ফের বিতর্কে দিলীপ ঘোষ। গত কয়েক দিনে ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিয়োকে কেন্দ্র করে রাজ্য বিজেপি সভাপতির নাম বিতর্কে জড়িয়েছে। হিন্দু অনেক মরেছে, আরও কিছু মরুক— ওই ভিডিয়োয় দিলীপ ঘোষকে এই রকম একটি মন্তব্য করতে শোনা যাচ্ছে। তা থেকেই শুরু হয়েছে বিতর্ক। তবে বিজেপির দাবি, ভিডিয়োটি ভুয়ো, দিলীপ ঘোষ কোথাও এমন কোনও মন্তব্য করেননি।

হোয়াটসঅ্যাপ তথা সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া যে ভিডিয়োকে ঘিরে বিতর্ক তৈরি হয়েছে, সে ভিডিয়োর সত্যতা আনন্দবাজারের পক্ষে যাচাই করা সম্ভব হয়নি। কিন্তু ভিডিয়োয় দেখা গিয়েছে, রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষের সঙ্গে একদল লোকের কথোপকথন চলছে। দিলীপের মুখ পুরোপুরি দেখা যায়নি ভিডিয়োটিতে, পিছন থেকে ফুটেজটি রেকর্ড করা হয়েছে। যাঁরা দিলীপ ঘোষের সঙ্গে কথা বলছেন, তাঁরা কৃষ্ণনগর লোকসভা এলাকায় বিজেপির সংগঠনের বিষয় নিয়ে কোনও একটা আর্জি পেশ করছেন— এমনই দেখা গিয়েছে ভিডিয়োটিতে। সেই প্রসঙ্গে জবাব দিতে গিয়েই দিলীপ ঘোষ বিতর্কিত মন্তব্যটি করেছেন, শোনা গিয়েছে অন্তত তেমনই।

‘‘সংগঠন কে করবে? আমি গিয়ে করব? না হিন্দুরা করবেন?’’ এই রকম প্রশ্ন করতে দেখা গিয়েছে দিলীপ ঘোষকে। তার পরে দিলীপ ঘোষকে কৃষ্ণনগরে দলের পরাজয় নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করতেও দেখা গিয়েছে। তিনি বলেছেন, ‘‘কৃষ্ণনগরের লোকেদের জন্য কোনও মায়া নেই। ওঁরা জলুবাবুকে (সত্যব্রত মুখোপাধ্যায়) হারিয়েছেন, আবার কল্যাণকে (কল্যাণ চৌবে) হারালেন। কিসের জন্য ওঁদের জন্য করতে যাব আমরা?’’ একই সঙ্গে রানাঘাটের ফলাফল নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করতেও শোনা গিয়েছে দিলীপকে। ‘‘পাশে দেখুন, আড়াই লক্ষ ভোটে জিতিয়েছে রানাঘাট।’’ বলতে শোনা গিয়েছে রাজ্য বিজেপির সভাপতিকে।

আরও পড়ুন: ভারতীয় সেনার বিরুদ্ধে সরাসরি যুদ্ধ কাশ্মীরে, ভিডিয়ো বার্তায় হুমকি দিল আলকায়দা প্রধান​

যে ফুটেজটি ভাইরাল হয়েছে, তার শেষ অংশে দিলীপ ঘোষ বলছেন, ‘‘একটু নির্মম হন। হিন্দু অনেক মরেছে, আরও কিছু মরুক।’’

আরও পড়ুন: হবু স্বামীর মৃত্যু বাইক দুর্ঘটনায়, কয়েক ঘণ্টার মধ্যে ‘গুড বাই’ লিখে আত্মঘাতী তরুণী​

দিলীপ ঘোষের মন্তব্যের এই অংশ নিয়েই সবচেয়ে বেশি হইচই শুরু হয়েছে। তবে যে এলাকা সম্পর্কে বলতে গিয়ে দিলীপ ঘোষ এই মন্তব্য করেছেন বলে অভিযোগ, সেই কৃষ্ণনগর তথা উত্তর নদিয়ার বিজেপি সভাপতি মহাদেব সরকার বলছেন, ভিডিয়োটি ভুয়ো। তাঁর দাবি, ‘‘দিলীপ ঘোষকে কালিমালিপ্ত করতে এই ভিডিয়ো তৈরি করা হয়েছে। দিলীপ ঘোষ এই রকম কোনও মন্তব্য করেননি।’’ বিজেপির সাংগঠনিক জেলা সভাপতির ব্যাখ্যা, ‘‘যে ভিডিয়োটি ছড়নো হয়েছে, তাতে এক বারের জন্যও কি দিলীপদা’র মুখ দেখা গিয়েছে? দেখা যায়নি। পিছন দিক থেকে ছবি তোলা হয়েছে। তার উপরে নকল কণ্ঠস্বর বসিয়ে দেওয়া হয়েছে।’’

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ।