নির্বাচনী প্রচারে বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য বিপাকে পড়েছিলেন রাহুল গাঁধী। তাঁর বিরুদ্ধে মানহানির মামলা দায়ের করেছিলেন বিহারের উপ মুখ্যমন্ত্রী সুশীলকুমার মোদী। শনিবার সেই মামলায় রাহুল গাঁধীকে জামিন দিল পটনার দেওয়ানি আদালত।

মামলার শুনানি চলাকালীন এ দিন আদালতে হাজির ছিলেন রাহুল। সেখানে ১০ হাজার টাকার বন্ডে জামিন পান তিনি। আদালত থেকে বেরিয়ে সংবাদমাধ্যমে রাহুল বলেন, ‘‘আরএসএস এবং নরেন্দ্র মোদীর নীতির বিরুদ্ধে মুখ খুললেই আজকাল আক্রান্ত হতে হয়, আদালতে মামলা দায়ের হয়। সংবিধান রক্ষার লড়াই লড়ছি আমি। এই লড়াই দরিদ্র এবং কৃষকদের পাশে দাঁড়ানোর।’’

নির্বাচনে ব্যর্থতার দায় নিয়ে সম্প্রতি কংগ্রেস সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন রাহুল। তবে নির্বাচনী প্রচার চলাকালীন কংগ্রেসের দায়িত্বে ছিলেন তিনি। রাফাল অস্ত্রে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ঘায়েল করতে সেই সময় ‘চৌকিদার চোর হ্যায়’ স্লোগান তুলেছিলেন তিনি। কর্নাটকের কোলার জেলায় একটি জনসভায় নাম না করে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আর্থিক দুর্নীতি মামলায় দেশত্যাগী ললিত ও নীরব মোদীর তুলনা টেনে বলেন, ‘‘ললিত মোদী হোন বা নীরব মোদী, সব চোরের পদবী মোদী হয় কেন?’’ এই মন্তব্যের জন্যই রাহুলের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেন সুশীলকুমার মোদী।

আরও পড়ুন: কুমারস্বামী সরকার সঙ্কটে, ইস্তফা ৮ বিধায়কের, বিধান সৌধে অপেক্ষায় আরও ৫

আরও পড়ুন: গুমোট কাটিয়ে ঝেঁপে বৃষ্টি আসছে কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গে, সৌজন্যে ঘূর্ণাবর্ত

এর আগে, বৃহস্পতিবার মহারাষ্ট্রের মাজগাঁও-সিউড়ি আদালতেও আরএসএস-এর দায়ের করা মানহানির মামলায় জামিন পান রাহুল গাঁধী এবং সিপিএম-এর সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি। সাংবাদিক গৌরী লঙ্কেশ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে সঙ্ঘের নাম জোড়ায় তাঁদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছিল। ১৫ হাজার টাকার বন্ডে তাঁদের জামিন দেয় আদালত। তবে মামলার শুনানি চলবে।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ।