Advertisement
২৯ জানুয়ারি ২০২৩
FIFA World Cup 2022

জন্মের সময়ই লেখা হয়েছিল মৃত্যুর পরোয়ানা, বিশ্বকাপ শেষের আগেই ইতিহাসে স্টেডিয়াম ৯৭৪

দুর্গাপুজোর মন্ডপ খুলে নিয়ে গিয়ে যেমন অন্যত্র কালীপুজোয় ব্যবহার করা হয়, তেমন ভাবেই ব্যবহার করা হবে কাতার বিশ্বকাপের স্টেডিয়াম ৯৭৪। বিশ্বকাপ শেষের আগেই স্টেডিয়াম খোলার কাজ শুরু হল।

বিশ্বকাপ শেষ হওয়ার আগেই স্টেডিয়াম ৯৭৪ খুলে ফেলার কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে।

বিশ্বকাপ শেষ হওয়ার আগেই স্টেডিয়াম ৯৭৪ খুলে ফেলার কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে। ছবি: টুইটার।

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ০৯ ডিসেম্বর ২০২২ ১৯:০৭
Share: Save:

বিশ্বকাপ ফুটবল সবে মাঝ পথে। এখনও বাকি আটটি ম্যাচ। অথচ অর্ধেক খুলে ফেলা হয়েছে একটি স্টেডিয়াম। দিন কয়েক আগে যে স্টেডিয়ামে লিয়োনেল মেসির আর্জেন্টিনা মরণ বাঁচন ম্যাচ খেলেছেন পোল্যান্ডের বিরুদ্ধে। দ্বিতীয় রাউন্ডের ব্রাজিল-দক্ষিণ কোরিয়া ম্যাচও হয়েছে এই স্টেডিয়ামে।

Advertisement

স্টেডিয়াম ৯৭৪। কাতার বিশ্বকাপের আটটি স্টেডিয়ামের অন্যতম। জন্মের সময়ই মৃত্যুর পরোয়ানা লেখা হয়ে গিয়েছিল এই স্টেডিয়ামের। বিশ্বকাপ ফুটবলের জন্য অস্থায়ী ভাবে তৈরি করা হয়েছিল স্টেডিয়ামটি। কাতারের রাস আবু আবৌদ এলাকায় তৈরি করা হয়েছিল ৪৪ হাজার দর্শকাসন বিশিষ্ট স্টেডিয়ামটি। নির্মাণে ব্যবহার করা হয়েছিল ৯৭৪টি শিপিং কন্টেনার। কাতারের আন্তর্জাতিক ডায়ালিং কোডও +৯৭৪। তাই স্টেডিয়ামটির নাম দেওয়া হয় ৯৭৪। এলাকাটি কাতারের একটি প্রাচীণ শিল্পাঞ্চল। তা স্মরণ করতেই নির্মাণে ব্যবহার করা হয়েছিল শিপিং কন্টেনার।

বিশ্বকাপের সাতটি ম্যাচ হয়েছে এই মাঠে। ২০২১ সালে ৩০ নভেম্বর উদ্বোধন করা হয় স্টেডিয়ামটির। গত ৫ ডিসেম্বর ব্যবহারের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয় স্টেডিয়াম ৯৭৪। তার পরেই মডিউলার স্টেডিয়ামটি খুলে ফেলার কাজ শুরু হয়েছে। ৪৪ হাজার ৮৯টি দর্শকাসন ছিল এই স্টেডিয়ামে। ৩০ নভেম্বর আর্জেন্টিনা-পোল্যান্ড ম্যাচে একটি আসনও খালি ছিল না স্টেডিয়ামের। সে দিন মেসি, লেয়নডস্কিদের ম্যাচের পরেই কাতার প্রশাসনের তরফে বন্ধ করে দেওয়া হয় স্টেডিয়াম ৯৭৪।

২০২১ সালের ৩০ নভেম্বর আরব কাপের খেলা দিয়ে উদ্বোধন হয়েছিল স্টেডিয়ামটির। সংযুক্ত আরব আমিরশাহি এবং সিরিয়ার ম্যাচ ছিল প্রথম দিন। প্রতিযোগিতার ছ’টি ম্যাচ হয়েছিল স্টেডিয়াম ৯৭৪-এ।

Advertisement

স্টেডিয়ামটি খুলে ফেলা হলেও বাতিল করা হবে না। আফ্রিকার কোনও দেশকে স্টেডিয়ামটি দিয়ে দেওয়া হতে পারে। সব কিছু সেই দেশে নিয়ে দিয়ে আবার গড়ে তোলা হবে নতুন ফুটবল স্টেডিয়াম। ৯৭৪টি শিপিং কন্টেনর-সব অন্যান্য সামগ্রী জাহাডে চড়ে পারি দিয়ে পারে উরুগুয়েতে। ২০৩০ সালের বিশ্বকাপ আয়োজনের অন্যতম দাবিদার উরুগুয়ে। আর্জেন্টিনা, চিলি, প্যারাগুয়ের সঙ্গে প্রতিযোগিতা আয়োজনের দাবি জানিয়েছে তারা। শেষ পর্যন্ত তারা দায়িত্ব পেলে স্টেডিয়ামটি নিয়ে যাওয়া হবে উরুগুয়েতে। আফ্রিকার কোনও দেশ বা বা উরুগুয়ের স্থায়ী বাসিন্দা হবে কাতার বিশ্বকাপের স্টেডিয়াম ৯৭৪।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.