রাজকোটে দলকে জিতিয়ে সিরিজে সমতা ফেরানোর রাতে ক্রিকেটের পুরনো তর্কও তুলে দিয়ে গেলেন রোহিত শর্মা। শক্তি বনাম শিল্পের তর্ক। রোহিত বলে দিলেন, ‘‘ছক্কা মারার জন্য সুন্দর সময়জ্ঞানই সব চেয়ে বেশি দরকার, মাসলম্যান হওয়ার দরকার নেই।’’ 

রাজকোটে বৃহস্পতিবার ছ’টি ছক্কা মেরে রোহিত ৪৩ বলে ৮৫ রান করেন। একটা সময়ে মোসাদেক হোসেনের ছ’বলে ছ’টি ছক্কাও মারার চেষ্টা করেছিলেন তিনি। পর-পর তিনটি বলে তিনটি ছক্কা মেরে দিয়েছিলেন তিনি। যা নিয়ে ম্যাচের পরে বলে গেলেন, ‘‘আমি চেষ্টা করেছিলাম ঠিকই কিন্তু চতুর্থ বলটায় ছক্কা না হওয়ায় নিজেকে সংযত করতেই হল। তখন ভাবলাম, খুচরো রানই নিই। বেশি নড়াচড়া না করেই আমি স্ট্রোক নিচ্ছিলাম।’’ 

যুবরাজ সিংহের ছয় ছক্কার রেকর্ড ধরতে না পারলেও রোহিতের ছক্কা মারার নৈপুণ্যে মুগ্ধ ক্রিকেট বিশ্ব। আর বিরাট কোহালির অনুপস্থিতিতে ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক ‘চহাল টিভি’-তে এসে বলে দিলেন, ‘‘ছক্কা মারার জন্য পেশীবহুল হওয়ার দরকার পড়ে না।’’ এর পরে রোগাপাতলা চেহারার চহালের দিকে তাকিয়ে তিনি বলে ওঠেন, ‘‘এমনকি, তুমিও ছক্কা মারতে পারো।’’ রোহিতের সেই বক্তব্য শুনে হাসিতে ফেটে পড়েন ভারতীয় লেগস্পিনার। রসিকতা ছেড়ে এর পর রোহিত যোগ করেন, ‘‘ছক্কা মারা শুধুই শক্তির ব্যাপার নয়। টাইমিংটাও খুবই গুরুত্বপূর্ণ। মাথা সোজা রাখতে হয়, শরীরের অবস্থান ভাল থাকতে হয়। এ সব কিছু ঠিকঠাক হলে তবেই ভাল ছক্কা মারা যায়।’’ 

বাংলাদেশের কাছে প্রথম ম্যাচ হেরে টি-টোয়েন্টি সিরিজে চাপে পড়ে গিয়েছিল ভারত। বিধ্ব‌ংসী রোহিত সেই চাপ থেকে একাই বার করে আনেন দলকে। তাঁর ব্যাটিং দাপটেই আট উইকেটে জিতে সিরিজে সমতা ফিরিয়েছে ভারত। প্রথমে ব্যাট করে বাংলাদেশ তুলেছিল ১৫৩-৬। রোহিতের ঝড়ে ১৬তম ওভারেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায় ভারত। নাগপুরে রবিবার ফয়সালার তৃতীয় ম্যাচ। রোহিত মেনে নিচ্ছেন, ‘‘প্রথম ম্যাচটা হারায় আমাদের উপর কিছুটা চাপ তৈরি হয়েছিল। কিন্তু সিরিজে ফিরে আসার জন্য যা যা করার দরকার ছিল, আমরা করেছি।’’ প্রথম ভারতীয় ক্রিকেটার হিসেবে ১০০তম টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলতে পেরেও গর্বিত রোহিত। বলেছেন, ‘‘যে কোনও ফর্ম্যাটেই হোক, দেশের হয়ে কিছু করার সুযোগ পেলেই নিজেকে ধন্য মনে করি।’’