Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৬ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

বিশ্বকাপ ফাইনালের টিকিট না পেয়ে তোপ তরুণের

অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ ফাইনালের টিকিট জোগাড় করতে গিয়ে কী ভাবে অপদস্থ হয়েছেন, নিজের ওয়ালে সেটাও উল্লেখ করছেন প্রাক্তন তারকা।

নিজস্ব সংবাদদাতা
৩১ অক্টোবর ২০১৭ ০৪:০৯
Save
Something isn't right! Please refresh.
তরুণ দে

তরুণ দে

Popup Close

অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ শেষ হয়ে গেলেও অব্যাহত টিকিট-বিতর্ক! সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং ওয়েবসাইটে এ বার তোপ দাগলেন প্রাক্তন অধিনায়ক তরুণ দে।

ভারতীয় দলের প্রাক্তন অধিনায়ক মেয়েকে কথা দিয়েছিলেন যুবভারতীতে অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ ফাইনাল দেখাতে নিয়ে যাবেন। কিন্তু আপ্রাণ চেষ্টা করেও টিকিট জোগাড় করতে পারেননি। সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং ওয়েবসাইটে নিজের ওয়ালে তাঁর হতাশা প্রকাশ করতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে ফুটবলমহলে। তরুণ বললেন, ‘‘নিজেকে ফুটবলার হিসেবে পরিচয় দিতেই এখন লজ্জা করছে। মেয়েকে বলেছিলাম অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ ফাইনাল দেখাতে যুবভারতীতে নিয়ে যাব। আমি কথা রাখতে পারিনি। একজন বাবার কাছে এর চেয়ে যন্ত্রণার কিছু হয় না।’’

আরও পড়ুন: যুবভারতী চাইলে টাকা দিতে হবে দুই প্রধানকে

Advertisement

অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ ফাইনালের টিকিট জোগাড় করতে গিয়ে কী ভাবে অপদস্থ হয়েছেন, নিজের ওয়ালে সেটাও উল্লেখ করছেন প্রাক্তন তারকা। তরুণ বললেন, ‘‘ফাইনালের দু’টো টিকিট দেওয়ার জন্য আমি অনেককেই অনুরোধ করছিলাম। এক জন আমাকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন টিকিট দেওয়ার। সেমিফাইনালের পরের দিন তাঁর দফতরে গিয়েছিলাম। স্লিপ দিয়েও দেখা হয়নি। আধঘণ্টা অপেক্ষা করে খালি হাতে ফিরে এসেছিলাম।’’ হতাশ তরুণ ফেসবুকে লেখেন, ‘প্রাক্তন ফুটবলার হয়ে টিকিটের জন্য সাধারণ মানুষের সঙ্গে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা আমার কাছে অত্যন্ত অপমানজনক মনে হয়েছিল।’



ক্ষোভ: তরুণ দে-র ফেসবুক পোস্ট। যা নিয়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে ক্রীড়ামহলে।

যুবভারতীতে অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ ফাইনালের টিকিট পাননি জাতীয় দলের আর এক প্রাক্তন ফুটবলার কুমারেশ ভাওয়ালও। তাঁর অভিযোগ, ‘‘বিশ্বকাপের আগে শুনেছিলাম, জাতীয় দলের প্রাক্তন ফুটবলাররা টিকিট পাবে। কলকাতায় এতগুলো ম্যাচ হওয়া সত্ত্বেও কোনও টিকিট পাইনি। শুনলাম, টিকিট নাকি লটারির মাধ্যমে দেওয়া হয়েছে। খোঁজ নিয়ে জেনেছি, সেই তালিকায় আমার নাকি নাম ছিল না!’’ কুমারেশ শেষ পর্যন্ত এক বন্ধুর কাছে টিকিট পেয়ে ফাইনাল দেখতে গিয়েছিলেন।’’

অনূর্ধ্ব-১৭ শুরু হওয়ার সপ্তাহখানেক আগে থেকেই টিকিটের হাহাকার শুরু হয়ে গিয়েছিল। পরিস্থিতি সামলাতে আইএফএ-র তরফে লটারির মাধ্যমে প্রাক্তন ফুটবলারদের অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপের টিকিট দেওয়া হয়। তাতেও সমস্যার সমাধান হয়নি। সচিব উৎপল গঙ্গোপাধ্যায়ের দাবি ফিফা-র কাছে ম্যাচ পিছু ২২০টি টিকিট চাওয়া হয়েছিল। কিন্তু ফিফা মাত্র ৮৫টি টিকিট দেয়। এই কারণেই লটারির মাধ্যমে টিকিট দেওয়া হয়েছিল প্রাক্তন ফুটবলারদের।



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement