Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৬ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

EPL 2021: দুরন্ত হ্যাটট্রিকে সালাহই ওল্ড ট্র্যাফোর্ডের সম্রাট

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ২৫ অক্টোবর ২০২১ ০৯:০১
হর্ষ-বিষাদ: ছন্দে ছিলেনই। ম্যান ইউয়ের বিরুদ্ধেও তাঁর দাপট বজায় রেখে হ্যাটট্রিক করে ফেললেন লিভারপুলের সালাহ। ইপিএলে তাঁর দল জিতল ৫-০।

হর্ষ-বিষাদ: ছন্দে ছিলেনই। ম্যান ইউয়ের বিরুদ্ধেও তাঁর দাপট বজায় রেখে হ্যাটট্রিক করে ফেললেন লিভারপুলের সালাহ। ইপিএলে তাঁর দল জিতল ৫-০।
(ডান দিকে) হতাশ রোনাল্ডোরা। রবিবার। রয়টার্স

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ

ম্যান ইউ লিভারপুল

Advertisement

লিভারপুল সমর্থকদের নয়নের মণি তিনি। ‍‘মিশরীয় মেসি’ সেই মহম্মদ সালাহকে ‍আদর করে ‍‘কিং’ বলে ডাকেন লিভারপুল অনুরাগীরা। ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে এই ম্যাচের আগে আট ম্যাচে সাত গোল করে ও চার গোল করিয়ে সালাহ ভক্তদের বার্তা দিয়েছিলেন, লিভারপুলের বিরুদ্ধে ম্যান ইউ সহজে জিতে ফিরতে পারবে না। কিন্তু ৫-০ জয় যে আসতে চলেছে, তা বোধহয় স্বপ্নেও ভাবতে পারেননি অতি বড় লিভারপুল সমর্থকও।

রবিবার ম্যান ইউয়ের ঘরের মাঠে গিয়ে ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর সঙ্গে দ্বৈরথে দুরন্ত হ্যাটট্রিক করে সবাইকে চুপ করিয়ে দিলেন সালাহ। তাঁর প্রতিপক্ষ রোনাল্ডো দ্বিতীয়ার্ধে একটি গোল করেছিলেন বটে। কিন্তু ভিডিয়ো প্রযুক্তির সাহায্য নিয়ে রেফারি অফসাইডের কারণে সেই গোল বাতিল করেন। লিভারপুলের বাকি গোলদাতারা হলেন ন্যাবি কেইটা ও দিয়েগো জ়োটা। একই সঙ্গে লিভারপুল ম্যানেজার হিসেবে ২০০তম ম্যাচে জয় পেলেন লিভারপুল ম্যানেজার ক্লপও।

ম্যান ইউয়ের বিরুদ্ধে বড় ব্যবধানে এই জয়ের ফলে ৯ ম্যাচের পরে ২১ পয়েন্ট নিয়ে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে দ্বিতীয় স্থানে থাকল লিভারপুল। অন্য দিকে, ইপিএলে ফের হারের ফলে ৯ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে সাত নম্বরে চলে গেলেন রোনাল্ডোরা।

তাঁদের শিবিরে আরও বড় ধাক্কা বিপক্ষের গোলদাতা কেইটাকে অবৈধ ভাবে ট্যাকল করে পল পোগবার লাল কার্ড দেখা। দ্বিতীয়ার্ধে পরিবর্ত হিসেবে নেমে মাত্র ১৫ মিনিট মাঠে ছিলেন ফরাসি তারকা। ইপিএলে ম্যান ইউ শেষ ম্যাচ জিতেছিল সেই ১৯ সেপ্টেম্বর। ওয়েস্ট হ্যামের বিরুদ্ধে। তার পরে অ্যাস্টন ভিলা ও লেস্টার সিটির বিরুদ্ধে হার এবং এভার্টনের সঙ্গে ড্রয়ের পরে এ দিন বিধ্বস্ত হল চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী লিভারপুলের বিরুদ্ধে। এই ম্যাচের আগে ম্যান ইউ ম্যানেজার ওয়ে গুন্নার সোলসার বলেছিলেন, খারাপ সময় কেটে গিয়ে এ বার বড় কিছু ঘটবে। কিন্তু ঘরের মাঠে যে এত বড় লজ্জার হার অপেক্ষা করে রয়েছে, তা তিনি ভাবতে পারেননি।

ম্যান ইউয়ের বিরুদ্ধে শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ছিল লিভারপুল। পাঁচ মিনিটে সালাহের থেকে বল পেয়ে ম্যান ইউয়ের দুর্বল রক্ষণকে পরাস্ত করে লিভারপুলকে ১-০ এগিয়ে দিয়েছিলেন কেইটা। এই গোলের আট মিনিট পরে কেইটার পা ঘুরে আসা বল ধরে ২-০ করেন দিয়েগো জ়োটা। আর তার পরেই শুরু সালাহের হ্যাটট্রিক। ৩৮ মিনিটে কেইটার পা ঘুরে আসা বল ধরে লিভারপুলের তৃতীয় এবং নিজের প্রথম গোলটি করেন তিনি। প্রথমার্ধের সংযুক্ত সময়ে এ বার জ়োটার বাড়ানো বল ধরে ৪-০ করেন সালাহ। এই গোলের পরেই মাঠ ছাড়তে শুরু করেন ম্যান ইউ সমর্থকেরা। আর তাঁদের ঘুরে দাঁড়ানোর আশা আরও নিরাশায় পরিণত করেন সালাহ দ্বিতীয়ার্ধে খেলা শুরু হওয়ার পরে। ৫০ মিনিটে পোগবার পা থেকে বল কেড়ে তা সালাহকে বাড়িয়েছিলেন জর্ডান হেন্ডারসন। যা ধরে দলের পঞ্চম ও নিজের হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন
‘মিশরের মেসি’।

সাত গোলে জয় চেলসির: মেসন মাউন্টের হ্যাটট্রিকের সৌজন্যে নরউইচ সিটিকে সাত গোলে হারাল চেলসি। একই দিনে ফিল ফোডেনের জোড়া গোলে ম্যাঞ্চেস্টার সিটি ৪-১ হারিয়েছে ব্রাইটনকে। ইপিএল লিগ টেবলে এখন চেলসি (৯ ম্যাচে ২২ পয়েন্ট) শীর্ষে। স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে শনিবার থোমাস টুহলের দল বড় ব্যবধানে জিতে বুঝিয়ে দিল, তারা কেন এ বারে লিগ জয়ের বড় দাবিদার। তার উপর চোট থাকায় রোমেলু লুকাকু আর টিমো ওয়ের্নারকে পায়নি তারা। তবে আধ ঘণ্টার বেশি সময় দশ জনে খেলেছে নরউইচ। লিগ টেবলেও তারা একেবারে শেষে। প্রথম ১৮ মিনিটেই ২-০ এগিয়ে যায় চেলসি। মরসুমে নিজেদের প্রথম গোল করেন মাউন্ট (৮ মিনিট) ও ক্যালম হাডসন-ওদোই। ৪২ মিনিটে রিস জেমসের গোলও মাউন্টের পাস থেকে। টানা চার ম্যাচে গোল করে চমকে দিলেন ডিফেন্ডার বেন চিলওয়েল (৫৭ মিনিট)। নরউইচের আত্মঘাতী গোল (৬২ মিনিটে) চেলসির কাজ সহজ করে দেয়। দু’টি হলুদ কার্ড দেখে নরউইচের স্টপার বেন গিবসন বহিষ্কৃত হন ৬৫ মিনিটে। এর পরেই মাউন্ট হ্যাটট্রিক সম্পূর্ণ করেন (৮৫ ও ৯০+১ মিনিটে)। তাঁর দ্বিতীয় গোলটি পেনাল্টিতে। টুহল মাউন্ট আর হাডসন-ওদোইকে দু’প্রান্তে রেখে কাই হাভার্ৎজ়কে ‘ফলস নাইন’-এ খেলান। যে রণনীতির সামনে দিশেহারা দেখিয়েছে নরউইচকে। চ্যাম্পিয়ন্স লিগ-জয়ী চেলসি লিগে ৯ ম্যাচে ২৩ গোল করে ফেলল। টুহলের অধীনে একেবারে পাল্টে যাওয়া দল মনে হচ্ছে চেলসিকে। নায়ক মাউন্টকে নিয়ে উচ্ছ্বসিত টুহল। অবশ্য এখনই তিনি বলছেন না, চেলসি লিগ খেতাবের দাবিদার। অন্য দিকে, কলকাতায় যুব বিশ্বকাপে খেলে যাওয়া, দুরন্ত ছন্দে থাকা ফোডেনকে নিয়েও একই রকম উচ্ছ্বসিত পেপ গুয়ার্দিওলা।

আরও পড়ুন

Advertisement