Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৫ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

রেফারিংকে ফের কাঠগড়ায় দাঁড় করালেও ফুটবলারদের জন্য গর্বিত রবি ফাওলার

রবি ফাওলার মনে করেন তাঁর এসসি ইস্টবেঙ্গল দুবারই বিপক্ষকে হারাতে পারত। কিন্তু রেফারির কিছু ভুল সিদ্ধান্তের জন্যই পুরো পয়েন্ট মাঠে ফেলে আসতে হ

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ৩০ জানুয়ারি ২০২১ ১৩:৩৩
Save
Something isn't right! Please refresh.
খারাপ রেফারিং। ফের ক্ষোভ উগরে দিলেন রবি ফাওলার। ফাইল চিত্র।

খারাপ রেফারিং। ফের ক্ষোভ উগরে দিলেন রবি ফাওলার। ফাইল চিত্র।

Popup Close

চলতি আইএসএলে দুবার এফসি গোয়াকে তাঁর দল হারাতেই পারত। তবে সেটা হল না। গত ৬ জানুয়ারি গোয়ার বিরুদ্ধে ১-১ গোলে ড্র করার পর শুক্রবারের ফলাফলও সেই ১-১। যদিও রবি ফাওলার মনে করেন তাঁর এসসি ইস্টবেঙ্গল দুবারই বিপক্ষকে হারাতে পারত। কিন্তু রেফারির কিছু ভুল সিদ্ধান্তের জন্যই পুরো পয়েন্ট মাঠে ফেলে আসতে হল। আর তাই রেফারিংয়ের বিরুদ্ধে ফের ক্ষোভ উগরে দিলেন লিভারপুল লেজেণ্ড। তবে একই সঙ্গে তিনি জানিয়ে দিলেন ম্যাচের ফলাফল যাই হোক, ফুটবলারদের পারফরম্যান্সে তিনি গর্বিত।

ম্যাচের শেষে ভার্চুয়াল সাংবাদিক সম্মেলনে ফের একবার রেফারিদের দিকে আঙ্গুল তোলেন ফাওলার। ক্ষুব্ধ ফাওলার বললেন, “শুধু এই ম্যাচ নয়। এফসি গোয়ার বিরুদ্ধে দুটো ম্যাচেই আমরা জিততে পারতাম। তবে খারাপ রেফারিং আমাদের সব পরিশ্রমে জল ঢেলে দিল। পিছিয়ে থেকেও দ্বিতীয়ার্ধে ছেলেরা লড়াকু মনোভাব দেখিয়েছে। অনেক সুযোগও পেয়েছি। কিন্তু বল জালে জড়াতে পারিনি। তাছাড়া রেফারির কিছু ভুল সিদ্ধান্ত আমাদের বিরুদ্ধে গিয়েছে। বিপক্ষ দল বক্সের মধ্যে আমার ফুটবলারদের একের পর এক ফাউল করে গিয়েছে। তবুও রেফারি সেগুলো এড়িয়ে গেল। অবাক হয়ে যাচ্ছি! একটা দলের বিরুদ্ধে আর কত ভুল সিদ্ধান্ত দেওয়া হবে! রেফারিরা কি আমার বিরুদ্ধে না ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে! বুঝতে পারছি না!’’

ম্যাচের ১৯ সেকেন্ডের মাথায় পেনাল্টি পেয়েছিল ইস্টবেঙ্গল। এগিয়ে যাওয়ার সুবর্ণ সুযোগ নষ্ট করেন অ্যান্টনি পিলকিংটন। তাঁর শট পোস্টের বাইরে যায়। এরপরে ডিফেন্সের ভুলে গোয়াকে এগিয়ে দেন ইগর আঙ্গুলো। দ্বিতীয়ার্ধে অবশ্য পাওয়া গিয়েছিল অন্য লাল-হলুদকে। প্রথমার্ধের ব্যর্থতা ভুলে আক্রমণাত্মক মেজাজে খেলতে শুরু করে। তবে একাধিক চেষ্টার পরেও গোলের মুখ খোলেনি। অবশেষে ৬৫ মিনিটে সেই পিলকিংটনের ফ্রিকিক থেকেই গোয়া গোলরক্ষক ধীরজ সিংহের ভুলে সমতা ফেরান ড্যানি ফক্স। তবে ড্র করলেও পিলকিংটনকে দোষ দিতে রাজি নন দলের হেড স্যার। বরং বলছিলেন, “প্রত্যেক ফুটবলারের জীবনে এমন পরিস্থিত আসে। কিন্তু অন্য ম্যাচগুলোতে যে একাধিক সিদ্ধান্ত আমাদের বিরুদ্ধে গিয়েছে, অনেকগুলো পেনাল্টি আমাদের দেওয়া হয়নি, সেটা নিয়ে তো কেউ মুখ খুলছে না। চলতি প্রতিযোগিতায় বহুবার প্রকাশ্যে রেয়ারিদের বিরুদ্ধে মন্তব্য করেছি। সত্যিটা প্রকাশ্যে বললেই কার্ড দেখিয়ে নির্বাসিত করে দেওয়া হয়েছে। এভাবেই তো মরসুম শেষ হতে চললো। একটা পেশাদার লিগে এটা মোটেও ভালো বিজ্ঞাপন নয়।’’

Advertisement

এফসি গোয়ার বিরুদ্ধে লাল-হলুদ যেভাবে খেলেছে তাতে দল জিততেও পারত। কিন্তু ম্যাচের ফলাফল ১-১ হাওয়ার জন্য প্লে-অফে য়াওয়ার আশা ক্রমশ ফিকে হচ্ছে। ১৪ ম্যাচ শেষে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে লিগ তালিকায় দশম স্থানেই থাকল ফাওলারের দল। অন্যদিকে ম্যাচ ড্র করলেও তৃতীয় স্থান ধরে রাখল গোয়া। সমসংখ্যক ম্যাচে তাদের পয়েন্ট ২১।



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement