• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ও মৃত সর্বাধিক, উৎসবের মুখে জাঁকিয়ে বসছে করোনা আতঙ্ক

Coronavirus
গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ

উৎসবের পারদ চড়তে শুরু করেছে রাজ্য জুড়ে। বহু পুজোর উদ্বোধন হয়ে গিয়েছে। অপেক্ষায় আরও হাজার হাজার। তবে এখনও মানুষ পুজো দেখতে রাস্তায় নামেননি। তার মধ্যেই প্রতিদিন আতঙ্ক বাড়িয়ে চলেছে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। রবিবারও ২৪ ঘণ্টায় নতুন সংক্রমিতের সংখ্যা প্রায় ৪ হাজার। তিন দিন কম থাকার পর এ দিন ফের রাজ্যে সর্বাধিক মৃত্যুর রেকর্ড স্পর্শ করেছে। এই পরিস্থিতি চললে উৎসবের ভিড়ে সংক্রমণ কোথায় গিয়ে ঠেকবে, তাই নিয়ে ক্রমেই কপালের ভাঁজ চওড়া হচ্ছে পুলিশ-প্রশাসন থেকে চিকিৎসক-বিশেষজ্ঞদের। 

রবিবার সন্ধ্যায় স্বাস্থ দফতরের বুলেটিন অনুযায়ী রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৯৮৩ জন। দৈনিক নতুন সংক্রমণের নিরিখে এটাই এখনও পর্যন্ত সর্বোচ্চ। শনিবার এই সংখ্যা ছিল ৩ হাজার ৮৬৫। রবিবার পর্যন্ত রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হল ৩ লক্ষ ২১ হাজার ৩৬। রবিবারের বুলেটিনে ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে সবচেয়ে বেশি মানুষ নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন উত্তর ২৪ পরগনায় ৮৩৮ জন। কলকাতায় নতুন সংক্রমণ ৮১৩। 

(গ্রাফের উপর হোভার টাচ করলে দিনের পরিসংখ্যান দেখা যাবে)

রাজ্যে কোভিডে মৃতের সংখ্যা পেরিয়ে গেল ৬ হাজার। ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুর সংখ্যাও বেড়েছে। স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিন অনুযায়ী রাজ্যে মৃত্যু হয়েছে ৬৪ জনের। গত বুধবারও রাজ্যে ৬৪ জনেরই মৃত্যু হয়েছিল। এটাই রাজ্যে এখনও পর্যন্ত সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড। বৃহস্পতিবার কমে হয়েছিল ৬২। শুক্র ও শনিবার মারা গিয়েছিলেন ৬১ জন করে। রবিবার ফের তা সর্বোচ্চ সংখ্যায় পৌঁছে গেল। এই নিয়ে রাজ্যে মোট মৃত্যু হল ৬ হাজার ৫৬ জনের। ২৪ ঘণ্টায়  উত্তর ২৪ পরগনায় মৃত্যু হয়েছে ১৭ জনের এবং কলকাতায় ১৩ জনের। 

আরও পড়ুন: ‘করোনার শিখর পেরিয়ে এসেছে দেশ, ফেব্রুয়ারিতে শেষ হবে অতিমারি’

দীর্ঘদিন ধরে করোনায় সুস্থতার হার ঊর্ধ্বমুখী। করোনা-যুদ্ধে এটাই ছিল রাজ্য রাজ্য প্রশাসনের একমাত্র স্বস্তির জায়গা। কিন্তু রবিবার সেই সুস্থতার হারও কমে হয়েছে ৮৭.৫৫ শতাংশ। শনিবার এই হার ছিল ৮৭.৬৬। রবিবারের বুলেটিন অনুযায়ী ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতাল থেকে কোভিড চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে ছাড়া পেয়েছেন ৩ হাজার ১১৩ জন। এই নিয়ে রাজ্যে মোট সুস্থ কোভিড রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ২ লক্ষ ৮১ হাজার ৫৩। এই মুহূর্তে রাজ্যে সক্রিয় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩৩ হাজার ৯২৭। 

(গ্রাফের উপর হোভার টাচ করলে দিনের পরিসংখ্যান দেখা যাবে)

আরও পড়ুন: কোভিডে মৃত্যু ২ পুলিশ কর্মীর, সংক্রমণ বাঁচিয়ে পুজোর ভিড় সামলানো চ্যালেঞ্জ পুলিশের

সমান তালে উদ্বেগ বাড়িয়েছে ‘পজিটিভিটি রেট’ বা সংক্রমণের হারো। প্রতি দিন যত জনের কোভিড টেস্ট করা হয় এবং তার মধ্যে প্রতি ১০০ জনে যত জনের কোভিড রিপোর্ট পজিটিভ আসে, তাকে পজিটিভিটি রেট বা সংক্রমণের হার বলা হয়। দীর্ঘদিন ধরে সংক্রমণের হার ৮ এর ঘরে থাকার পর রবিবার তা পৌঁছে গিয়েছে ৯.১৫ শতাংশে। শনিবার এই হার ছিল ৮.৯০ শতাংশ এবং শুক্রবার ছিল ৮.৭২ শতাংশ। শনিবারের চেয়ে রবিবার টেস্টের সংখ্যা বেড়েছে। এ দিনের বুলেটিন অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিড টেস্টের সংখ্যা ৪৩ হাজার ৫২০। শনিবার এই সংখ্যা ছিল ৪৩ হাজার ৪২৮।  

(গ্রাফের উপর হোভার টাচ করলে দিনের পরিসংখ্যান দেখা যাবে)

কলকাতা ও উত্তর ২৪ পরগনা বাদে বাকি জেলাগুলিতেও যে সংক্রমণ বাড়ছে, তার ইঙ্গিত মিলেছে রবিবারের বুলেটিনেও। ১০০ জনের বেশি নতুন আক্রান্তের সন্ধান মিলেছে এমন জেলাগুলি হল হাওড়া ২৬৯, দক্ষিণ ২৪ পরগনা ২৬৪, জলপাইগুড়ি ১৮০, নদিয়া ১৭৪, পশ্চিম মেদিনীপুর ১৬৬, হুগলি ১৪৮, পূর্ব মেদিনীপুর ১৪০, দার্জিলিং ১১১, পশ্চিম বর্ধমান ১০৩ এবং মালদহ ১০৩ । 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন