×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৮ জুলাই ২০২১ ই-পেপার

‘এই সময়টা যেন ভয়ঙ্কর উইকেটে টেস্ট ম্যাচ খেলা’

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ০৩ মে ২০২০ ১৬:৫২
দ্রুত এই পরিস্থিতির অবসান চাইছেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। ছবি: এএফপি।

দ্রুত এই পরিস্থিতির অবসান চাইছেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। ছবি: এএফপি।

করোনাভাইরাস নিয়ে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে উদ্বিগ্ন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। ভারতের ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের প্রেসিডেন্ট এই অভূতপূর্ব সঙ্কটকে ভয়ঙ্কর উইকেটে হওয়া টেস্ট ম্যাচের সঙ্গে তুলনা করেছেন।

বিশ্ব জুড়ে ৩৪ লক্ষের মতো মানুষ কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত। মৃত্যুর সংখ্যা আড়াই লক্ষের কাছাকাছি। একটি অনুষ্ঠানে সৌরভ বলেছেন, “এই মুহূর্তের পরিস্থিতি বিপজ্জনক পিচে টেস্ট ম্যাচ হওয়ার মতো। বল সিম করছে, ঘুরছেও। ব্যাটসম্যান সামান্য ভুল করলেই মুশকিল। ব্যাটসম্যানকে আবার উইকেট বাঁচিয়ে রাখার পাশাপাশি রানও করতে হবে। মাথায় রাখতে হবে মার্জিন অফ এরর খুব সামান্য। আর সেই ভাবেই জিততে হবে টেস্ট।”

করোনা-পরিস্থিতি যে কাটিয়ে ওঠা যাবে, সেই বিষয়ে আশাবাদী সৌরভ। তিনি বলেছেন, “এটা খুব কঠিন সময়। তবে আমরা আশা করছি যে একসঙ্গে লড়াই করে এই ম্যাচটা জিততে পারব।” মৃত্যুর সংখ্যা যে ভাবে বাড়ছে, তাতে ব্যথিত ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ক। তিনি বলেছেন, “বর্তমান পরিস্থিতি দেখে খুব হতাশ। কত মানুষ কষ্ট পাচ্ছেন। কী ভাবে এটা থামানো যাবে, তা বুঝতে এখনও হিমসিম খাচ্ছি আমরা। বিশ্ব জুড়ে এই পরিস্থিতিতে আমি উদ্বিগ্ন। জানি না কী ভাবে, কখন আর কোথা থেকে এটা এল। এমন কিছুর জন্য আমরা কেউই প্রস্তুত ছিলাম না।”

Advertisement

আরও পড়ুন: নাইটদের হয়ে শেষ ম্যাচ খেলার আগে শাহরুখকে কী বলবেন, জানিয়ে দিলেন রাসেল​

আরও পড়ুন: ‘আজীবন নির্বাসন হোক উমর আকমলের, বাজেয়াপ্ত করা হোক যাবতীয় সম্পত্তি’

শুধু হতাশাই নয়, আতঙ্কও ঘিরে ধরছে সৌরভকে। তাঁর কথায়, “এত মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন করোনায়। কত মৃত্যু ঘটছে। এই পরিস্থিতিতে ভয়ও পাচ্ছি। আমার বাড়িতেও অনেক আসেন নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য, সবজি বিক্রি করতে। আমি খুবই ভীত হয়ে পড়েছি। যত দ্রুত সম্ভব এই পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসতে চাইছি।”

ক্রিকেটীয় শিক্ষা এই পরিস্থিতিতে কাজে লাগাচ্ছেন বলেও জানিয়েছেন প্রাক্তন জাতীয় অধিনায়ক। সৌরভ বলেছেন, “ক্রিকেট আমাকে অনেক কিছু শিখিয়েছে। খুব চাপের পরিস্থিতির মোকাবিলা করেছি জীবনে। যেখানে হয়তো একটাই বল বাকি আর রান করতেই হবে। একটা ভুল, একটা বেঠিক ফুটওয়ার্ক মানেই আর সুযোগ নেই। এই ধরনের পরিস্থিতি সব সময় সতর্ক রাখে আর বাস্তব পরিস্থিতি সম্পর্কে সচেতন করে তোলে।”

Advertisement