Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৬ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ// জাপান ১ : নিউ ক্যালিডোনিয়া ১

শেষ ম্যাচে চমক ক্যালিডোনিয়ার

নিজস্ব সংবাদদাতা
১৫ অক্টোবর ২০১৭ ০৫:১৫
ছবি: সংগৃহীত।

ছবি: সংগৃহীত।

গুয়াহাটিতে গত রবিবার ফ্রান্সের কাছে ১-৭ চূর্ণ হওয়ার পরেও আশাবাদী দেখাচ্ছিল নিউ ক্যালিডোনিয়া থেকে আসা সাংবাদিক মার্তিন শার্মেসনকে। বলছিলেন, ‘‘প্রথম বার বিশ্বকাপে অংশ নিয়ে ফরাসিদের বিরুদ্ধে এক গোল মন্দ নয়। জাপান এশিয়ার দল। ওদের বিরুদ্ধে আমাদের দল কিন্তু কুঁকড়ে থাকবে না।’’

শার্মেসন ভুল বলেননি। শনিবার কলকাতায় জাপানের বিরুদ্ধে ৮২ মিনিট পর্যন্ত জাপানের কাছে ০-১ পিছিয়ে ছিল ওসেনিয়া গ্রুপ থেকে বিশ্বকাপে অংশগ্রহণকারী দল নিউ ক্যালিডোনিয়া। যে দেশের জনসংখ্যা সল্টলেকের চেয়েও কম। ফ্রান্সের বিরুদ্ধে যেমন তাঁদের গোলের লকগেট খুলে গিয়েছিল, এ দিন দমেনেখ ওখালি-র দলের সেই অবস্থা হয়নি। ৮৩ মিনিটে যখন নিউ ক্যালিডোনিয়ার হয়ে ১-১ করল তাঁদের অধিনায়ক জেকব জেনো, তখন রিজার্ভ বেঞ্চে তাঁদের কোচ-ফুটবলাররা এমন লাফ দিল যেন বিশ্বকাপটাই জিতে গিয়েছে নিউ ক্যালিডোনিয়া।

ম্যাচ শেষে সেই শার্মেসন যুবভারতীর মিডিয়া এনক্লোজারে দাঁড়িয়ে বলছিলেন, ‘‘কলকাতা শহরটা আমাদের কাছে পয়া। আমাদের দেশের ইতিহাসে এই এক পয়েন্টের সঙ্গে জড়িয়ে গেল কলকাতার নামও।’’

Advertisement

আর নিউ ক্যালিডোনিয়ার কোচ ওখালি বলছিলেন, ‘‘জাপানের মতো দেশের বিরুদ্ধে এই ড্র আমাদের দেশে ফুটবলের নতুন প্রসার ঘটাবে। গোটা স্টেডিয়াম তো আমাদেরই সমর্থন করল। বিশ্বকাপে ভাল কিছু একটা করার প্রতিজ্ঞা নিয়েছিল আমার ছেলেরা। আজ সেটা হয়ে গেল।’’

জাপানের বিরুদ্ধে চুয়াল্লিশ হাজার দর্শকের সামনে এ দিন শুরু থেকে ৪-১-৪-১ ছকে শুরু করেছিল নিউক্যালিডোনিয়া। কিন্তু স্পেন ম্যাচের মতোই এ দিন ফের তাদের লেফট ব্যাক ওয়েলপেন ট্যাকল নিতে গিয়ে ইতস্তত করছিল বার বার। সেই ফাঁকেই নাকামুরা নিখুঁত ডজে তাকে কাটিয়ে দুরন্ত প্লেসিংয়ে গোল করে যায়। হন্ডুরাসের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচে হ্যাটট্রিকের পরে এ দিন বিশ্বকাপে নিজের চতুর্থ গোলটাও হয়ে গেল নাকামুরার।

কিন্তু নিউ ক্যালিডোনিয়া কোচ এর পরেই লেফ্‌ট ব্যাকে ওয়েলপেন-কে তুলে নিয়ে নামিয়ে দিলেন লেমু-কে। আর তাতেই বন্ধ জাপানের গোলের রাস্তা। শেষের দিকে কুবোকে নামিয়ে মরিয়া চেষ্টা করেছিলেন জাপান কোচ। কিন্তু তাতেও কাজের কাজ হয়নি।

এ দিন ড্র করলেই নকআউটে চলে যেত জাপান। তাই জাপানের কোচ প্রথম একাদশের নয় জনকে বসিয়ে দ্বিতীয় দল নামিয়েছিলেন। সাংবাদিক সম্মেলনে সে কথা স্বীকারও করে গেলেন তিনি। তাঁর কথায়, ‘‘আসল খেলোয়াড়দের নক-আউটে তরতাজা অবস্থায় পেতে চাই। তাই আজ অনেককে বিশ্রাম দিয়েছিলাম। প্রি-কোয়ার্টার ফাইনালে কিন্তু অন্য খেলা। সেখানে অন্য জাপানকে দেখবেন।’’

এ দিন ড্রয়ের ফলে গ্রুপ ‘ই’ থেকে দ্বিতীয় হয়ে প্রি-কোয়ার্টার ফাইনালে গেল জাপান। শেষ ষোলোয় জাপানকে খেলতে হবে ইরাক নয়। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে।

এ দিন নিউ ক্যালিডোনিয়ার ড্রয়ের মতোই এই বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচ খেলালেন সুইৎজারল্যান্ডের মহিলা রেফারি এস্থার স্টবলি। দর্শকদের কাছে সেটিও অভিনব।

জাপান: টোগো উমেদা, নোবুকি ইকেতাকা, হিরোতো ইয়ামাদা, শিম্পেই ফুকুওকা (কোহেই ওকুনো), কিইতি নাকামুরা (য়ুকিনারি সুগাওয়ারা), সেইয়া বাবা, তাইচি ইয়ামাসাকি, আকিতো তানাহাসি, তৌইচো সুজুকি (তাকেফুসা কুবো), তাকুমু কেম্মোতসু, নাওকি, সুবাকি।

নিউ ক্যালিডোনিয়া: গাইজকা ইপেজে, জোসুঁ ওয়েলেপেন (জোসুঁ লেমু), কিয়াম ওয়ানিস, সিদরি ওয়েডেঞ্জস, নিল ওয়াহিয়োবি, জেকব জেনো, পিয়েরঁ বাকো, থিও বোশার্ড, সিরিল নিপি, বার্নার্ড, আইওয়া, জুলেঁ ওমেই (পল ওয়ানানিজে)।

আরও পড়ুন

Advertisement