মেঘের উপর দিয়ে এখন হাঁটছেন ভারতের তরুণ ওপেনার ময়াঙ্ক আগরওয়াল। বিশাখাপত্তনমে ডাবল সেঞ্চুরি করেছিলেন তিনি। পুণেতেও সেঞ্চুরি হাঁকালেন ময়াঙ্ক।

এ দিন শতরান পাওয়ায় তিনি দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ধারাবাহিক ভাবে দুটো টেস্টে সেঞ্চুরি করলেন। তাঁর ব্যাট এ দিন কথা বলায় ভারতের প্রাক্তন ওপেনার বীরেন্দ্র সহবাগ, মহম্মদ আজহারউদ্দিন, সচিন তেন্ডুলকরের সঙ্গে এক নিঃশ্বাসে ময়াঙ্কের নামও এ বার থেকে উচ্চারিত  হবে।

দক্ষিণ আফ্রিকার কাগিসো রাবাডার বলে ফেরার আগে ময়াঙ্ক করেন ১০৮ রান। তাঁর ইনিংসে সাজানো ছিল ১৬টি বাউন্ডারি ও দুটো বিশাল ছক্কা। ন’ বছর আগে প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে নাগপুর ও কলকাতা টেস্টে সেঞ্চুরি করেছিলেন সহবাগ (নাগপুরে ১০৯, কলকাতায় ১৬৫)।

আরও পড়ুন: প্রথম বার ছেলেকে আইপিএল খেলতে দেখে কেঁদে ফেলেছিলেন বুমরার মা

১৯৯৬ সালে মহম্মদ আজহারউদ্দিন নিজের ব্যাটিং স্টাইল বদলে ফেলেছিলেন। মারকুটে আজ্জুকে আবিষ্কার করেছিল ভারতের ক্রিকেটমহল। দেশের প্রাক্তন অধিনায়ক দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে কলকাতায় ১০৯ ও কানপুরে অপরাজিত ১৬৩ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলেছিলেন।

আরও পড়ুন: ইতিহাস গড়লেন মেরি কম, বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে নিশ্চিত করলেন অষ্টম পদক

‘মাস্টার ব্লাস্টার’ও পিছিয়ে নেই। ২০১০ সালে নাগপুরে ১০০, কলকাতায় ১০৬ করার পরে সেঞ্চুরিয়নে অপরাজিত ১১১ রান করেছিলেন সচিন। বিশাখাপত্তনমে প্রথম বার টেস্ট ক্রিকেটে ওপেন করতে নেমে দু’ ইনিংসে সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছিলেন রোহিত শর্মাও।