Advertisement
১৫ জুলাই ২০২৪
India vs South Africa Test

বিরাটের উইকেটেই উল্লসিত রাবাডা

প্রথম দিনের ম্যাচের পরে সাংবাদিক বৈঠকে এসে কোহলির উইকেট প্রাপ্তি নিয়ে তৃপ্তির হাসি ছড়িয়ে পড়ল দক্ষিণ আফ্রিকার জোরে বোলার কাগিসো রাবাডার মুখে।

An image of Kagiso Rabada and Virat Kohli

ধাক্কা: বিরাটকে ফিরিয়ে উচ্ছ্বাস রাবাডার।মঙ্গলবার। ছবি: পিটিআই।

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ২৭ ডিসেম্বর ২০২৩ ০৬:৪০
Share: Save:

মঙ্গলবার শুরু থেকে তিনি সতর্ক থেকেই সুইং সামলে দিচ্ছিলেন। কিন্তু বিপদ ঘনিয়ে এল দেরিতে সুইং ভাঙা একটি ডেলিভারিতে। সেঞ্চুরিয়নের গতিশীল এবং বাউন্সি উইকেটে ক্রমশ দুর্ভেদ্য হয়ে ওঠা বিরাট কোহলি ঠকলেন কাগিসো রাবাডার সেই বলে। ব্যাট ছুঁয়ে সেই বল জমা পড়ল উইকেটরক্ষক কাইল ভেরেনের দস্তানায়।

প্রথম দিনের ম্যাচের পরে সাংবাদিক বৈঠকে এসে কোহলির উইকেট প্রাপ্তি নিয়ে তৃপ্তির হাসি ছড়িয়ে পড়ল দক্ষিণ আফ্রিকার জোরে বোলারের মুখে। রাবাডা বলে যান, ‘‘বলের সুইংটা একটু দেরিতে ভেঙেছিল। সেটাতেই পরাস্ত হয়েছে বিরাট।’’ যোগ করেন, ‘‘জানি না, কোনও কারণে হয়তো বিরাট এ দিন বেশির ভাগ সুইং ডেলিভারি খেলতে গিয়ে ফস্কেছে। আসলে ওর মতো ব্যাটসম্যানের বিরুদ্ধে সব সময় সতর্ক থাকতে হয়।’’

সেখানেই না থেমে রাবাডা যোগ করেন, ‘‘এটা ভেবে গর্ব অনুভব করছি যে, এই দ্বৈরথে আমি ওকে পরাস্ত করতে পেরেছি।’’ আরও বলেন, ‘‘ক্রিকেটে এমন হয়ে থাকে। এই দিনটা আমার ছিল। ভারতীয় দলে অভিজ্ঞ ক্রিকেটার প্রচুর রয়েছে। সেই জায়গায় ২০৮-৮ স্কোরটা বেশ স্বস্তিদায়ক।’’

বিরাটকে নিয়ে এর আগে প্রশ্ন ধেয়ে আসে ভারতীয় দলের ব্যাটিং কোচ বিক্রম রাঠৌরের দিকেও। বলা হয়, দলের সঙ্গে মাত্র একটি অনুশীলন সেরেই তাঁর টেস্ট খেলতে নেমে পড়া কতটা যুক্তিযুক্ত? রাঠৌর সটান বলে দেন, ‘‘বিরাট ক্রিকেটজীবনের এমন একটা পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছে যে, ওর বেশি অনুশীলন করার প্রয়োজন নেই।’’ যোগ করেন, ‘‘দীর্ঘ সময় ও অনুশীলন করেছে। ব্যাটিংও প্রচুর করেছে। তাই কয়েকটা দিন অনুশীলন কম করলে কোনও ক্ষতি হয় না। আমরা সকলেই দেখেছি ও আজ কী দুর্দান্ত ব্যাটিং করছিল। কে বলবেন, ছেলেটা ছ’মাস লাল বলের ক্রিকেট থেকে দূরে ছিল! আমাদের কাছে বিরাটের এই ব্যাটিং শুভ ইঙ্গিত বলেই মনে হয়েছে।’’

বিরাট ছাড়াও রাবাডার মুখে শোনা গিয়েছে কে এল রাহুলের অনমনীয় ব্যাটিংয়ের। তিনি বলেছেন, ‘‘ওর শট নেওয়ার পরিকল্পনাটা খুব ভাল। তারই সঙ্গে রক্ষণটাও দুর্দান্ত। এমন পরিস্থিতিতে কোনও একজন ব্যাটসম্যানকে সামনে এগিয়ে আসতে হয়। রাহুল আজ সেই দায়িত্ব পালন করেছে সাবলীল ভাবে।’’

রাবাডা জানিয়েছেন, পরিকল্পনা করেই এ দিন লেগের দিকে ৬৫টি বল ফেলেছেন। একটি লেগ স্লিপও রাখা হয়েছিল। কেন এমন ভাবনা? রাবাডার জবাব, ‘‘জ্যানসেন এবং বার্গার বাঁ হাতি পেসার। ওরা ক্রমাগত আক্রমণ করে যাচ্ছিল। মধ্যাহ্নভোজের বিরতির সময় টেম্বা বাভুমা জানায়, লেগ স্লিপ রেখে ওই ভাবে বোলিং করে যেতে। তাতেই সাফল্য মিলবে। বিরাট ফেরার পরে কৌশল বদলে যায়।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE