Advertisement
০৬ ডিসেম্বর ২০২২
ICC

ICC: কোহলী, বাবররা কি পাবেন অলিম্পিক্স পদক? ঘোর আশাবাদী আইসিসি

ক্রিকেটকে অলিম্পিক্সে অন্তর্ভুক্ত করার চেষ্টা চলছে অনেক দিন। আইসিসি আশাবাদী, ২০২৮ অলিম্পিক্সে দেখা যাবে ক্রিকেট।

কোহলী, বাবররা সুযোগ পাবেন অলিম্পিক্স খেলার?

কোহলী, বাবররা সুযোগ পাবেন অলিম্পিক্স খেলার? ফাইল ছবি।

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৭ জুন ২০২২ ১৬:১৮
Share: Save:

২০২৮ অলিম্পিক্সে কি ক্রিকেট খেলা হবে? বিরাট কোহলী, বাবর আজম, জো রুটরা কি পাবেন অলিম্পিক্স পদক জেতার সুযোগ? এখনও নিশ্চয়তা পাওয়া না গেলেও আশাবাদী আইসিসি।

Advertisement

লস অ্যাঞ্জেলস অলিম্পিক্সে মোট ২৮টি খেলা রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আইওসি। সেই তালিকায় ক্রিকেট থাকবে কি না, তা নির্ভর করছে আগামী মাসে লস অ্যাঞ্জেলস গেমসের আয়োজক কমিটির সিদ্ধান্তের উপর। আইসিসি কর্তাদের আশা ক্রিকেট নিয়ে তাঁদের বক্তব্য শোনার জন্য গেমস আয়োজকরা আমন্ত্রণ জানাবেন। অলিম্পিক্সে ক্রিকেটের সম্ভাবনা তুলে ধরতে পারবেন তাঁরা।

আইসিসি কর্তারা ২০৩২ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে চাইছেন না। চেয়ারম্যান গ্রেগ বার্কলে বলেছেন, ‘‘আমাদের বিশ্বাস ২০২৮ লস অ্যাঞ্জেলস গেমসেই ক্রিকেটকে যুক্ত করার সুবর্ণসুযোগ রয়েছে। আমরা চাই বিশ্ব জুড়ে ক্রিকেটের কয়েক লক্ষ সমর্থক অলিম্পিক্স উপভোগের সুযোগ পান। আমাদের সেরা খেলোয়াড়রাও অলিম্পিক্সে অংশগ্রহণের সুযোগ পাক।’’

১৯০০ সালের অলিম্পিক্সে ক্রিকেট ছিল। সেই এক বারই। সে বার প্যারিস অলিম্পিক্সে ক্রিকেটে অংশ নিয়েছিল গ্রেট ব্রিটেন এবং ফ্রান্স। আধুনিক অলিম্পিক্সে আর কখনও ক্রিকেট খেলা হয়নি। বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ামক সংস্থা গত কয়েক বছর ধরেই চেষ্টা করছে অলিম্পিক্সে ক্রিকেট অন্তর্ভুক্ত করার। সেই চেষ্টা সফল না হলেও আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির সাড়া ইতিবাচক। আইসিসি’র আশা লস অ্যাঞ্জেলস গেমসেই দেখা যেতে পারে কুড়ি ওভারের ক্রিকেট। আইসিসির আশা পূরণ হলে আধুনিক অলিম্পিক্সে ক্রিকেট ফিরবে ১২৮ বছর পর।

Advertisement

ক্রিকেটকে লড়াই করতে হবে আরও কয়েকটি খেলার সঙ্গে। ফ্ল্যাগ ফুটবল, বেসবল, সফটবলের মতো খেলাগুলির নিয়ামক সংস্থাও অলিম্পিক্সে অন্তর্ভুক্তির আবেদন জানিয়েছে। আমেরিকায় জনপ্রিয়তা না থাকায় ক্রিকেটের সম্ভাবনা কম বলে মনে করছে আইওসি কর্তাদের একাংশ। তাঁদের মতে, ২০৩২ সালে ব্রিসবেন গেমসে ক্রিকেট অন্তর্ভুক্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। কারণ, অস্ট্রেলিয়ার অন্যতম জনপ্রিয় খেলা ক্রিকেট।

২০২৮ সালের গেমসে ক্রিকেট অন্তর্ভুক্ত হলে আইসিসি সব রকম ভাবে সাহায্য করতে প্রস্তুত। গেমসে বাধ্যতামূলক নয় এমন খেলাগুলি রাখা না রাখা অনেকটাই নির্ভর করে আয়োজকদের উপর। আয়োজক শহরে সেই খেলা নিয়ে আগ্রহের উপর। তাই আমেরিকায় ক্রিকেটের জনপ্রিয়তা বাড়াতে উদ্যোগী আইসিসি। ২০২৪ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের অন্যতম আয়োজক দেশ আমেরিকা। ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে যৌথ আয়োজক তারা। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বেশ কিছু খেলাও আমেরিকায় দেওয়া হচ্ছে।

সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ

Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.