ভারতীয় ক্রিকেটে দীর্ঘ দিন ধরে উইকেটের পিছন থেকে দলকে সাহায্য করে গিয়েছেন মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। তাঁর সুরক্ষিত দস্তানা যেমন বার বার মোড় ঘুরিয়েছে ম্যাচের, তেমনই তাঁর অভিজ্ঞতাও ম্যাচের রঙ পাল্টে দিয়েছে বহু বার। ১৫ বছরের ক্রিকেট কেরিয়ারে আজ না হোক কাল ইতি টানবেন ৩৯ ছুঁতে চলা ধোনি। তাঁর সেই ঘোষণার আগেই উইকেট রক্ষকের জায়গা পাকা করে নিতে চাইছে ভারত। ৩৫-এর ঋদ্ধিমান সাহা বিশ্বের সেরা কিপার হলেও তাঁর বয়সের জন্য দীর্ঘ দিনের জন্য কখনই তাঁকে ভাবতে পারবে না দল। তাঁর দুর্বল ব্যাটিং একদিনের বা টি-টোয়েন্টি দলের জন্য উপযোগী মনে করে না ভারতীয় বোর্ড। তাই ঋষভ পন্থ, সঞ্জু স্যামসন, নমন ওঝাদের মতো ঘরোয়া ক্রিকেটে নাম করা উইকেটকিপার ব্যাটসম্যানদেরকে তৈরি করার দিকেই মন দিতে চাইছে দল। এঁদের মধ্যে অসাধারণ প্রতিভাবান ঋষভ পন্থকেই বেছে নিয়েছে দল, ভবিষ্যতের জন্য।

দিল্লির ঋষভ বেশ সাড়া জাগিয়েই শুরু করেছিলেন তাঁর ক্রিকেট কেরিয়ার। টেস্টে দ্বিতীয় বলে ছয় মেরে আভাস দিয়েছিলেন তাঁর আক্রমণাত্মক প্রতিভার। কিন্তু শুধু প্রতিভা নয়, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দরকার উপলব্ধি ক্ষমতা, অভিজ্ঞতা।

আরও পড়ুন: আমায় ঘৃণা করেন দেশের ক্রিকেট সমর্থকরাই, বলছেন অজি অলরাউন্ডার

ক্লুজনার গত বছর সাদা বলের ক্রিকেটে দিল্লির সিনিয়র দলের পরামর্শদাতা হিসেবে কাজ করেছেন। পিটিআই-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ক্লুজনার বলেন, “পন্থের মত অত্যন্ত প্রতিভাবান ক্রিকেটার মাঝে মধ্যে নিজের ক্ষমতার বাইরে গিয়ে কাজ করতে যান। পন্থের নিজেকে সময় দেওয়া জরুরি। তা হলেই নিজের প্রতিভাকে মেলে ধরতে পারবেন তিনি।”

আরও পড়ুন: ফিল হিউজ স্মৃতি উস্কে মাথায় বল লেগে হাসপাতালে রাসেল

৪৯টি টেস্ট ও ১৭১টি একদিনের ম্যাচের অভিজ্ঞতা সম্পন্ন লান্স ক্লুজনার এই মুহূর্তে দক্ষিণ আফ্রিকার সাদা বলের ব্যাটিং কোচ। তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে উন্নতির জন্য নিজের ভুলের থেকে বেশি নজর দেওয়া উচিত অন্যদের ভুলের দিকে। সেই ভুলের থেকে শিক্ষা নিয়ে এগোনো উচিত পন্থেরও, মনে করেন ক্লুজনার।

১৯৯৯ সালের বিশ্বকাপের সেরা প্লেয়ার ক্লুজনার মনে করেন ভারতের সিনিয়র খেলোয়াড়দের থেকে উপদেশ নিয়েই উন্নতি করা সম্ভব পন্থের। এই মুহূর্তে একদিনের ক্রিকেটে ১২ ম্যাচে তাঁর সংগ্রহ ২২৯ রান, গড় ২২.৯০ এবং টি-টোয়েন্টি-তে ১৮ ম্যাচে ৩০২ রান, গড় ২১.৫৭। টেস্ট ম্যাচে বার বার ভাল শুরু করেও বাজে শট খেলে আউট হয়েছেন তিনি। যা চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে দলের জন্য।

ঋষভ পন্থ যত তাড়াতাড়ি শুধু উইকেটের পিছনে নয়, ব্যাট হাতেও ভরসা জোগাতে পারবেন দলকে, ততই লাভ ভারতীয় ক্রিকেটের।