×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

৩০ জুলাই ২০২১ ই-পেপার

ঘুমের ঘোরে বিরাট কোহালিদের সাজঘরে ঢোকার স্বপ্ন তেওয়াটিয়ার

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ০৯:৪৪
কোহালির সঙ্গে সাজঘর ভাগ করে নিতে পারবেন ভেবে উত্তেজিত তেওয়াটিয়া।

কোহালির সঙ্গে সাজঘর ভাগ করে নিতে পারবেন ভেবে উত্তেজিত তেওয়াটিয়া।

বহু দিন বিরাট কোহালির বিরুদ্ধে খেলেছেন। এ বার সুযোগ এসে গিয়েছে ভারত অধিনায়কের সঙ্গে সাজঘর ভাগ করে নেওয়ার, তাঁকে আরও কাছ থেকে দেখার। রাজস্থান রয়্যালসের হয়ে আইপিএলে নজর কেড়েছিল রাহুল তেওয়াটিয়ার অলরাউন্ড দক্ষতা। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ভারতের টি২০ দলে সুযোগ পেয়ে গিয়েছেন সেই সুবাদে। আধা ঘুমের মধ্যে জানতে পেরেছিলেন জাতীয় দলে সুযোগ পাওয়ার কথা। এখন দেখার প্রথম একাদশে জায়গা করে নিতে পারেন কি না তেওয়াটিয়া।

ভারতীয় দলে সুযোগ পেয়ে তেওয়াটিয়া অনেক বেশি উত্তেজিত কোহালির সঙ্গে সাজঘর ভাগ করে নিতে পারবেন ভেবে। তিনি বলেন, “এত দিন শুধু কোহালির বিপক্ষেই খেলেছি। এখন ওর সঙ্গে খেলব, ওর সঙ্গে সাজঘর ভাগ করে নেব। বিশ্বের সেরা কিছু ক্রিকেটারের সঙ্গে সাজঘর ভাগ করে নেওয়ার সুযোগ পেয়েছি আমি। অনেক কিছু শিখতে পারব, ওরা কী ভাবে কঠিন পরিস্থিতি সামলায় সেটা বুঝতে পারব।”

হরিয়ানার হয়ে বিজয় হজারে ট্রফি খেলতে ব্যস্ত তেওয়াটিয়া। জানতেনই না যে ভারতীয় দলে সুযোগ পেয়েছেন তিনি। চহাল যখন ফোন করে তাঁকে খবরটা দেন, তখন আধা ঘুমের মধ্যে ছিলেন তেওয়াটিয়া। তিনি বলেন, “চহাল ভাই যখন ফোন করে বলে আমি ভারতীয় দলে সুযোগ পেয়েছি, ভেবেছিলাম মজা করছে। আমি কখনও ভাবিনি ভারতীয় দলে সুযোগ পাব। মোহিত (শর্মা) ভাই ঘরে এসে খবরটা দেয় আমাকে।”

Advertisement

তেওয়াটিয়া যদিও মনে করেন আইপিএল নয়, হরিয়ানার হয়ে খেলাই তাঁকে পরিণত করেছে। এক সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, “হরিয়ানার প্রথম একাদশে জায়গা করে নেওয়া ছিল খুব কঠিন। মানসিক ভাবে শক্তিশালী করেছিল সেই লড়াই।” স্পিন বোলিং অলরাউন্ডার তেওয়াটিয়াকে হরিয়ানা দলে জায়গা পেতে লড়াই করতে হয়েছে অমিত মিশ্রর মতো স্পিনারের বিরুদ্ধে। তেওয়াটিয়া বলেন, “অমিত মিশ্রর মতো বড় স্পিনার ছিল হরিয়ানা দলে। তাকে সরিয়ে জায়গা পাওয়া বেশ কঠিন। এ ছাড়াও জয়ন্ত যাদব ছিল। যুজবেন্দ্র চহালও ভারতীয় দলের খেলা না থাকলে হরিয়ানার হয়ে খেলত। দলে এত স্পিনারের মধ্যে থেকে জায়গা করে নেওয়া বেশ কঠিন।”

দলে জায়গা করে নিতে সব সময় ভাল কিছু করে দেখাতে হতো তেওয়াটিয়াকে। অনেক সময় ছন্দ না পেলে তিনি কী ভাবে নিজেকে তৈরি করতেন? তেওয়াটিয়া বলেন, “অনেক সময় রান পেলে, উইকেট না পেলে, সময়টা কঠিন হয়ে যায়। সেই সময় হরিয়ানা ক্রিকেট বোর্ডকে পাশে পেয়েছি। অনিরুদ্ধ স্যার আত্মবিশ্বাস বাড়াতে সাহায্য করেছেন। যে কোনও সময় ফোন করলে তাঁকে পেয়েছি।”

আইপিএলের জন্যই যে নজরে পড়েছেন তা মেনে নিয়েছেন তেওয়াটিয়া। রাজস্থান রয়্যালসের হয়ে ম্যাচ জেতানো ইনিংস খেলতে পেরেও খুশি তিনি। নতুন সুযোগ পেয়ে ভাল কিছু করে দেখানোর স্বপ্ন দেখছেন ২৭ বছরের এই অলরাউন্ডার।

Advertisement