লক্ষ্মীপুজোর দিনে নারদে অভিযুক্ত তৃণমূল সাংসদ অপরূপা পোদ্দারকে জেরা করল ইডি। এ দিনই তৃণমূল নেতা মদন মিত্রের দক্ষিণেশ্বরের ফ্ল্যাটে হানা দিল সিবিআই।

ইডি সূত্রের খবর, নারদ কর্তা ম্যাথু স্যামুয়েলের কাছ থেকে অপরূপা যে ৫ লক্ষ টাকা নিয়েছিলেন বলে অভিযোগ, তা কী ভাবে খরচ করেছিলেন সেটাই জানতে চাওয়া হয় তাঁর কাছ থেকে। অপরূপা জানান, গত লোকসভা ভোটে তাঁর এজেন্ট ছিলেন তাঁর স্বামী সাকির আলি। সাকিরও এ দিন অপরূপার সঙ্গে ইডি অফিসে যান। তিনিই দীর্ঘক্ষণ ধরে ইডি-র অফিসারদের খরচের হিসেব বুঝিয়েছেন।

বুধবারেই হুগলির খানাকুলের যে বাড়িতে বসে অপরূপাকে টাকা নিতে নারদার ফুটেজে দেখা গিয়েছে, সেখানে গিয়ে ছবি তোলেন সিবিআই গোয়েন্দারা। বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটে নাগাদ তাঁরা যান দক্ষিণশ্বরে মদন মিত্রের ফ্ল্যাটে। প্রাক্তন মন্ত্রী তখন ফ্ল্যাটেই ছিলেন। সিবিআইয়ের দাবি, নারদ স্টিং অপারেশনের ফুটেজ অনুযায়ী সাদা পাঞ্জাবি পরা এক ব্যক্তি ম্যাথু ও টাইগারকে পাঁচতলার ফ্ল্যাটে নিয়ে যান। মদনবাবু বিছানায় শুয়ে থাকা অবস্থায় টাকা নেন। ওই টাকা আলমারিতে তুলে রাখেন আরেক জন। সিবিআই সূত্রে বলা হচ্ছে, ওই দিন টাকা লেনদেনের সময় উপস্থিত দুই ব্যক্তিকে শনাক্ত করা হয়েছে। পরে তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। মদনবাবু পরে বলেন, ‘‘আমি সিবিআই-কে সব রকম সহযোগিতা করব। আমি যে নির্দোষ তা সিবিআই-কে জানিয়েছি।’’