Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৪ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

গেলের মঞ্চে আলো কাড়লেন রাজস্থানের ব্যাটসম্যানরা, জাগিয়ে রাখলেন প্লে অফের আশাও

সংবাদ সংস্থা
আবু ধাবি ৩০ অক্টোবর ২০২০ ২০:৪১
জয়ের হাসি। ছবি: সোশ্যাল মিডিয়া

জয়ের হাসি। ছবি: সোশ্যাল মিডিয়া

ম্যাচের প্রথম ভাগ দেখে মনে হয়েছিল দিনটা ক্রিস গেলের। কিন্তু অন্যরকম ভেবে রেখেছিলেন রাজস্থান রয়্যালসের ব্যাটসম্যানরা। গেলের ৯৯ রানের ইনিংসে ভর করে কিংস ইলেভেন পঞ্জাব তোলে ৪ উইকেটে ১৮৫। সেই রান তাড়া করে সহজেই জয় তুলে নেয় রাজস্থান। ১৫ বল বাকি থাকতেই স্কোরবোর্ডে ওঠে ১৮৬ রান। ৭ উইকেটে জয় রাজস্থানের। এই জয়ের ফলে ১৩ ম্যাচে তাদের পয়েন্ট ১২। লিগ টেবিলে রাজস্থান উঠে এল ৫ নম্বরে। প্লে অফে যাওয়ার আশা এখনও রইল স্টিভ স্মিথের দলের।

ক্রিস গেল ফর্মে থাকা মানে যে কোনও প্রতিপক্ষের ঘুম উড়ে যাওয়া। রাজস্থানের বোলারদের আজ ছিল সেই দিন। পঞ্জাব শুরুতেই হারায় তাদের ওপেনার মনদীপ সিংহকে। প্রথম ওভারে কোনও রান না করে জোফ্রা আর্চারের বলে ফেরেন তিনি। তিন নম্বরে নেমে ইনিংস গড়ার কাজ শুরু করেন গেল। ধ্বংসাত্মক নয় ধীর স্থির এক গেলকে দেখা গেল রাজস্থানের বিরুদ্ধে। শতরান যখন মনে হচ্ছিল সময়ের অপেক্ষা তখনই জোফ্রা আর্চারের বিষাক্ত ইয়র্কার ছিটকে দেয় তার স্টাম্প। ৬৩ বলে ৯৯ রান করে থামতে হয় তাঁকে। নিজের ওপর বিরক্ত হয়ে ব্যাট ছুড়ে ফেলে দেন তিনি। পঞ্জাব শেষ করে ১৮৫ রানে।

রান তাড়া করতে নেমে ব্যাটে ঝড় তোলেন বেন স্টোকস। ২৬ বলে ৫০ করেন তিনি। তাঁর ব্যাটে ভর করেই পাওয়ার প্লেতে ৬৬ রান তোলে রাজস্থান। তাঁকে ফেরান ক্রিস জর্ডন। যদিও ততক্ষণে বিপদ যা হওয়ার হয়ে গিয়েছে। আত্মবিশ্বাস পেয়ে গিয়েছেন রাজস্থান ব্যাটসম্যানরা। অন্য ওপেনার রবিন উথাপ্পাও (২৩ বলে ৩০ রান) ভাল শুরু করেছিলেন। কিন্তু মুরুগান অশ্বিনের বলে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে ধরা পড়েন নিকোলাস পুরানের হাতে। তিনি ফিরতে পার্টনারশিপ গড়েন সঞ্জু স্যামসন (২৫ বলে ৪৮) এবং অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ (২০ বলে ৩১ রানে অপরাজিত)। দুরন্ত এক থ্রোয়ে সঞ্জু ফিরলেও ম্যাচ থেকে হারিয়ে যায়নি রাজস্থান। পাঁচ নম্বরে ব্যাট করতে নেমে ১১ বলে ২২ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলেন ইংরেজ উইকেটকিপার জস বাটলার।

Advertisement

আরও পড়ুন: মর্গ্যানের দুই ভুল সিদ্ধান্তে হার, তীব্র আক্রমণ প্রাক্তন স্পিনারের

লিগের লড়াই শেষের দিকে। প্লে অফের যাওয়ার লড়াইয়ে কিংস ইলেভেন পঞ্জাব এবং রাজস্থান রয়্যালস, দুই দলের কাছেই গুরুত্বপূর্ণ ছিল আজকের ম্যাচ। প্রথমে টস জিতে পঞ্জাবকে ব্যাট করতে পাঠায় রাজস্থান অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ। শুরুতেই ফিরিয়ে দেয় ফর্মে থাকা পঞ্জাব ওপেনার মনদীপকে। সেখান থেকে পঞ্জাবের হয়ে রান তোলেন ক্রিস গেল (৬৩ বলে ৯৯ রান) এবং অধিনায়ক লোকেশ রাহুল (৪১ বলে ৪৬ রান)। ৩৩ বলে হাফ সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন গেল। আইপিএলে ৩১তম অর্ধ শতরান তাঁর। এদিনের ইনিংসে ৬টা চার এবং ৮টা ছয় মারেন গেল। টি২০তে হাজারটা ছক্কা মারার রেকর্ড গড়েন গেল। সেঞ্চুরি না পেলেও তাঁর কাছে এই ইনিংস সেঞ্চুরির থেকে কম নয় বলেই মনে করেন গেল। তিনি বলেন,‘‘যারা আমার শতরানের জন্য অপেক্ষা করেছিল তাদের জন্য বলছি আমার কাছে এটা সেঞ্চুরি।’’


হাফ সেঞ্চুরির দিকে এগোছিলেন রাহুলও। কিন্তু ৪৬ রানের মাথায় আউট হন তিনি। বেন স্টোকসের বলে ৬ মারতে গিয়ে রাহুল তেওটিয়ার হাতে তালু বন্দি হন তিনি। এদিন উইকেটকিপার হিসেবে আইপিএলে ২ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন রাহুল। তিনি ফেরার পর গেল কে সঙ্গ দেন আরেক ক্যারিবিয়ান নিকলাস পুরান (১০ বলে ২২ রান)। যদিও বড় রান করতে পারেননি তিনি।


প্লে অফের যাওয়ার লড়াই আরও জমে উঠল রাজস্থানের এই জয়ের ফলে। কঠিন হল কলকাতা নাইট রাইডার্সের রাস্তা। তারা নেমে এল ৬ নম্বরে। ৪ নম্বরে পঞ্জাব থাকলেও তাদের সঙ্গে পয়েন্ট সমান হয়ে গেল রাজস্থানের। ১৩ ম্যাচ খেলে এই তিন দলেরই পয়েন্ট ১২। নেট রান রেটের লড়াইয়ে বেশ পিছিয়ে কলকাতা। আগামী ম্যাচে রাজস্থান মুখোমুখি হবে কলকাতার। সেই ম্যাচে জিততে চাইবে দুই দলই। কারণ হারলেই আশা শেষ প্লে অফের।

আরও পড়ুন

Advertisement