• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

আস্থার মর্যাদা দিতে হবে শাস্ত্রীকে, কে বললেন জানেন?

Ravi Shastri
শাস্ত্রীর কোচিংয়ে কি বিশ্বকাপ জিততে পারবে ভারত? ছবি: পিটিআই।

Advertisement

জাতীয় দলে প্রধান কোচ হিসেবে এখন রবি শাস্ত্রীই যোগ্যতম। এমনই মনে করছেন প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। তবে শাস্ত্রীকেও এই আস্থার মর্যাদা দিতে হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

যদিও শাস্ত্রীর সঙ্গে সৌরভের সম্পর্ক নিয়ে ক্রিকেটমহলে ফিসফাস যথেষ্ট। ২০১৬ সালে অনিল কুম্বলে জাতীয় দলের প্রধান কোচ হওয়ার পর তো ক্রিকেট অ্যাডভাইসরি কমিটির সদস্য সৌরভের বিরুদ্ধে রীতিমতো অভিযোগ করেছিলেন শাস্ত্রী। বলেছিলেন, সৌরভের জন্যই ফের কোচ হতে পারেননি তিনি। সৌরভও পাল্টা বলেছিলেন। পরের বছর কুম্বলের পদত্যাগের পর ক্রিকেট অ্যাডভাইসরি কমিটি কিন্তু শাস্ত্রীকেই বেছে নেয় কোচের পদে। আর সেই কমিটিতে ছিলেন সৌরভও।

কিছুদিন আগে শাস্ত্রীকেই আবার কোচ হিসেবে বেছে নেয় ক্রিকেট অ্যাডভাইসরি কমিটি। এ বার কমিটির মাথায় ছিলেন কপিল দেব। ২০২১ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্ত জাতীয় দলের কোচ থাকবেন শাস্ত্রী। এই প্রসঙ্গেই সৌরভ বলেছেন, “রবিই এখন সঠিক লোক। খুব বেশি কেউ কোচ হতে চেয়ে আবেদন করেননি। তাই খুব একটা বিকল্পও ছিল না সামনে।”

আরও পড়ুন: ঘরের মাঠে প্রথম টেস্টেই ডাবল সেঞ্চুরি! গাওস্করকে ছুঁলেন ময়াঙ্ক​

আরও পড়ুন: রোহিত-ময়াঙ্কের ব্যাটে বিশাখাপত্তনমে ভাঙল যে সব রেকর্ড​

এখানেই থামেননি সৌরভ। তিনি আরও বলেছেন, “পাঁচ বছর ধরে রবি দায়িত্বে রয়েছেন। আরও দুই বছরের জন্য কোচ করা হয়েছে। মনে হয় না ইতিহাসে আর কোনও কোচ এত লম্বা সময় ধরে দলের সঙ্গে ছিলেন। রবিই এখন রাইট চয়েস। তবে এখন ওঁর প্রতি যে আস্থা দেখানো হয়েছে, তার মর্যাদা দিতে হবে। দুটো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ সামনে রয়েছে। আর এই ধরনের বড় প্রতিযোগিতায় জেতার রাস্তা খুঁজে বের করতে হবে।”

২০১৪ সালে ইংল্যান্ডে টেস্ট সিরিজে ১-৩ পরাজয়ের পর জাতীয় দলের টিম ডিরেক্টর হন শাস্ত্রী। ২০১৫ বিশ্বকাপের পর তিনি দলের প্রধান কোচ হন। ২০১৬ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর মেয়াদ শেষ হয়েছিল তাঁর। সেই সময় কুম্বলে কোচ হয়েছিলেন। ২০১৭ সালে ফের প্রধান কোচের পদে ফেরেন শাস্ত্রী। কিন্তু তাঁর কোচিংয়ে বিশ্বকাপ কখনও জিততে পারেনি ভারত।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন