ক্রিস গেল নন, বিরাট কোহালি নন, রোহিত শর্মা নন। এমনকী, ভারতের বিরুদ্ধে সদ্য টি-টোয়েন্টি সিরিজ জেতানো গ্লেন ম্যাক্সওয়েলও নন। অস্ট্রেলিয়ার কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গারের মতো, এখন বিশ্বের সবচেয়ে ধ্বংসাত্মক ব্যাটসম্যান হলেন অ্যারন ফিঞ্চ।

অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক ফিঞ্চ যদিও একেবারেই ফর্মে নেই। ৫০ ওভারের ক্রিকেটে গত ১৯ ইনিংসে একটা পঞ্চাশও নেই তাঁর। এমনই দূরাবস্থা। ভারতের বিরুদ্ধে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ফেরেন কোনও রান না করেই। দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে করেন মোটে আট। কোচ ল্যাঙ্গার অবশ্য পাঁচ ম্যাচের একদিনের সিরিজের আগে তাঁর উপর ভরসা রাখার কথাই শুনিয়েছেন।

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার ওয়েবসাইটে ল্যাঙ্গার প্রশংসায় ভরিয়ে দিয়েছেন। বলেছেন, “ফিঞ্চ এতটাই ভাল ক্রিকেটার, এতটাই ভাল ব্যক্তি যে আমরা সবাই জানি ও রানে ফিরবে। আমাদের শুধু ওর পাশে থাকতে হবে। ওর রান পাওয়া নিয়ে আমাদের মধ্যে কোনও সংশয় নেই।” দুঃসময়ে অধিনায়কের উপর পূর্ণ আস্থা দেখিয়েছেন কোচ।

ভারত-অস্ট্রেলিয়া টি২০ সিরিজ নিয়ে খেলুন কুইজ

আরও পড়ুন: দলে একাধিক পরিবর্তন, দেখে নিন হায়দরাবাদ ওয়ান ডে-তে ভারতের সম্ভাব্য একাদশ

আরও পড়ুন: কুলদীপদের জন্য বিশেষ অনুশীলন​

ল্যাঙ্গার আরও বলেন, “বিশ্বে ফিঞ্চের চেয়ে ধ্বংসাত্মক কোনও ক্রিকেটার নেই। আমরা গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, মার্কাস স্টোইনিসদের কথা বলি যাঁরা আক্রমণাত্মক হওয়ার ক্ষমতা ধরে। কিন্তু ফিঞ্চের যখন ব্যাটে-বলে হতে থাকে, তখন সাদা বলের ক্রিকেটে ওর চেয়ে বিপজ্জনক কেউ হয় না।” মাথায় রাখতে হবে, ল্যাঙ্গারের বিপজ্জনক ব্যাটসম্যানদের তালিকায় গেল, বিরাট, রোহিতদের কারও জায়গা হয়নি।

অধিনায়ক হিসেবেও অ্যারন ফিঞ্চের প্রশংসায় উচ্ছ্বসিত দেখিয়েছে ল্যাঙ্গারকে। কোচের দাবি, “ও নেতা হিসেবে সত্যিকারের ধারাবাহিক। নেতৃত্ব ওর ব্যক্তিত্ব বা মানসিকতায় কোনও বদল আনেনি। এর জন্য কৃতিত্ব প্রাপ্য ওর। এই সব কারণেই ও দলের অধিনায়ক। আমার অভিজ্ঞতা হল, অধিনায়ককে ভাল খেলতেই হয়। সেই ব্যাপারে ওর নজর রয়েছে। সবার সমর্থনও পাচ্ছে ও। ফিঞ্চ রান পাবেই। ও যাতে নিজের মেজাজে থাকে, আমাদের শুধু তার জন্য উৎসাহ দিয়ে যেতে হবে।” রানে না থাকা অধিনায়ককে উৎসাহ দিয়ে, মনোবল ফেরাতেই কি তবে ল্যাঙ্গার এত বড় শংসাপত্র দিচ্ছেন? প্রশ্ন কিন্তু উঠছেই। 

 

(আইসিসি বিশ্বকাপ হোক বা আইপিএল, টেস্ট ক্রিকেট, ওয়ান ডে কিংবা টি-টোয়েন্টি। ক্রিকেট খেলার সব আপডেট আমাদের খেলা বিভাগে।)