Advertisement
১৬ জুন ২০২৪
Kedar Jadhav

ভারতীয় ক্রিকেটারের নিখোঁজ বাবার খোঁজ মিলল, ২৪ ঘণ্টা পর বাড়ি ফেরাল পুলিশ

সোমবার সকালে নিখোঁজ হয়ে গিয়েছিলেন ভারতীয় ক্রিকেটার কেদার যাদবের বাবা। ২৪ ঘণ্টা নিখোঁজ থাকার পরে অবশেষে খোঁজ মিলল তাঁর।

Picture of Kedar Jadhav with his father

কেদার যাদবের (বাঁ দিকে) সঙ্গে তাঁর বাবা মহাদেব যাদব। সোমবার সকালে নিখোঁজ হয়ে যান মহাদেব। —ফাইল চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ২৮ মার্চ ২০২৩ ১৪:৫৫
Share: Save:

প্রায় ২৪ ঘণ্টা নিখোঁজ ছিলেন ভারতীয় ক্রিকেটার কেদার যাদবের বাবা মহাদেব যাদব। অবশেষে তাঁর খোঁজ মিলেছে। তাঁকে উদ্ধার করে বাড়ি পৌঁছে দিয়েছে পুলিশ। বাবার খোঁজ পাওয়ার পরে পুলিশকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন ভারতীয় ক্রিকেটার। যাঁরা তাঁর জন্য প্রার্থনা করেছেন তাঁদেরও ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি।

পুণের কোঠরূড় এলাকায় পালাডিয়াম সিটিতে থাকেন কেদার। পুলিশ জানিয়েছে, সোমবার সকাল সাড়ে ১১টা থেকে নিখোঁজ ছিলেন কেদারের বাবা মহাদেব। বাড়ির সামনে থেকে একটি অটো ধরেছিলেন। তার পর থেকেই খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। বাড়ির নিরাপত্তারক্ষীদের ভুল বুঝিয়ে তিনি বেরিয়ে যান। তার পর থেকে তাঁর মোবাইল বন্ধ ছিল। নিজের ইনস্টাগ্রামে বাবার নিখোঁজের কথা পোস্ট করে সাহায্যের আবেদন করেন কেদার।

মহাদেবের ছবি চারদিকে ছড়িয়ে দিয়েছিল পুলিশ। সেখানে তাঁর বর্ণনা দিয়ে লেখা ছিল, মহাদেব সাড়ে পাঁচ ফুট লম্বা। মুখে বাঁ দিকে একটি দাগ রয়েছে। সাদা রংয়ের জামা এবং ধূসর রংয়ের পাজামা পরেছিলেন তিনি। পায়ে ছিল কালো জুতো। চোখে চশমা। ডান হাতের আঙুলে দু’টি সোনার আংটি রয়েছে। মরাঠি ছাড়া কোনও ভাষায় কথা বলতে পারেন না।

তদন্তকারী এক অফিসার সূর্যকান্ত সাপ্তালে জানিয়েছেন, মহাদেব ডিমেনশিয়াতে ভুগছেন। অতীতেও নাকি বাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ আশেপাশের সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখে। আশপাশের বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে। অবশেষে মঙ্গলবার উদ্ধার করা হয় তাঁকে। তার পরে কেদারকে খবর দেওয়া হয়। জরুরি পুলিশি প্রক্রিয়া মিটে যাওয়ার পরে মহাদেবকে তাঁর বাড়িতে পৌঁছে দেয় পুলিশ।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

Kedar Jadhav India Cricket Pune Police
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE