জানার পরই তাঁর বাড়িতে হানা দেওয়া হয়। কিন্তু, সেখানেও সহজে হাতে আসেননি তিনি। পুলিশকে প্রথমে নিজের বাড়িতে ঢুকতেই দেননি তিনি। উল্টে সাফ বলে দেন, “পরের দিন সকালে আসুন।” পুলিশকর্মীরা জানিয়েছেন, উদয়ের সঙ্গে কথা বলার সময় আট-দশটি কুকুর ক্রমাগত চিৎকার শুরু করে দেয়। কিন্তু পুলিশকর্মীরা দমবার পাত্র নন। সেখান থেকে ফিরে না গিয়ে উদয়ের বাড়ির আশপাশে লুকিয়ে পড়েন তাঁরা। এর পর গভীর রাতে দেখা যায়, বাড়ি থেকে  চুপিসারে বাইরে চলে যাচ্ছেন উদয়। সে সময়ই তাঁকে পাকড়াও করে ফেলে পুলিশ। উদয়কে তল্লাশি করেই উদ্ধার হয় সেই পাথরের রেপ্লিকাটিও। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়।

আরও পড়ুন
সন্ত্রাস ছেড়ে সঙ্গীতে, নজির কাশ্মীরি গায়কের 

তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পেরেছে, এর আগেও পুলিশি ঝামেলায় জড়িয়েছেন উদয়। ২০০৬-এ তাঁকে ব্রিটেন থেকে ভারতে প্রত্যর্পণ করা হয়। এর বছর দশেক পরে দিল্লির সরোজিনী নগরের একটি পাঁচতারা হোটেলে ব্লেড নিয়ে ঢোকার চেষ্টা করার অভিযোগে তাঁকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ঘটনাচক্রে ওই হোটেলে সে সময় ছিলেন তৎকালীন মার্কিন বিদেশসচিব জন কেরি। সে বছরই একটি দোকান থেকে বিদেশি মদ চুরির দায়ে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়। এ সব ঘটনা জানার পর তদন্তকারীদের অনুমান, উদয় ক্লেপটোম্যানিয়াক! চুরি করাটা তাঁর অভ্যাস। যদিও এ নিয়ে এখনও কোনও প্রমাণ সংগ্রহ করতে পারেনি পুলিশ।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন