Advertisement
২৭ জানুয়ারি ২০২৩

ভুল করেছিলাম, কিন্তু অনুতপ্ত নই, বলছেন ধর্মসেনা

বিতর্ক: সেই ওভারথ্রোয়ে ছ’রান দিচ্ছেন ধর্মসেনা। ফাইল চিত্র

বিতর্ক: সেই ওভারথ্রোয়ে ছ’রান দিচ্ছেন ধর্মসেনা। ফাইল চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ২২ জুলাই ২০১৯ ০৪:৫৫
Share: Save:

বিশ্বকাপ ক্রিকেট ফাইনালে তাঁর দেওয়া সিদ্ধান্ত নিয়ে ক্রিকেট দুনিয়ায় বিতর্কের ঝড় উঠেছে। যার রেশ এখনও কাটেনি। লর্ডসে গত রবিবার কাপ ফাইনালের সেই আম্পায়ার শ্রীলঙ্কার কুমার ধর্মসেনা অবশেষে মুখ খুললেন। সঙ্গে পরিষ্কার স্বীকার করে নিলেন, ভুল সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। তবে তার জন্য যে কোনও অনুশোচনা নেই তাঁর, সে কথাও স্পষ্ট করে দিয়েছেন শ্রীলঙ্কার এই বিতর্কিত আম্পায়ার।

Advertisement

বিশ্বকাপ ফাইনালে নিউজ়িল্যান্ডের বিরুদ্ধে মার্টিন গাপ্টিলের থ্রো ইংল্যান্ড ব্যাটসম্যান বেন স্টোকসের ব্যাটে লেগে বাউন্ডারি হয়ে গেলে ধর্মসেনা ছয় রান দিয়েছিলেন। টিভি রিপ্লে-তে পরিষ্কার দেখা গিয়েছিল ইংল্যান্ডের দুই ব্যাটসম্যান বেন স্টোকস ও আদিল রশিদ দৌড়নোর সময়ে দু’রান পূর্ণ হয়নি। ফলে স্কোরবোর্ডে পাঁচ রান যুক্ত হওয়ার কথা ছিল ইংল্যান্ডের, ছয নয়। স্বভাবতই ছয় রান যুক্ত হওয়ায় সে দিন ম্যাচ ‘টাই’ হয়ে যায়। চার রান দেওয়া হয়েছিল ওভারথ্রোর জন্য। আর দু’রান দৌড়ে নেওয়া। ফলে ম্যাচ শেষ পর্যন্ত গড়ায় সুপার ওভারে। সেখানেও খেলা অমীমাংসিত ভাবে শেষ হওয়ায়, বেশি বাউন্ডারি মারার বিচারে চ্যাম্পিয়ন হয় ইংল্যান্ড।

রবিবার সে প্রসঙ্গে ধর্মসেনা বলেন, ‘‘আমার মনে হয় এ সব ক্ষেত্রে টিভিতে রিপ্লে দেখে মন্তব্য করাটা খুব সহজ।’’ তার সঙ্গে তিনি যোগ করেন, ‘‘আমি অবশ্যই মানছি ওই সিদ্ধান্তে ভুল ছিল। কিন্তু সেটা আমি বুঝতে পেরেছি পরে টিভি রিপ্লে দেখে। মনে রাখবেন, মাঠে টিভি রিপ্লে দেখার ব্যবস্থা ছিল না। তাই এ নিয়ে আমার কোনও অনুশোচনা নেই। কারণ, আইসিসি ওই সময়ে আমার সিদ্ধান্ত নিয়ে কোনও সমালোচনা করেনি। বরং প্রশংসাই করেছে।’’

প্রসঙ্গত, বিশ্বকাপ ফাইনালে এই ঘটনার সময়ে ধর্মসেনার সঙ্গে লেগ আম্পায়ার হিসেবে ছিলেন মারাইস এরাসমাস। ওই ঘটনার ঠিক আগে তিন বলে নয় রান দরকার ছিল ইংল্যান্ডের। কিন্তু ছয় রান হয়ে যাওয়ায় শেষ দুই বলে তিন রান দরকার হয়ে পড়ে ইংল্যান্ডের। ধর্মসেনা বলেছেন, ‘‘মনে রাখবেন, এটা এমনই একটা ঘটনা যে তৃতীয় আম্পায়ারকে বিষয়টি জানানোর কোনও পথ আমাদের কাছে খোলা ছিল না। কারণ, ওই ঘটনায় কোনও আউট হয়নি। একমাত্র সেটা হলেই আমাদের কথা বলার সুযোগ থাকত। তাই লেগ আম্পায়ারের সঙ্গেই বেশ খানিক্ষণ আমি আলোচনা করি। তাও সেটা করেছিলাম আমাদের যোগাযোগ ব্যবস্থার মাধ্যমে। যা শুনতে পেয়েছিলেন অন্য আম্পায়াররা ও ম্যাচ রেফারিও। তাঁরাও কেউ সে দিন লর্ডসে টিভি রিপ্লে দেখেননি। তাই ওঁরাও ভেবেছিলেন, ব্যাটসম্যানরা দুই রান নিয়েছেন। তাই ওই সিদ্ধান্ত জানিয়েছিলাম।’’

Advertisement

যদিও ধর্মসেনার এই সিদ্ধান্ত নিয়ে বিতর্কের ঢেউ উঠেছে ক্রিকেট মহলে। প্রাক্তন আম্পায়ার সাইমন টফেলও জানান, সে দিন ছয় রান দেওয়াটা মারাত্মক ভুল ছিল।

ধর্মসেনা এ দিন বলেন, ‘‘সবাইকে বুঝতে হবে, সে সময় এক সঙ্গে অনেকগুলো ঘটনা ঘটেছিল। আমাদের প্রতিটা বিষয়ে চোখ রাখতে হচ্ছিল। ব্যাটসম্যানদের প্রথম রান নেওয়া, ফিল্ডার কোথায় বলটা ধরলেন, তিনি কখন বলটা ছুড়ছেন, কোথা থেকে ছুড়ছেন স্ট্রাইকার না নন-স্ট্রাইকার এন্ড থেকে ও ব্যাটসম্যানরা দ্বিতীয় রান পূর্ণ করলেন কি না। এই সব এক সঙ্গে দেখতে হচ্ছিল। স্টোকস যখন দ্বিতীয় রান নিয়ে ফেলেছেন, তখনই দেখা যায়, বল ওর ব্যাটে লেগে বাউন্ডারির দিকে যাচ্ছে। তাই দুই ব্যাটসম্যান একে অপরকে অতিক্রম করে গিয়েছিলেন বলেই ধরে নিয়েছিলাম আমরা।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.