Advertisement
০৪ মার্চ ২০২৪
Pakistan Cricket Team

কী ভাবে সুস্থ হলেন? টি২০ বিশ্বকাপে মাঠে নামার আগে জানালেন পাক জোরে বোলার

এমন গুরুতর চোট অতীতে কখনও পাননি। হাঁটুর চোট কেড়ে নিয়েছে শাহিনের ক্রিকেটজীবনের তিন মাস। খেলতে পারেননি এশিয়া কাপেও। ক্রিকেট থেকে দূরে থাকার সময়ের অভিজ্ঞতা জানিয়েছেন পাক জোরে বোলার।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিজের সেরাটা দিতে চান শাহিন।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিজের সেরাটা দিতে চান শাহিন। ছবি: টুইটার।

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ২১ অক্টোবর ২০২২ ১৭:৩৪
Share: Save:

হাঁটুর চোট সারিয়ে তিন মাস পর ক্রিকেটে ফিরেছেন শাহিন আফ্রিদি। এখনও প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচ না খেলেননি। অনুশীলনে আগ্রাসী মেজাজে দেখা যাচ্ছে পাকিস্তানের জোরে বোলারকে। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাবর আজ়মের অন্যতম ভরসা জানিয়েছেন, মাঠ থেকে দূরে থাকার দিনগুলির কথা।

এশিয়া কাপে তাঁকে পাকিস্তান দলে রাখলেও শেষ পর্যন্ত খেলতে পারেননি। অস্ত্রোপচারের জন্য শাহিনকে লন্ডন পাঠায় পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড। শাহিন বলেছেন, ‘‘সুস্থ হয়ে ওঠার প্রক্রিয়াটা বেশ কঠিন ছিল। অনেকগুলো ম্যাচ খেলতে পারিনি। মাঠ থেকে অনেক দূরে থাকলেও সতীর্থদের সঙ্গে যোগাযোগ ছিল। ফোনে নিয়মিত কথা বলতাম ওদের সঙ্গে।’’ কেমন ছিল সুস্থ হয়ে ওঠার সেই সময়? শাহিন বলেছেন, ‘‘প্রথম দিকে হাঁটতেই পারছিলাম না। তবু টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলার লক্ষ্য নিয়ে এগিয়েছি। চিকিৎসকদের সব পরামর্শ মেনে চলার চেষ্টা করেছি। আগে কখনও এ ধরনের চোট পাইনি। অবলম্বনের সাহায্যে হাঁটতে হচ্ছিল, এই ব্যাপারটা মেনে নেওয়া খুব কঠিন ছিল। খুব যন্ত্রণা হত। পরে যন্ত্রণাটা সহ্য হয়ে যায়। আস্তে আস্তে কমে যায়।’’

সুস্থ হওয়া প্রসঙ্গে শাহিন বলেছেন, ‘‘ধীরে ধীরে সুস্থ হয়েছি। প্রথমে ৮০ শতাংশ ফিটনেস ফিরে পাই। পরে ৯০ শতাংশ, তার পর ১০০ শতাংশ। বড় চোট থেকে ফেরার সময় ঠিক মতো কিছু করা যায় না। শরীর তেমন সক্রিয় থাকে না। বুঝেছিলাম, আমাকে ধৈর্য্য ধরতে হবে। এই সময়ে পাশে থাকা ভক্ত এবং অনুরাগীদের ধন্যবাদ জানাতে চাই।’’

ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রস্তুতি ম্যাচে উইকেট পাননি শাহিন। ২ ওভার বল করে মাত্র ৭ রান দিয়েছেন। আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে প্রস্তুতি ম্যাচে ২ উইকেট পেয়েছেন বাঁহাতি জোরে বোলার।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE