চেতেশ্বর পূজারার সেঞ্চুরি ও রোহিত শর্মার হাফ সেঞ্চুরির জন্য ওয়েস্ট ইন্ডিজ এ দলের বিরুদ্ধে প্রথম দিনের শেষে ভারত করল পাঁচ উইকেটে ২৯৭ রান।

চলতি মাসের ২২ তারিখ থেকে শুরু হচ্ছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ। তার আগে প্রস্তুতি ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজ এ দলের বিরুদ্ধে এক সময়ে ময়ঙ্ক আগরওয়াল ও লোকেশ রাহুলের উইকেট হারিয়ে সমস্যায় পড়ে গিয়েছিল ভারত। রাহুল করেন ৩৬ রান। ময়াঙ্ক ১২ রানে ফেরেন।

দ্রুত দুই ওপেনারকে হারানোর পরে ইনিংস গড়ার জন্য ভারত তাকিয়েছিল পূজারা ও অজিঙ্ক রাহানের দিকে। কিন্তু, রাহানে ক্রিজে ৬ বলের বেশি টিকতেই পারেননি। মাত্র ১ রান করে প্যাভিলিয়নে ফিরতে হয় তাঁকে। ভারতের রান তখন তিন উইকেটে ৫৩। টেস্ট ক্রিকেটে রাহানের ব্যাট কথা বলছে না। দু’বছর আগে শেষ বার শতরান পেয়েছিলেন তিনি। শেষ ১২টি টেস্ট ম্যাচে ২০টি ইনিংস থেকে রাহানে মাত্র পাঁচ বার হাফ সেঞ্চুরি করেছিলেন। হ্যাম্পশায়ারের হয়েও ব্যর্থ তিনি। করেছিলেন মাত্র ২৭৭ রান।

আরও পড়ুন: স্মিথের আঘাতে লর্ডসে মুহূর্তের জন্য ফিরেছিল হিউজ-আতঙ্ক

আরও পড়ুন: সেনা-পর্ব শেষ,কাশ্মীর থেকে ফিরলেন ধোনি

রাহানে দ্রুত ফিরে যাওয়ার পরে ভারতের ইনিংস গোছানোর কাজ করেন পূজারা ও রোহিত শর্মা। পূজারা ও রোহিত ১৩২ রানের পার্টনারশিপ গড়েন। এই জুটির জন্যই ভারতের রান ভদ্রস্থ দেখাচ্ছে। ক্যারিবিয়ান বোলারদের বিরুদ্ধে সেই সময়ে যদি দু’ভারতীয় প্রতিরোধ গড়ে না তুলতেন, তা হলে দিনের শেষে এই রানও দেখাত না স্কোর বোর্ডে। ১১৫ বলে রোহিত করেন ৬৮ রান। আটটি বাউন্ডারি ও একটি ছক্কায় সাজানো ছিল ‘হিটম্যান’-এর ইনিংস। অবসৃত হওয়ার আগে পূজারা ১৮৭ বলে সেঞ্চুরি করেন।

টি টোয়েন্টি ও ওয়ানডে ক্রিকেটে ঋষভ পন্থ নিজের নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি। তৃতীয় ওয়ানডে ম্যাচে পন্থ নিজের উইকেট ছুড়ে দেন। তার পরে সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছিল পন্থকে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ এ দলের বিরুদ্ধে অবশ্য পন্থ ৫৩ বলে ৩৩ রান করেন। ভারতের উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান তাড়াহুড়ো করেননি। ক্রিজে টিকে থাকার চেষ্টা করেন। অন্য দিকে হনুমা বিহারী ৩৭ রানে অপরাজিত রয়েছেন। তাঁর সঙ্গে ক্রিজে রয়েছেন রবীন্দ্র জাদেজা (১)। ওয়েস্ট ইন্ডিজ বোলারদের মধ্যে জোনাথান কার্টার তিনটি উইকেট নেন। টেস্ট ম্যাচ শুরুর আগে এই তিন দিনের ম্যাচকে কাজে লাগাতে চান ভারতীয়রা।