বেগুনের ভাজা, ভর্তা ছেড়ে এ বার দইয়ের সঙ্গে মাখিয়ে রেঁধে ফেলুন এই অপূর্ব পদ!

বেগুনের ভাজা, ভর্তা ছেড়ে এ বার দইয়ের সঙ্গে মাখিয়ে রেঁধে ফেলুন এই অপূর্ব পদ!

বাঙালি মানে যেমন ভাতে-মাছে ভুরিভোজ, তেমনই নিরামিষ পদেও সে আসর জমাতে ওস্তাদ। বর্ষায় খিচুড়ি, শীতে কচুরি তো আছেই। এ ছাড়াও বাঙালির পাতে রোজই এমন কিছু নিরামিষ পদ পড়ে, যা স্বাদে আমিষকেও টেক্কা দিতে পারে। বাজার থেকে গৃহস্থ ঘরে প্রায়ই আসে যে ধরনের সব্জি, তার মধ্যে অন্যতম বেগুন

বেগুন ভাজা, বেগুনের ভর্তা, ঝোল-ঝোলে বেগুনের তরকারি, বসন্তে নিম-বেগুন— বাঙালি এই সব্জি দিয়েও রকমারি পদ বানাতে পছন্দ করে। বেগুন দিয়ে তৈরি এমনই এক নিরামিষ পদ ‘দই বেগুন’। গরম গরম ভাত হোক বা পোলাও— সবের সঙ্গে এই পদ ভাল লাগে।

এই পদের সবকটি উপাদানই সহজলভ্য। উপাদান ও পদ্ধতির হালহদিশ রইল।

আরও পড়ুন: মুচমুচে কবিরাজি কাটলেটের সঙ্গে জমে উঠুক চায়ের আড্ডা!

দই বেগুন:

গ্রাফিক: তিয়াসা দাস

আরও পড়ুন: ভেটকি পাতুরি সহজে বানিয়ে নেওয়ার উপায় খুঁজছেন? রইল সমাধান

প্রণালী:

প্রথমে গোটা বেগুনটিকে গোল গোল করে কেটে নিয়ে তাতে সামান্য নুন, হলুদ, লঙ্কা এবং চিনি মাখিয়ে পাঁচ থেকে দশ মিনিটের জন্য ঢেকে রাখুন। এ বার একটি পাত্রে টক দই ঢেলে তাতে হলুদ, ধনে গুঁড়ো এবং স্বাদ মতো নুন ও চিনি দিয়ে ভাল করে ফেটিয়ে নিন। এর পর একটি কড়াইয়ে দু’চামচ তেল দিয়ে নিন। তেল গরম হয়ে গেলে নুন-হলুদ মাখানো বেগুনগুলি কড়াইতে ছেড়ে দিন। অল্প ভাজা ভাজা হয়ে এলে একটি পাত্রে তুলে রাখুন এবং ওই একই কড়াইয়ে আরও এক চামচ তেল দিয়ে পাঁচফোড়ন, অল্প হিং, একটি গোটা শুকনো লঙ্কা ফোড়ন দিন। তারপর একে একে আদা বাটা, লঙ্কার গুঁড়ো, কাজু বাদাম বাটা দিয়ে হালকা নেড়েচেড়ে নিন। সব শেষে ফেটিয়ে রাখা টক দই দিয়ে অল্প কষিয়ে বেগুনগুলো ছেড়ে দিন এবং ঢেকে সেদ্ধ হতে দিন। উপর চেরা কাঁচালঙ্কা  দিয়ে পরিবেশন করুন।     

(ছবি সৌজন্য: সোশ্যাল মিডিয়া)