সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

চিত্র সংবাদ

স্মরণে মিসাইল ম্যান (১৯৩১-২০১৫)

শেয়ার করুন
১০ 2
১৯৩১ সালে তামিলনাড়ুর রামেশ্বরমে এক দরিদ্র মত্স্যজীবী পরিবারে জন্ম আবুল ফকির জয়নুল আবদিন আবদুল কালামের। দেশের একাদশতম রাষ্ট্রপতি। তিনিই দেশের একমাত্র বৈজ্ঞানিক যিনি রাষ্ট্রপতির পদ অলঙ্কৃত করেছেন।
১০ 3
২০১৪। নোবেল শান্তি পুরস্কারজয়ী কৈলাস সত্যার্থীর সঙ্গে। ১৯৮১ সালে তাঁকে পদ্মভূষণ এবং ১৯৯০ সালে পদ্মবিভূষণ সম্মানে ভূষিত করা হয়। ১৯৯৭ সালে দেশের সর্বোচ্চ অসামরিক সম্মান ভারতরত্ন দেওয়া হয় তাঁকে।
১০ 4
প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর সঙ্গে নয়াদিল্লিতে ২০০২। স্বপ্ন ছিল যুদ্ধবিমানের ফাইটার পাইলট হওয়ার। সে স্বপ্ন সফল না হলেও, পরবর্তীকালে তিনিই হন ভারতের মিসাইল ম্যান। তিনি ছিলেন ১৯৯৮ সালে পোখরান পরমাণু বিস্ফোরণের অন্যতম কারিগর।
১০ 5
সনিয়া গাঁধীর সঙ্গে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি কালাম। ২০০২ সালে সর্বসম্মত ভাবে রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হন এ পি জে আবদুল কালাম। তাঁর মনোনয়ন সমর্থন করে শাসক-বিরোধী দু’পক্ষই।
১০ 1
২০০৪ সালে বেলুড় মঠের একটি অনুষ্ঠানে সন্ন্যাসীদের সঙ্গে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি কালাম।
১০ 6
২০০৫ সালে পশ্চিমবঙ্গের প্রাক্তন রাজ্যপাল গোপালকৃষ্ণ গাঁধীর সঙ্গে ক্যালকাটা প্রেস ক্লাবের হীরক জয়ন্তী অনুষ্ঠানে।
১০ 7
২০০২ সালে রাষ্ট্রপতি হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন কালাম। ছিলেন ২০০৭ সাল পর্যন্ত। তাঁর সময়ে রাষ্ট্রপতি ভবনের দরজা সর্বসাধারণের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছিল। আট থেকে আশি সকলের কাছেই তিনি ছিলেন ‘সর্বসাধারণের রাষ্ট্রপতি’।
১০ 8
৪০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাম্মানিক ডক্টোরেট কালামের সম্মানে ২০১০ সালে তাঁর জন্মদিনটি ‘বিশ্ব ছাত্র দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করে রাষ্টপুঞ্জ।
১০ 9
ছাত্র-ছাত্রীদের কাছে দারুণ জনপ্রিয় ছিলেন কালাম। ডিআরডিও-র বিজ্ঞানী হিসেবে সেনাবাহিনীর জন্য হেলিকপ্টারের নকশা তৈরি করে সাড়া ফেলে দেন।
১০১০ 10
২০০৫ সালে পরিচালক মৃণাল সেনের হাতে তুলে দিচ্ছেন দাদা সাহেব ফালকে পুরস্কার। পাশে জয়পাল রেড্ডি।

Advertisement

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
বাছাই খবর
আরও পড়ুন