তেলেঙ্গানার নালগোণ্ডা জেলার এক গ্রামে মঙ্গলবার বিষ প্রয়োগ করে মারা হল প্রায় ৫০টি কুকুরকে। বুধবার এই ঘটনা সামনে আসে। অভিযোগ, কুকুরগুলিকে মারার নির্দেশ দিয়েছিলেন গ্রামের শরপঞ্চ। কুকুরগুলির মৃত দেহ একটি ট্রাকে করে নিয়ে গিয়ে নাক্কালা গান্ডি জল প্রকল্পের কাছে ফেলে আসা হয়।

কুকুর হত্যার এই ঘটনা জানাজানি হওয়ার পরই নালগোন্ডা জেলা শাসক তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। জেলা পঞ্চায়েত দফতরের অফিসার যাদব বলেছেন, বেশ কিছুদিন ধরেই স্থানীয়রা কুকুরের কারণে ভয় পাওয়ার কথা জানাচ্ছিলেন। কয়েক জনকে কুকুরগুলি আক্রমণ করে বলে অভিযোগ। বার বার এই অভিযোগ পাওয়ার পরই শরপঞ্চ  পাপা নায়েক কুকুরগুলিকে বিষ প্রয়োগ করে হত্যার নির্দেশ দেন।

জেলা শাসক জানিয়েছেন, আইন মেনেই অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ হবে। প্রশাসনিক কর্তারা ঘটনার তদন্ত রিপোর্ট আসার অপেক্ষা করছেন। তারপই যে বা যাঁরা বিষ দিয়ে কুকুর মারায় অভিযুক্ত তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।

হায়দরাবাদে কুকুর মারার আর একটি ঘটনায় পুরসভার ৪ আধিকারিককে সাসপেন্ড করা হয়েছে। তাঁদের বিরুদ্ধে ৭৮টি কুকুরকে বিষ প্রয়োগ করে মারার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনায় এফআইআরও দায়ের হয়েছে। এটি ১৯ জুনের ঘটনা বলে জানা গিয়েছে। বিষয়টি নিয়ে ব্যপক হইচই করেন বিজেপি সাংসদ ও পশুপ্রেমী মানেকা গাঁধী। কুকুরগুলির ময়না তদন্তের পরই জানা যায় বিষ প্রযোগ করে তাদের মারা হয়েছিল।

আরও পড়ুন : রেলে প্রায় ৩ লক্ষ শূন্যপদে নিয়োগ প্রক্রিয়া চলছে, জানালেন মন্ত্রী

আরও পড়ুন : শরীর ঢেকে বিমানে উঠুন, মহিলা যাত্রীকে বললেন কর্মী!

এ ক্ষেত্রে নাকি কুকুরগুলিকে হত্যা করার বিরুদ্ধে বাধা দিয়েছিলেন স্থানীয়রা। কিন্তু সেই বাধা উপেক্ষা করেই পুরসভার কর্মীরা কুকুরগুলিকে মারার জন্য বিষ প্রয়োগ করে।