Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৭ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

Ravi Shastri: কোহলীদের প্রশিক্ষক হিসেবে কেন শাস্ত্রীকেই বেছে নেওয়া হল, সামনে এল কারণ

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ২৮ জুলাই ২০২১ ১৭:২৯
ভারতীয় দলের প্রশিক্ষক রবি শাস্ত্রী।

ভারতীয় দলের প্রশিক্ষক রবি শাস্ত্রী।
—ফাইল চিত্র

২০১৯ সালে দ্বিতীয় বারের জন্য ভারতীয় দলের প্রশিক্ষক হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছিল রবি শাস্ত্রীকে। সেই সময় বিরাট কোহলীদের প্রশিক্ষক হওয়ার দৌড়ে ছিলেন মাইক হেসন, টম মুডি, লালচাঁদ রাজপুত, রবিন সিংহরা। কিন্তু তাঁদের পিছনে ফেলে বেছে নেওয়া হয় শাস্ত্রীকে। কী কারণে বেছে নেওয়া হয়েছিল তাঁকে?

শাস্ত্রীকে প্রশিক্ষক হিসেবে বেছে নিয়েছিল উপদেষ্টা কমিটি। সেই কমিটিতে ছিলেন কপিল দেব, শান্তা রঙ্গস্বামী এবং অংশুমান গায়কোয়াড়। শাস্ত্রীকে বেছে নেওয়ার কারণ জানালেন অংশুমান। এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, “শাস্ত্রী ধারাভাষ্যকার ছিল। ও যে শুধু ভারতীয় ক্রিকেট সম্পর্কে সচেতন তাই নয়, বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ক্রিকেট সম্পর্কেও জানে। হার বা জয়ের পর কী ভাবে একটা দল নিজেকে পরের ম্যাচের জন্য তৈরি করে সেটাও দেখেছে। ও জানে কী ভাবে ম্যাচের পরিস্থিতি বদলে গেলে নিজেদের মানিয়ে নিতে হয়। ভারতীয় ক্রিকেটারদের সঙ্গেও ওর সম্পর্ক ভাল। আর কী দরকার প্রশিক্ষক হতে গেলে?”

প্রথম বার ভারতীয় দলের প্রশিক্ষক হিসেবে শাস্ত্রীর ঝুলিতে সাফল্য বলতে ছিল চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনাল খেলা এবং অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে সিরিজ জয়। কিন্তু ধারাভাষ্যকার হিসেবে তাঁর পর্যবেক্ষণ এবং ক্রিকেটারদের সঙ্গে সম্পর্ককেই গুরুত্ব দেন অংশুমানরা। তাই দ্বিতীয় বারেও তাঁকে প্রশিক্ষক বেছে নেওয়া হয়।

Advertisement
কোহলী-শাস্ত্রী জুটি।

কোহলী-শাস্ত্রী জুটি।
—ফাইল চিত্র


এই মুহূর্তে শ্রীলঙ্কায় ভারতীয় দলকে প্রশিক্ষণ দিচ্ছেন রাহুল দ্রাবিড়। এক দিনের সিরিজে জয় দিয়ে শুরু করেছেন তিনি। সমর্থকদের রব উঠতে শুরু করেছে তাঁকে ভারতীয় দলের প্রশিক্ষক হিসেবে নিয়ে আসার জন্য। তবে শাস্ত্রী-কোহলী জুটি ভাঙা হবে কি না সেই বিষয়ে সন্দেহ রয়েছে।

যদিও অংশুমান বলেন, “প্রশিক্ষক এবং অধিনায়কের মধ্যে রসায়ন ভাল থাকলেই দল ভাল খেলবে এটা ভাবা ঠিক নয়। আসল হচ্ছে দলের সঙ্গে প্রশিক্ষকের সম্পর্ক। অধিনায়ক একা কিছুই করতে পারবে না। আরও ১০ জনকে সঙ্গে লাগবে। আমার অভিজ্ঞতা সেটাই বলে। আমি প্রশিক্ষক থাকার সময় দলে ছিল সচিন (তেন্ডুলকর), সৌরভ (গঙ্গোপাধ্যায়), রাহুল (দ্রাবিড়), মহম্মদ আজহারউদ্দিনরা। বোলিংয়ে ছিল অনিল (কুম্বলে), (জভাগল) শ্রীনাথ, বেঙ্কটশ প্রসাদ। সবাইকে একসঙ্গে বেঁধে রাখতে হয়েছিল। এখন যেমন কোহলী নিজেকে এমন উচ্চতায় নিয়ে গিয়েছে সবাই ওকে নিজের লক্ষ্য ভাবে। জানে ভাল খেলতে না পারলে একাধিক ক্রিকেটার রয়েছে তাদের পরিবর্ত হিসেবে।”

আরও পড়ুন

Advertisement