Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২১ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

এ বারের সংক্রান্তির বিশেষ আকর্ষণ ফিউশন পাটিসাপ্টা

সুগারের সমস্যা থাক বা না থাক, সংক্রান্তিতে নলেন গুড় দিয়ে পিঠে না খেলেই নয়। যাঁদের সুগারের সমস্যা বেশি, তাঁরাও দু’-একটা পিঠেপুলি খেতে পারেন

সুমা বন্দ্যোপাধ্যায়
কলকাতা ১৪ জানুয়ারি ২০২১ ১৬:৪৭
Save
Something isn't right! Please refresh.
Popup Close

সুগারের সমস্যা থাক বা না থাক, সংক্রান্তিতে নলেন গুড় দিয়ে পিঠে না খেলেই নয়। যাঁদের সুগারের সমস্যা বেশি, তাঁরাও দু’-একটা পিঠেপুলি খেতে পারেন অনায়াসে। তবে প্রত্যেক পিঠে রসিকের জেনে রাখা উচিত, এ দেশের প্রথম মিষ্টির নাম। বেদের সময় থেকেই ভারতীয় উপমহাদেশের মানুষ মিষ্টিপ্রেমী। প্রায় ৮০০০ বছর আগে এ দেশের প্রথম বাড়িতে তৈরি মিষ্টির নাম আপুপা। এই মিষ্টিরই পরে নাম হয় মালপোয়া। সেই সময় যবের আটা ঘি দিয়ে মেখে, গাওয়া ঘিয়ে ভেজে, মধুতে ডুবিয়ে পরিবেশন করা হত। পরে এটিই হয়ে দাঁড়ায় জগন্নাথ দেবের ৫৬ ভোগের অন্যতম মালপোয়া। বাংলা, বিহার ছাড়াও নেপালের মানুষও মালপোয়া প্রেমী। উপাদানে কিছু ফারাক থাকলেও স্বাদে খুব বদল নেই।

টু ইন ওয়ান মালপোয়া

নারকেল, ক্ষীর আর কলার সঙ্গে কাজু আর কিসমিসের টুকরো দিয়ে বানান এই মালপোয়া। গরম হোক বা ঠাণ্ডা, দুই ক্ষেত্রেই অসাধারণ স্বাদে ভরা। বড় এলাচ আর মৌরির স্নিগ্ধ গন্ধে খিদে আরও বেড়ে যায়। ওড়িশার বিলাখাউরানি গ্রামের গৃহবধু সঞ্জুলতা সামল জানালেন এই বিখ্যাত মালপোয়ার রেসিপি।

Advertisement

উপকরণ

ক্ষীর—১/২ কাপ

ময়দা—১ কাপ

সুজি—১/২ কাপ

পাকা কলা—১ টি

বেকিং সোডা—১ চামচ

নারকেল কোরা—১/২ কাপ

নুন—সামান্য

দুধ—১ কাপ

ভাঙা কাজু—১/২ কাপ

কিসমিস—১/৪ কাপ

চিনি—৩ কাপ

মৌরি—২ চামচ

বড় এলাচ—১/২ চামচ

গাওয়া ঘি—৩০০ গ্রাম

প্রণালী

দুধ ভাল করে ফুটিয়ে নিয়ে ক্ষীর দিয়ে ঘন করে নিন। কলা ভাল করে মেখে নিয়ে, এর সঙ্গে সুজি মেশান। দুধে ময়দা-সুজি-কলার মিশ্রণ ভাল করে মিশিয়ে পাতলা ঘন ব্যাটার বা গোলা বানিয়ে রাখুন। বড় এলাচ খোসা ছাড়িয়ে মিশ্রণে দিন । এবারে কাজু, কিসমিস, মৌরি ও বেকিং সোডা দিয়ে ভাল করে মিশিয়ে রাখুন। অন্য একটি পাত্রে চিনির রস বানিয়ে রাখতে হবে। প্যানে ঘি গরম করে অল্প আঁচে বাদামি করে মালপোয়া ভেজে নিয়ে চিনির রসে ফেললেই রেডি গরমাগরম মালপোয়া।



ডার্ক রাম পাটিসাপ্টা

সংক্রান্তিতে বানিয়ে ফেলুন ডার্ক রামের আগুনে ঝলসানো ফিউশন পাটিসাপ্টা। পেশায় রিস্ক ম্যানেজার, প্রকৃত অর্থে ভূপর্যটক অনির্বাণ দত্ত । নিজেকে ‘শেফ বাই প্যাশন’ বলতে ভালবাসেন তিনি। তাঁর পছন্দের পদ রাম ফ্ল্যাম্বেল পাটিসাপ্টা। সঙ্গতে নলেন গুড়ের সস।

নারকেলের সঙ্গে খোয়া ক্ষীর আর কাজু বাদামের মিঠে স্বাদের মিশ্রন। সঙ্গে গাওয়া ঘি আর ডার্ক রামের যুগলবন্দি। মুখে দিলেই ম্যাজিক। নলেন গুড়ের সঙ্গে ফ্রেশ কোকোনাট ক্রিমের মিশ্রনে বানানো সসের সঙ্গতে জমে উঠবে সংক্রান্তি।

উপকরণ

নারকেল কোরা—১ কাপ

ক্ষীর—১/২ কাপ

নতুন গুড়ের পাটালি—২০০ গ্রাম

কাজু—১/৪ কাপ

ক্রেপের জন্যে

চাল গুঁড়ো—২ কাপ

দুধ—১ কাপ

জল—অল্প

নুন—সামান্য

গাওয়া ঘি—৪ বড় চামচ

ডার্ক রাম—১ কাপ

প্রণালী

নারকেল, গুড় ও ক্ষীর দিয়ে পুর বানিয়ে নিয়ে নামানোর আগে ভাঙা কাজু মিশিয়ে রাখুন। দুধ ফুটিয়ে তার মধ্যে চাল গুঁড়ো দিন। সামান্য নুন দেবেন। জল দিয়ে পাতলা ব্যাটার বানিয়ে নিন। নন স্টিক প্যানে ঘি দিয়ে হাতায় করে ব্যাটার ছড়িয়ে দিতে হবে। এর মধ্যে পুর দিয়ে পাটিসাপ্টার আকারে গড়ে নিন। নামিয়ে রাখুন। সব পাটিসাপ্টা বানানো হয়ে গেলে স্যুপ ল্যাডেলের মধ্যে রাম ঢেলে গ্যাসে বসিয়ে অল্প কাত করলে আগুন জ্বলতে শুরু করবে। এবারে এই আগুন জ্বলা রাম, প্যানে সাজিয়ে রাখা পাটিসাপ্টার ওপর ঢেলে দিন। ব্যাস রেডি নয়া কৌশলে বানানো পাটিসাপ্টা। গুড় আর নারকেলের ক্রিম ভাল করে মিশিয়ে বানানো সসের সঙ্গে পরিবেশন করুন রাম ফ্ল্যাম্বেল্ড পাটিসাপ্টা।



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement