×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

ভেলভেট টাচ

মধুমন্তী পৈত চৌধুরী
৩০ জানুয়ারি ২০২১ ০৪:০৪

রেড কার্পেট, বিয়েবাড়ি, পার্টি... ভেলভেটের ঔজ্জ্বল্য আপনার দিকে নজর ঘোরাবেই। কারণ এই ফ্যাব্রিকের মধ্যে রয়েছে আভিজাত্য এবং সৌন্দর্য। শীতের মরসুমে, সাজে এক টুকরো ভেলভেটের ছোঁয়ায় আপনি হয়ে উঠবেন অনুষ্ঠানের মধ্যমণি। তার জন্য ভেলভেটের পোশাকই পরতে হবে, এমন নয়। জরুরি, ভেলভেট টাচ। যে কোনও মেটিরিয়ালের পোশাকের সঙ্গে ভেলভেটের স্লিং বা ক্লাচ, লেদার জ্যাকেটের সঙ্গে ভেলভেট বুটস হলেও গ্ল্যাম কোশেন্ট বাড়বে।

ট্রেন্ডে ভেলভেট

Advertisement

বিয়েবাড়ির মরসুমে ভেলভেটের ব্লাউজ়, শাল হামেশাই নজর কাড়ছে। ডিজ়াইনার দেব আর নীল জুটির নীল এই প্রসঙ্গে বললেন, ‘‘আগে এক ধরনের ভেলভেটই পাওয়া যেত। তার একটু অতিরিক্ত শাইন থাকত। কিন্তু সে
দিন আর নেই। অনেক ধরনের ভেলভেট মেটিরিয়াল পাওয়া যায় এখন। মূলত উত্তর ভারতীয়দের পোশাকেই আগে ভেলভেটের প্রাধান্য ছিল।’’

ডিজ়াইনার অভিষেক দত্তের মতে, ‘‘অতিমারির বছরে সকলেই রিসাইকল করার দিকে ঝুঁকেছেন। তাই এ বার শীতে পুরনো ভেলভেট পোশাক একটু অন্য রকম ভাবে টিম আপ করেছেন অনেকে। ভেলভেট টাচ কিন্তু এখন অনেক ভাবে দেখা যায়। যে কোনও মেটিরিয়ালের পোশাকে ভেলভেটের কলার, স্লিভ, বর্ডার এখন ট্রেন্ডে রয়েছে।’’



ভেলভেটের রকমফের

মূলত পাঁচ ধরনের ভেলভেটের কথা বললেন ডিজ়াইনাররা—

• সাধারণ ভেলভেট: একটু মোটা ধরনের হয়। বেশ গরম, তাই খুব শীত ছাড়া এটি পরা যায় না।

• কটন ভেলভেট: এই ধরনের ভেলভেটের পোশাক যে কোনও মরসুমে পরা যায়।

• ইমপোর্টেড পলিয়েস্টার ভেলভেট: পলিয়েস্টার দিয়ে তৈরি এই ভেলভেট। এর একটি ভাগ মাইক্রো ভেলভেট। এই ফ্যাব্রিকের মান বেশ উন্নত হয়। সাধারণ ভেলভেটের চেয়ে এর থ্রি ডি সারফেস (একটু উঁচু হয়ে থাকা) অনেকটা কম।

সিল্ক ভেলভেট: এটি হচ্ছে সবচেয়ে দামি ও উৎকৃষ্ট মানের।

স্ট্রেচ ভেলভেট: থাই স্লিট গাউন, ড্রেস, ট্রাউজ়ার্স, স্লিপওয়্যার ইত্যাদি তৈরিতে এখন ব্যবহার করা হচ্ছে স্ট্রেচ ভেলভেট।

ভেলভেটের নির্বাচন

ডিজ়াইনাররা এই বিভাজনগুলি সম্পর্কে অবহিত থাকলেও সাধারণ মানুষ কী ভাবে বাছাই করবেন? অভিষেক বললেন, ‘‘স্ট্রেচ ভেলভেটের ফিটিং খুব ভাল হয়। তাই ট্রাউজ়ার্স, গাউন, বডি ফিটিং ড্রেসের জন্য স্ট্রেচ ভেলভেট বাছা উচিত।’’ তবে শাড়ির জন্য স্ট্রেচ ভেলভেট আদর্শ নয়। কারণ আঁচল-সহ শাড়ির ভার ক্রমশ ঝুলে পড়বে। সে ক্ষেত্রে সিল্ক সবচেয়ে ভাল। তবে বাজেটের কথা মাথায় রেখে পলিয়েস্টার ভেলভেটও চলতে পারে। ভেলভেটের ব্লাউজ় বানাতে হলে স্ট্রেচ ভেলভেট নিতে হবে। কারণ সেই জুতসই ফিটিং। যাঁদের চেহারা ভারী, তাঁদের ভেলভেট পরলে আরও ভারী দেখানোর সম্ভাবনা থাকে। সেই কারণে তাঁরা যদি ফ্যাব্রিক হিসেবে মাইক্রো ভেলভেট বাছেন, তা হলে ভাল দেখাবে।



রঙে-রূপে ভেলভেট

শুধু মহিলাদের নয়, পুরুষদের পোশাকেও ভেলভেটের চাহিদা ইদানীং বেড়েছে। বন্ধগলা, শেরওয়ানিতে ভেলভেট খুব ভাল লাগে। নীলের কথায়, ‘‘আসলে ভেলভেটের উপরে জ়ারদৌসি কাজ খুব ভাল বসে। দেখতেও সুন্দর লাগে।’’ পুরুষদের অঙ্গরাখার সঙ্গে ভেলভেটের শাল ভাল জুটি।

উজ্জ্বল ও গাঢ় রঙের ভেলভেট দেখতে ভাল লাগে। ওয়াইন, এমারেল্ড গ্রিন, রয়্যাল মিডনাইট ব্লু, ব্ল্যাক...এগুলোই ভেলভেটের প্রচলিত রং। তবে ইদানীং ফ্লেশ পিঙ্ক, পাউডার ব্লু, ইঙ্ক ব্লু, মেহগনি, ক্যারামেল... এই ধরনের রঙের চাহিদা বাড়ছে।

ভেলভেটের সৌন্দর্য খুলবে যথাযথ নির্বাচনে। ফ্যাব্রিকটি ভারী ও গর্জাস, তাই সাজ মিনিমাল হওয়া প্রয়োজন।

Advertisement