১৯৯২-এর সঙ্গে মিল খুঁজবেন না, নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে বলছেন আত্মবিশ্বাসী সরফরাজ
১৯৯২-এর বিশ্বকাপের সঙ্গে মিল খুঁজতে রাজি নন অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ।
Sarfaraz Ahmed

নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে জিতে আত্মবিশ্বাসী সরফরাজ। ছবি: এএফপি

প্রাক্তন পাক অধিনায়ক ওয়াসিম আক্রমের মতো ১৯৯২-এর বিশ্বকাপের সঙ্গে মিল খুঁজতে রাজি নন অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। শক্তিশালী নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে বুধবার জিতে সে বারের মতোই বিশ্বকাপে প্রথম বার কিউয়িদের বিজয় রথ আটকে দিল পাকিস্তান। এ বারের বিশ্বকাপে তৃতীয় ম্যাচে জয় তুলে নিয়ে সেমিফাইনালে যাওয়ার আশা বাঁচিয়ে রাখল সরফরাজের দল। জিতে পাক অধিনায়ক বললেন, “আমরা ’৯২-এর সঙ্গে মিল নিয়ে ভাবতে রাজি নই। প্রতিটা ম্যাচ ধরে ধরে চলতে চাই আমরা। আমরা দল হিসেবে আত্মবিশ্বাসী, আশা করি এ বারে ভাল ফল করব আমরা।”
চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের বিরুদ্ধে হারের পর পাক দলকে নিয়ে ট্রোল শুরু হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। প্রাক্তন পাকিস্তানি ক্রিকেটারদেরও ক্ষোভের মুখে পড়েন সরফরাজরা। গতকাল বার্মিংহ্যামে বাবর আজমের শতরান ও শাহিন আফ্রিদির দশ ওভারে ২৮ রান দিয়ে ৩ উইকেটের ওপর ভর করে দারুন ভাবে ফিরে আসে পাক বাহিনী। যদিও সেমিফাইনালে জেতে হলে তাদের জিততে হবে বাকি দু’টি ম্যাচও। তাকিয়ে থাকতে হবে ইংল্যান্ডের ম্যাচের ফলাফলের দিকেও। ম্যাচ শেষে পাক অধিনায়ক বাবর আজমের প্রশংসা করে বলেন, “এই পিচে ব্যাট করা সহজ ছিল না। আমাদের লক্ষ্য ছিল পুরো পঞ্চাশ ওভার ব্যাট করা। বাবর ও হ্যারিস সোহেল সেই কাজটাই নিখুঁত ভাবে করেছে।”

আরও পড়ুন: জিতলেই সেমিফাইনাল, ম্যাঞ্চেস্টারে ঘুরে দাঁড়াবে ভারতীয় মিডল অর্ডার?

আরও পড়ুন: শেষ চারের হাতছানি ভারতের সামনে​


নিউজিল্যান্ডের ইনিংসেও কেন উইলিয়ামসন ছাড়া শুরুর দিকে কেউই সেই ভাবে দাগ কাটতে পারেননি। শেষের দিকে দুই অলরাউন্ডার নিশাম ও গ্র্যান্ডহোমের ১৩২ রানের পার্টনারশিপ না হলে আরও বিপদে পড়তে হত কিউয়ি বাহিনীকে। তাতেও অবশ্য এই বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম হার বাঁচাতে ব্যর্থ হয়েছে নিউজিল্যান্ড। এরকম শক্তিশালী দলকে হারিয়েও অতি উচ্ছ্বাসে ভাসতে রাজি নন পাক অধিনায়ক। 
নিজেদের এই জয় থেকে আত্মবিশ্বাস নিয়ে সেমিফাইনালে যাওয়ার কঠিন রাস্তা পার করতে চায় পাক দল। আফগানিস্তান ও বাংলাদেশের বিরুদ্ধে পরবর্তী ম্যাচেও নিজেদের এই জয়ের ধারা বজায়ে রাখতে চান সরফরাজরা।

ম্যাচের
Live
স্কোর