Advertisement
১৪ এপ্রিল ২০২৪
Indian Football

ভারতীয় ফুটবলে ম্যাচ গড়াপেটার অভিযোগ, শুরু তদন্ত, নিলম্বিত ক্লাব

দিল্লি প্রিমিয়ার লিগে খেলার সময় আহবাব এফসি বনাম রেঞ্জার্স এসসি-র ম্যাচে দু’টি আত্মঘাতী গোল নিয়ে তৈরি হয় বিতর্ক। অভিযোগ উঠেছে ম্যাচ গড়াপেটার। তার পরেই ব্যবস্থা নিল দিল্লি ফুটবল সংস্থা।

Representative image of football

—প্রতীকী চিত্র।

আনন্দবাজার অনলাইন ডেস্ক
কলকাতা শেষ আপডেট: ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১৫:১৪
Share: Save:

নিলম্বিত করে দেওয়া হল আহবাব এফসি-কে। দিল্লির ফুটবল সংস্থা মঙ্গলবার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। দিল্লি প্রিমিয়ার লিগে খেলার সময় আহবাব এফসি বনাম রেঞ্জার্স এসসি-র ম্যাচে দু’টি আত্মঘাতী গোল নিয়ে তৈরি হয় বিতর্ক। অভিযোগ উঠেছে ম্যাচ গড়াপেটার। তার পরেই ব্যবস্থা নিল দিল্লি ফুটবল সংস্থা। তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত নিলম্বিত করা হল আহবাব এফসি-কে।

দিল্লি ফুটবল সংস্থার পক্ষ থেকে সমাজমাধ্যমে পোস্ট করে জানানো হয়, “দিল্লি ফুটবলার সংস্থা জরুরি ভিত্তিতে একটি বৈঠক করে। সেখানে দিল্লি প্রিমিয়ার লিগে ম্যাচ গড়াপেটা নিয়ে যে অভিযোগ উঠেছে, তা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। সেই বৈঠকে নেওয়া সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আহবাব এফসি-কে এই মুহূর্ত থেকে নিলম্বিত করা হল। তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত এই ক্লাবটি নিলম্বিত থাকবে।”

দিল্লি প্রিমিয়ার লিগের একটি ম্যাচে রেঞ্জার্স দলের দুই ফুটবলার এমন দু’টি আত্মঘাতী গোল করেছেন যা সাধারণত ফুটবলে দেখতে পাওয়া যায় না। সেটা নিয়েই জল্পনা শুরু হয়েছে। এই লিগ চালায় দিল্লি ফুটবল সংস্থা। আহবাব এফসি বনাম রেঞ্জার্স এসসি-র খেলা ছিল। সেই ম্যাচের শেষ ১০ মিনিটে রেঞ্জার্সের দু’টি আত্মঘাতী গোল হয়। সেই গোল দু’টির ভিডিয়ো ছড়িয়ে পড়েছে সমাজমাধ্যমে। আপাতদৃষ্টিতে দেখে মনে হয়েছে, বিপক্ষ দলকে সুবিধা পাইয়ে দেওয়ার জন্যই দু’টি গোল করা হয়েছে।

দু’টি ক্ষেত্রেই রেঞ্জার্সের দুই ফুটবলার নিজেদের মধ্যে পাস খেলতে খেলতে বল নিজেদেরই গোলে ঠেলে দিয়েছেন। এমন সময় সেই কাজ করেছেন, যখন গোলকিপার নিজের জায়গাতেই ছিলেন না। গোলগুলির সময় বিপক্ষ দলের কোনও চাপও ছিল না।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

Indian Football match fixing suspended
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE