×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৫ জুন ২০২১ ই-পেপার

চিড়িয়াখানার জন্তুদের মতো থাকতে রাজি নই, সাফ জানালেন রাহানেরা

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ০৪ জানুয়ারি ২০২১ ১১:০৪
পূজারা, রোহিতরা কড়া নিভৃতবাসে আর থাকতে চান না। ফাইল ছবি

পূজারা, রোহিতরা কড়া নিভৃতবাসে আর থাকতে চান না। ফাইল ছবি

দর্শকদের খেলা দেখতে আসতে অনুমতি দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু ক্রিকেটারদের থাকতে হচ্ছে নিভৃতবাসে। অস্ট্রেলিয়া বোর্ডের এই দ্বিচারিতা মেনে নিতে পারছে না ভারতীয় শিবির। সাফ কথা, চিড়িয়াখানার জন্তুর মতো থাকতে কোনও ভাবেই রাজি নয় তাঁরা।

ভারতের প্রত্যেক সদস্যের কোভিড পরীক্ষার ফল নেগেটিভ এসেছে। তাই বাকি সফরে দল নিভৃতবাসে থাকতে রাজি নয়। বরং তারা চায়, সরকারি সমস্ত প্রোটোকল মেনে ‘সাধারণ অস্ট্রেলীয়’দের মতোই ঘোরাফেরা করতে। কিন্তু অস্ট্রেলীয় ক্রিকেট বোর্ড এখন তাতে পুরোপুরি অনুমতি দেয়নি।

ভারতীয় দলের এক সূত্র এক ওয়েবসাইটে বলেছেন, “মাঠে দর্শক আসার অনুমতি দিয়ে ওদের স্বাধীনতা দেওয়া হচ্ছে। এ দিকে যারা মাঠে খেলছে, তাদের পরে হোটেলে গিয়ে নিভৃতবাসে থাকতে হচ্ছে। তা-ও আবার কোভিড পরীক্ষায় নেগেটিভ হওয়ার পরে। এ ভাবে চিড়িয়াখানার জীবজন্তুদের মতো থাকতে চাই না আমরা।”

Advertisement

আরও খবর: সিডনি টেস্টের আগে চিন্তামুক্তি, রাহানে, রোহিতরা সবাই কোভিড নেগেটিভ

আরও খবর: অশ্বিন-জাডেজা জুটি বড় পরীক্ষা, বলছেন ওয়েড

তিনি আরও বলেছেন, “এটা কিন্তু আমরা শুরু থেকেই বলে আসছি। বাকি অস্ট্রেলীয়রা যে নিয়ম মানে সেটা আমরাও মানতে রাজি। যদি মাঠে দর্শক প্রবেশ করতে না দেওয়া হয়, তাহলে আমাদের নিভৃতবাসে থাকার একটা অর্থ আছে। এখানে পুরো উল্টো কাজকর্ম হচ্ছে।”

ব্রিসবেনে ভারত কী ভাবে থাকবে, তা জানাতে কয়েকজন মেডিক্যাল বোর্ডের সদস্য গত সপ্তাহেই ভারতীয় শিবিরে এসেছিলেন। তাঁরা নাকি জানিয়েছেন, অনুশীলন বা ম্যাচ ছাড়া হোটেলের ফ্লোর থেকে বেরনোই নিষিদ্ধ। তৎক্ষণাৎ ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্টের শীর্ষস্থানীয়রা জানিয়ে দেন, তাঁরা কোনও মতেই এ নিয়ম মানবেন না।

ওই সূত্র বলেছেন, “সিরিজের শেষের দিকে এসে এ রকম কড়া নিয়মকানুন মানার কোনও অর্থ নেই। সরকারি সমস্ত প্রোটোকল আমরা মেনে চলব। সেটা বাইরে গেলে সব সময় মাস্ক পরাই হোক বা রেড জোন এবং হটস্পট এ়ড়িয়ে চলাই হোক।”

দেশে গিয়ে অস্ট্রেলিয়ায় ফিরলে ফের নিভৃতবাসে থাকতে হবে বলে বাবার শেষকৃত্যে যেতে পারেননি মহম্মদ সিরাজ। পিতা হয়েছেন জানতে পারার পরেও ফিরতে পারেননি টি নটরাজন। সেটা উল্লেখ করে বলেছেন, “ভারত অনেক আত্মত্যাগ করেছে এই সফরে।”

Advertisement