Advertisement
০৫ অক্টোবর ২০২২
Table Tennis

CWG: কমনওয়েলথ গেমসের টিটি দল থেকে ছাঁটাই মনোবিদ, অসন্তুষ্ট খেলোয়াড়রা

দলের সঙ্গে মনোবিদ না থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন টেবিল টেনিস দলের একাধিক সদস্য। ভারতীয় অলিম্পিক্স সংস্থা দায় ঠেলেছে টেবিল টেনিস সংস্থার দিকেই।

ক্ষুব্ধ শরথ কমলরা।

ক্ষুব্ধ শরথ কমলরা। ফাইল ছবি।

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা শেষ আপডেট: ১৮ জুলাই ২০২২ ১৯:৩৪
Share: Save:

ভারতীয় টেবিল টেনিস নিয়ে বিতর্ক থামছে না। কমনওয়েলথ গেমসে সুযোগ না পেয়ে একাধিক খেলোয়াড় সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন। এ বার বিতর্ক মনোবিদকে দলের সঙ্গে কমনওয়েলথ গেমসে যেতে না দেওয়া নিয়ে। খেলোয়াড়রা চাইলেও টেবিল টেনিস দলের সঙ্গে বার্মিংহ্যাম যেতে পারছেন না ওই মনোবিদ গায়ত্রী বর্তক। টেবিল টেনিস সংস্থা ভারতীয় অলিম্পিক্স সংস্থার কাছে ১৪ জনের দলের যে তালিকা জমা দিয়েছে, তাতে নাম নেই গায়ত্রীর।

গায়ত্রী এক জন প্রাক্তন ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড়। খেলা থেকে অবসর নেওয়ার পর মনোবিদ হিসাবে কাজ করছেন। নিজে প্রাক্তন খেলোয়াড় হওয়ায় তিনি খেলোয়াড়দের সমস্যা বোঝেনও ভাল। ভারতীয় টেবিল টেনিস দলের সঙ্গে কিছু দিন ধরে কাজ করছেন। তাই খেলোয়াড়দের সমস্যাও ভাল বোঝেন। কিন্তু তাঁকে কোনও অজ্ঞাত কারণে বাদ রাখা হয়েছে বার্মিংহ্যামগামী দল থেকে।

ভারতীয় দলের একাধিক সদস্য মনে করছেন কমনওয়েলথ গেমসে গায়ত্রীর অনুপস্থিতি বড় পার্থক্য গড়ে দিতে পারে অন্য দলগুলির সঙ্গে। শরথ কমল বলেছেন, ‘‘ব্যক্তিগত ভাবে বলতে পারি, দলে মনোবিদ থাকলে অনেক সুবিধা হয়। প্রত্যাশার চাপ সামলানো অনেক সহজ হয়। আমরা সাইকে অনুরোধও করেছিলাম। কিন্তু ওরা সাপোর্ট স্টাফের সংখ্যা বাড়াতে রাজি হয়নি।’’ নিয়ম অনুযায়ী দলের মোট খেলোয়াড় সংখ্যার ৩৩ শতাংশ পর্যন্ত সাপোর্ট স্টাফ থাকতে পারে। সেই নিয়মেই আটকে গিয়েছে গায়ত্রীর বার্মিংহ্যাম যাত্রা। যদিও, সব ক্ষেত্রে এই নিয়ম কঠোর ভাবে মানা হচ্ছে না বলে অভিযোগ উঠেছে।

কমনওয়েলথ গেমসের টেবিল টেনিস দলে আট জন খেলোয়াড়ের সঙ্গে কোচ এবং সাপোর্ট স্টাফ মিলিয়ে ছয় জনকে যাওয়ার ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে। তাঁরা হলেন দুই কোচ এস রামন, অনিন্দিতা চক্রবর্তী, মণিকা বাত্রার ব্যক্তিগত কোচ ক্রিস আদ্রিয়ান, ম্যাসিওর হরমিত কাউর, ফিজিও বিকাশ সিংহ এবং দলের ম্যানেজার এসডি মুডগিল। উল্লেখ্য, মুডগিল আদালত নিযুক্ত প্রশাসক কমিটির অন্যতম সদস্য।

গত মে মাসে বেঙ্গালুরুর জাতীয় শিবিরেও দলের সঙ্গে ছিলেন গায়ত্রী। তাঁর না যাওয়া নিয়ে দলের আর এক সদস্য শ্রীজা আকুলা বলেছেন, ‘‘শেষ আট মাস গায়ত্রীর সঙ্গে ব্যক্তিগত ভাবে কাজ করেছি। উনি আমাকে প্রচুর সাহায্য করেছেন। যখন প্রথম জাতীয় চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলাম, তখনও উনি সঙ্গে ছিলেন। কমনওয়েলথ গেমসের মতো বড় প্রতিযোগিতায় মেন্টাল কোচ খুবই প্রয়োজন হয়।’’

ভারতীয় অলিম্পিক্স সংস্থার সচিব রাজীব মেহতা বলেছেন, ‘‘প্রতিটি খেলার চূড়ান্ত দলের নামের তালিকা পাঠানোর আগে সংশ্লিষ্ট জাতীয় সংস্থার সঙ্গে বার বার কথা বলেছিলাম আমরা। কোনও পরিবর্তন দরকার কি না জানতে চাওয়া হয়েছিল। খেলোয়াড়দের সঙ্গে কথা বলতে বলা হয়েছিল। আমরা খেলোয়াড়দের স্বার্থকেই আগ্রাধিকার দিতে চেয়েছি সব সময়।’’

টেবিল টেনিস সংস্থার আদালত নিযুক্ত প্রশাসক কমিটির সদস্য মুডগিল এই বিতর্ক নিয়ে কিছু বলেননি। তিনি বলেছেন, ‘‘আইওএ দল সংক্রান্ত আমাদের প্রায় সব অনুরোধই মেনে নেওয়ায় আমরা খুশি।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.