Advertisement
০৯ ডিসেম্বর ২০২২
FIFA World Cup 2022

কাতার বিশ্বকাপকে ‘ইতিহাসের জঘন্যতম’ বলে দিলেন প্রাক্তন মিস ক্রোয়েশিয়া, কেন?

বিশ্বকাপ দেখতে আসা মহিলাদের পোশাকের উপর বিধিনিষেধ জারি করেছে কাতার প্রশাসন। যতটা সম্ভব শরীর ঢাকা পোশাক পরতে বলা হয়েছে। ছোট টপ বা স্কার্ট পরা যাবে না। গলায় রাখতে হবে স্কার্ফ।

মরক্কোর বিরুদ্ধে ক্রোয়েশিয়ার ম্যাচ দেখতে এই পোশাক পরে মাঠে গিয়েছিলেন ইবানা।

মরক্কোর বিরুদ্ধে ক্রোয়েশিয়ার ম্যাচ দেখতে এই পোশাক পরে মাঠে গিয়েছিলেন ইবানা। ছবি: টুইটার।

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ২৪ নভেম্বর ২০২২ ১৯:২২
Share: Save:

জঘন্যতম বিশ্বকাপ হচ্ছে কাতারে। ঠিক এভাবেই বিশ্বকাপের আয়োজক কাতার এবং ফিফার সমালোচনা করলেন বিশ্বের অন্যতম লাস্যময়ী ফুটবল সমর্থক। তিনি ক্রোয়েশিয়ার ইবানা নোল।

Advertisement

ক্রোয়েশিয়ার ম্যাচ থাকলেই গ্যালারিতে দেখা যায় ইবানাকে। দেশের জাতীয় পতাকার আদলে বিশেষ পোশাক তৈরি করেন। সেই পোশাক পরেই প্রিয় দলকে সমর্থন জানান। ইবানা ফুটবল বিশ্বে পরিচিতি মুখ। ফুটবল ছাড়া কিছু বোঝেন না লাস্যময়ী তরুণী। কাতার বিশ্বকাপ দেখতে গিয়ে সমস্যায় বিরক্ত ইবানা। ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছেন, ‘‘ইতিহাসের জঘন্যতম ফুটবল বিশ্বকাপ হচ্ছে কাতারে।’’ মরক্কোর বিরুদ্ধে লুকা মদ্রিচদের খেলা দেখতে স্টেডিয়ামে উপস্থিত ছিলেন ইবানা।

ইবানা পেশায় মডেল। তিনি প্রাক্তন মিস ক্রোয়েশিয়া। ছোট থেকেই ফুটবল ভক্ত। ২০১৮ সালের রাশিয়া বিশ্বকাপের সময় গ্যালারির উষ্ণতা বৃদ্ধি করেছিলেন নানা রকম আকর্ষণীয় পোশাকে। বিরক্তি প্রকাশ করে তিনি সমাজমাধ্যমে লিখেছেন, ‘এটা একটা বিপর্যয়। যাঁরা এ বার বিশ্বকাপ দেখতে যেতে পারেননি তাঁদের জন্য আমার খুবই খারাপ লাগছে। তাঁরা ইতিহাসের জঘন্যতম বিশ্বকাপের অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারলেন না।’

কেন জঘন্যতম বলছেন কাতার বিশ্বকাপকে? ইবানা বলেছেন, ‘‘২০ দিন বা তারও বেশি অপেক্ষা করতে হচ্ছে হায়া কার্ড পেতে। খেলা দেখার টিকিট থাকলেও হায়া কার্ড পাওয়া যাচ্ছে না। বিশ্বকাপ দেখার জন্য এত রকম কাগজপত্র কখনও দরকার হয়নি। এই সব কারণের জন্যই অনেকে এ বারের সার্কাসে অংশগ্রহণ করতে চাইছেন না।’’

Advertisement

বিশ্বকাপ শুরুর দু’দিন আগে কাতার রাজপরিবারের ইচ্ছায় নিষিদ্ধ হয়েছে স্টেডিয়ামে বিয়ার বিক্রি। সমর্থকদের পোশাকের উপরেও নানা বিধিনিষেধের কথা বলা হয়েছে কাতার প্রশাসনের তরফে। এই সব কিছু নিয়েও বিরক্তি প্রকাশ করেছেন ইবানা। তাঁকে গ্যালারিতে সাধারণত খোলামেলা পোশাকেই দেখা যায়। এমনি সময়ও সাহসী পোশাক পরেন তিনি। সমাজমাধ্যমে ক্রোয়েশিয়ার জাতীয় পতাকার রঙের বিকিনি পরা ছবি দিয়ে ইবানা লিখেছেন, ‘কাতারে কি এই পোশাক পরতে পারব?’ কাতারের আইন কানুনে বিরক্ত ইবানা সাফ জানিয়েছেন নিজের ইচ্ছা মতো পোশাকই পরবেন।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.